মোঃ একরামুল হক মুন্সীঃ জেডিসি পরীক্ষায় শতভাগ পাশের মধ্য দিয়ে আবারো সফলতার শীর্ষে স্থান করে নিয়েছে ঐতিহ্যবাহী চিতলমারীর দাখিল মাদ্রাসা। বাগেরহাটের চিতলমারী উপজেলার সদর ইউনিয়নে এই মাদ্রাসা অবস্থিত।
মাদ্রাসার সুপার এসএম ইদ্রিসুর রহমান জানান, ২০১৭ সালে অনুষ্ঠিত জেডিসি পরীক্ষার ফলাফলে শতভাগ পাশের মাধ্যমে এই মাদ্রাসা বাগেরহাট জেলার শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসার শুনাম অর্জন করেছে। ৫৮ জন শিক্ষার্থীর সকলেই উত্তীর্ণ হয়েছে। উত্তীর্ণদের মধ্যে এ-প্লাস ০৬ জন, এ ৩২জন, এ-মাইনাস ১৫জন, বি ০৫জন।
চিতলমারী মাদরাসা পরীক্ষা কেন্দ্র হতে জেডিসি পরীক্ষা ২০১৭তে সাতটি মাদ্রাসা অংশগ্রহণ করে। মাদ্রাসাগুলো হচ্ছে, হিজলা আলিম মাদ্রাসা, শৈলদাহ কারামতিয়া ফজিল মাদ্রাসা, রহমতপুর ফাজিল মাদ্রাসা, বড়বাড়িয়া রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসা, চরবানিয়ারী নেসারিয়া দাখিল মাদ্রাসা, চরকচুড়িয়া দাখিল মাদ্রাসা এবং চিতলমারী দাখিল মাদ্রাসা। পরীক্ষার ফলাফলে দেখা যায়, সর্বোচ্চ পাশের হার চিতলমারী দাখিল মাদ্রাসায়-৯৭% এবং সর্বনি¤œ পাশের হার বড়বাড়িয়া রহমানিয়া ফাজিল মাদ্রাসায়-৭৩%।
মাদ্রাসার সুপার এসএম ইদ্রিসুর রহমান জানান, ১৯৯৫ সালে চিতলমারী দাখিল মাদ্রাসা প্রতিষ্ঠিত হয়। শিক্ষার মানোন্নয়নের পাশাপাশি প্রতিটি ক্ষেত্রে এই প্রতিষ্ঠান সাফল্য অর্জন করে আসছে। তিনি জানান, শিক্ষক মন্ডলীর সদিচ্ছায় চলতি ২০১৮ সাল থেকে বিগত বছরগুলোতে এ প্রষ্ঠিানকে আর পিছনে ফিরে তাকাতে হয়নি। ২০১৭ সালে গ্রীষ্মকালীন ফুটবল ও শীতকালীন ক্রিকেট খেলায় উপজেলায় চ্যাম্পিয়ান হয়েছে এই প্রতিষ্ঠান।
চিতলমারী মাদ্রাসার শিক্ষকরা জানান, কর্মদক্ষতা, উদ্দীপনা, সু-শৃঙ্খল পাঠদান-ক্রীড়াঙ্গনে ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে সু-খ্যাতি অর্জনসহ প্রশাসনিক ব্যাবস্থায় একটি শিক্ষা প্রতিষ্ঠান যেভাবে আগামীর পথে এগিয়ে যেতে পারে সেভাবেই বিচক্ষণতার সাথে
মাদ্রাসার সুপার মাওঃ ইদ্রিসুর রহমান নিরলস পরিশ্রম করে যাচ্ছেন। ইতোপূর্বে শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা প্রধান হিসাবে সম্মাননায় ভূষিত হয়েছেন মাওলানা এসএম ইদ্রিসুর রহমান। ইতিপুর্বে মাদ্রাসাটি পাবলিক পরীক্ষায় জেলায় তিনবার প্রথম স্থান অধিকার করে। ভালো ফলাফলের জন্য শিক্ষা মন্ত্রণালয় কর্তৃক উদ্দীপনা পুরস্কার পায়। এছাড়াও, ২০১০ সালে জাতীয় প্রেস ক্লাবের ভিআইপি লাউঞ্জে অনুষ্ঠিত এশিয়া ছিন্নমূল মানবাধিকার বাস্তবায়ন ফাউন্ডেশন পক্ষ হতে বাগেরহাট জেলার শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসা ও শ্রেষ্ঠ মাদ্রাসার শ্রেষ্ঠ প্রধানের সম্মাননায় ভূষিত হন মাও: এসএম ইদ্রিসুর রহমান। ডিজিটাল মেলা ২০১৪ ও ২০১৫ সালে স্কুল-কলেজ ও মাদ্রাসার মধ্যে শ্রেষ্ঠ স্থান অর্জন করে এ প্রতিষ্ঠান।
বাংলাদেশ মাদ্রাসা শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক এখানে দাখিল ও জে,ডি,সি পরীক্ষার কেন্দ্র হিসাবে ঘোষিত হওয়ায় শিক্ষার্থীরা সুন্দর মনোরম পরিবেশে প্রতিবছর নকল মুক্ত পরীক্ষায় অংশগ্রহন করে আসছে। এছাড়া বাংলাদেশ কারিগরী শিক্ষাবোর্ড কর্তৃক নবম শ্রেণি বোর্ড ফাইনাল ও এস,এস,সি ভোকেশনাল পরীক্ষার কেন্দ্রটিও এখানে অবস্থিত। বর্তমান এখানে বিজ্ঞান বিভাগসহ নুরানী বিভাগ খোলা হয়েছে।
মাদ্রাসা প্রধান (সুপার) মাওলানা এসএম ইদ্রিসুর রহমান বলেন, আমি এই প্রতিষ্ঠানের খাদেম মাত্র। আমার পাশাপাশি মাদ্রাসার ম্যানেজিং কমিটি, শিক্ষকবৃন্দ এবং এলাকার গুণীজনদের শুভ দৃষ্টিতে এ প্রতিষ্ঠান সামনের দিকে এভাবেই এগিয়ে যাবে বলে আমার বিশ্বাস।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here