মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ১১:০৯ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মীরসরাইয়ে ছাত্রলীগ-যুবলীগের সংঘর্ষ, আহত ১০

Reporter Name
  • Update Time : বৃহস্পতিবার, ১৮ জানুয়ারি, ২০১৮
  • ৫ Time View

এস এম জাকারিয়া, মীরসরাই (চট্টগ্রাম) প্রতিনিধি: আধিপত্য বিস্তারকে কেন্দ্র করে মীরসরাইয়ে ছাত্রলীগ-যুবলীগের দুই গ্রুপের নেতাকর্মীদের মাঝে সংঘর্ষে ১০ জন আহত হয়েছে। বুধবার (১৭ জানুয়ারী) সন্ধ্যায় উপজেলার মীরসরাই সদর ইউনিয়নের মিঠাছরা বাজারে যুবলীগ কর্মী নুর হোসেন আরিফ এবং ছাত্রলীগ নেতা কফিল উদ্দিন রিহাবের গ্রুপের মধ্যে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এসময় আহত হন, উপজেলা ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক কফিল উদ্দিন রিহাব, ছাত্রলীগ নেতা বাবু, ইমতিয়াজ ইসলাম পুষাদ, মো: বাপ্পী ইসলাম, নাজিম উদ্দিন। এসময় ছাত্রলীগ-যুবলীগের নেতাকর্মীরা বাজারে রামদা ও লাঠিসোটা নিয়ে মহড়া দেওয়ায় পুরো বাজারে আতঙ্ক ছড়িয়ে পড়ে। যুবলীগ কর্মী নুর হোসেন আরিফ বলেন, বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলা ছাত্রলীগের আইন বিষয়ক সম্পাদক রিহাব এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইমামুল ইসলাম লিটনের নেতৃত্বে ৬০-৭০ জন লোকজন মিঠাছরা বাজারে এসে হঠাৎ মহড়া দেয়। এসময় তারা আমাকে সহ কয়েকজনকে মিঠাছরা বাজার থেকে তুলে নিয়ে গিয়ে মারার হুমকী দেয়। এসময় আমরা তাদের বাধা দিলে হাতাহাতি হয়। পরে বাজারের সহ-সভাপতি আব্দুল্লাহ আল মামুন সহ আ’লীগ নেতারা উভয়পক্ষকে সরিয়ে দেয়। পরবর্তী তারা মীরসরাই থেকে আরো ছেলে নিয়ে এসে আমাকেও উপজেলা ছাত্রলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সালাহ উদ্দিন রুবেলের নাম ধরে গালাগালি শুরু করে। এসময় আমরা এক সাথে লাঠিসোটা নিয়ে তাদের প্রতিরোধ করি। এতে কয়েকজনের হাত-পা কেটে যায়। আমাদের ছাত্রনেতা ইমতিয়াজ ইসলাম পুষাদ, মো: বাপ্পী ইসলাম, নাজিম উদ্দিন এসময় আহত হয়।
উপজেলা ছাত্রলীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ইমামুল ইসলাম লিটন বলেন, দীর্ঘদিন যাবৎ যুবলীগ কর্মী নুর হোসেন আরিফ উপজেলা ছাত্রলীগ নেতা কফিল উদ্দিন রিহাবকে মিঠাছরা বাজারে ডিস্টার্ব করে আসছে। আজ বিকেলে রিহাব তার ছেলে পেলে (অনুসারী) নিয়ে মিঠাছরা বাজারে একটি চায়ের দোকানে আড্ডা দেওয়ার সময় আরিফের নেতৃত্বে ৪-৫ জন ধামা-চুরি নিয়ে এসে অতর্কিত ভাবে কোপানো শুরু করে। এতে রিহাবের পা, হাত ও শরীরের বিভিন্ন স্থানে কোপ লাগে। পরবর্তীতে আমরা তাদের প্রতিরোধ করি। এসময় ছাত্রনেতা বাবুও আহত হয়। রিহাবকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে মিঠাছরা জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়। রিহাবের শারিরীক অবস্থা গুরুতর হওয়ায় তাকে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে বলে জানান তিনি।
মীরসরাই থানার পরিদর্শক (তদন্ত) রমিজ আহমেদ বলেন, মিঠাছরা বাজারে সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশ মোতায়েন করা হয়েছে। পরিস্থিতি এখন স্বাভাবিক রয়েছে। থানায় এখনো কোন পক্ষ অভিযোগ দেয়নি। অভিযোগ ফেলে আইনগত ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines