অভিনয় ছাড়ার ঘোষণা দিলেন দঙ্গলকন্যা জাইরা

বিনোদন ডেস্ক:

 

লিউড তারকা জায়রা ওয়াসিম অল্প বয়সেই অনেক খ্যাতি পেয়েছেন। বর্তমানে তার বয়স মাত্র ১৮ বছর। অথচ এর মধ্যেই অভিনয়ের জন্য জাতীয় পুরষ্কারের মত সবচেয়ে বড় পুরষ্কার নিজ ঝুলিতে পুরেছেন। বিশ্বজুড়ে বলিউড ভক্তরা তাকে এক নামে চেনে। অথচ এই তারকা শিল্পী নিজের ধর্মবিশ্বাস অটুট রাখার খাতিরে এই অল্প বয়সেই বলিউড ছেড়ে দেয়ার পরিকল্পনা করেছেন।

 

রবিবার নিজের ফেসবুক পেজে জায়রা ওয়াসিম জানান, নিজের বিশ্বাস এবং ধর্মের পথে বাধা সৃষ্টি করার কারণে তিনি বলিউডে কাজ করে সুখী হতে পারছেন না। ভারত অধিকৃত কাশ্মীরে জন্ম নেয়া জায়রা ওয়াসিম লিখেন, ‘যদিও আমি এখানকার পরিবেশের সঙ্গে পুরোপুরি মানিয়ে নিয়েছি, কিন্তু তবুও আমি এর অংশ নই।’

 

দঙ্গল বালিকা হিসেবে খ্যাত এই অভিনেত্রী বলেন, ‘পাঁচ বছর আগে আমি একটি সিদ্ধান্ত নিয়েছিলাম যা আমার জীবনটাকেই চিরতরে বদলে দিয়েছিল। বলিউডে পা রাখার পরেই বিপুল জনপ্রিয়তার সব দরজা আমার জন্য উন্মুক্ত হয়ে যায়। আমি জনগণের আকর্ষণের কেন্দ্রবিন্দু হতে শুরু করি। প্রায়ই আমাকে তরুণদের পথিকৃৎ হিসেবে উপস্থাপিত করা হতো।’

 

ফেসবুকে দেয়া দীর্ঘ ওই পোস্টে জায়রা লিখেন, ‘যাহোক সফলতা এবং ব্যর্থতা সম্পর্কে আমার যে ধারণা তার সঙ্গে আমার বর্তমান অবস্থা কখনোই এক নয়।’

 

জাইরা লিখেছেন, ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রিতে অনেক ভালোবাসা, সমর্থন এবং প্রশংসা পেলেও এটা নীরবে এবং অনিচ্ছাকৃতভাবেই তাকে ‘ইমান’ থেকে সরিয়ে ফেলছে। ধর্মের সঙ্গে তার সম্পর্ক হুমকির মুখে ফেলছে। তাই তিনি ফিল্ম ইন্ডাস্ট্রি থেকে নিজেকে সরিয়ে নেয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছেন।

 

সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে দেওয়া জাইরার এই পোস্ট এরইমধ্যে  আড়াই হাজারেরও বেশি শেয়ার হয়েছে। ভক্তরা কমেন্টে জানতে চাইছেন কী অভিমানে অভিনয় থেকে নিজেকে দূরে সরিয়ে নিচ্ছেন জাইরা। অনেক আবার জাইরার এই সিদ্ধান্তকে সাধুবাদ জানিয়েছেন।

যদিও জায়রা ওয়াসিম বলিউডে পাঁচ বছর সময় কাটিয়েছেন এবং অনেক খ্যাতিও পেয়েছেন কিন্তু তিনি এখন স্বীকার করছেন, নিজের এই পরিচয় এবং কাজ নিয়ে তিনি কখনোই সত্যিকারের সুখী ছিলেন না। তিনি অন্য কিছু হওয়ার জন্য লড়াই করেছিলেন।