নার্গিস আক্তারঃ

 

রাজধানীর উত্তরায় এনা পরিবহনে টিকিট কাউন্টারে চাঁদাবাজির অভিযোগে চার হিজড়া সদস্যকে গ্রেফতার করেছে উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশ।

গ্রেফতারকৃত হিজড়ারা হলেন, মৌসুমী হিজড়া (৩২), অনিকা হিজড়া (১৯), তুলী হিজড়া (২৪) ও দুলী হিজড়া (২৫)।

আজ শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে উত্তরা পশ্চিম থানার ৭ নং সেক্টরের বিএনএস টাওয়ারের সামনে থেকে তাদের গ্রেফতার করা হয়।

আজ দুপুরে ডিএমপি’র উত্তরা পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মোহাম্মদ মহসীন এসব তথ্য নিশ্চিত করেছেন।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন জানান, গ্রেফতারকৃত হিজড়ারা দীর্ঘদিন ধরে উত্তরা এলাকায় বিভিন্ন যানবাহন থেকে চাঁদাবাজি করতেন। তাদের দাবিকৃত টাকা না দিলে তারা কাউন্টার এবং গাড়িতে রীতিমতো তাণ্ডব চালাতেন। যাত্রীদের সাথে অশ্লীল আচরণ করতেন।

আজ শনিবার সকাল ১০ টার দিকে অভিযুক্ত চার হিজড়া সদস্যরা উত্তরা পশ্চিম থানার ৭ নং সেক্টরের বিএনএস টাওয়ারের সামনে এনা পরিবহনের ম্যানেজার জিয়াউল হকের কাছে গিয়ে দুই হাজার টাকা চাঁদা দাবি করেন। তিনি কাঙ্খিত টাকা দিতে অস্বীকৃতি জানালে হিজড়ারা (তারা) যাত্রীদের সাথে অশোভন আচরণ শুরু করেন। এক পর্যায়ে তিনি ৫০০ টাকা দিতে রাজি হন। কিন্তু তারা তাদের দাবিকৃত টাকার জন্য অনড় থাকেন। এক পর্যায়ে হিজড়ারা জিয়ার পকেট থেকে ১০১০ টাকা নিয়ে নেন এবং আরও ৪৯০ টাকার জন্য এনা পরিবহনের উত্তরার কাউন্টার জুড়ে হৈ হুল্লোড় করতে থাকেন। কোন উপায় না পেয়ে অবশেষে এনা পরিবহনের ম্যানেজার জিয়াউল হক বাধ্য হয়ে ঘটনাটি উত্তরা পশ্চিম থানা পুলিশকে জানালে পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্হলে গিয়ে ৪ হিজড়াকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়।

পুলিশের এ কর্মকর্তা আরও বলেন, প্রাথমিক জিঞ্জাসাবাদে আটকরা চাঁদাবাজির সাথে জড়িত বলে স্বীকার করেছে। জিঞ্জাসাবাদ শেষে তাদেরকে আজ শনিবার দুপুরে আদালতে পাঠানো হয়েছে। এ ঘটনায় জিয়াউল হক বাদি হয়ে দ্রুত বিচার আইনে আজ উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা দায়ের করেছেন বলে জানান তিনি।

ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, গত ৬ আগস্ট ২০২২ উত্তরা পশ্চিম থানার ৯ নং সেক্টরের একটি ভবনের এক ভাড়াটিয়ার একটি কন্যাসন্তান জন্ম হয়। এর মাস দুয়েক আগে একই ভবনের আরেক ভাড়াটিয়ার একটি কন্যাসন্তান ভূমিষ্ঠ হয়। গত ১৪ আগষ্ট, ২০২২ সকাল ১০ টার দিকে উত্তরা ৯ নং সেক্টরে একটি বাসায় অভিযুক্ত হিজড়ারা (তৃতীয় লিঙ্গের মানুষ) দল বেঁধে এসে ওই ভবনে অনাধীকারে প্রবেশ করে দুই নবজাতকের জন্য ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করে। এই চাঁদাকে তারা ‘নবজাতক পাওনা’ বলে দাবি করে। চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে তারা নবজাতক নিয়ে যাওয়ার হুমকিও দেয়। এক পর্যায়ে তাদের একজন ৩ হাজার টাকা দেন। কিন্তু বাকিজন টাকা না দিলে তার ঘরের দরজায় লাথি মেরে, ঘরের সামনে চিৎকার চেঁচামেচি করে ভীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি করে। পরে ভুক্তভোগী নবজাতকের পরিবার কোন উপায় না পেয়ে পুলিশকে খবর দিলে উত্তরা পশ্চিম থানার একদল পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছে অভিযুক্ত আলো হিজড়া (২৮), শারমীন হিজড়া (২৩), মিম হিজড়া (৩০) ও রুমা হিজড়া (২৫) চার হিজড়াকে গ্রেফতার করতে সক্ষম হয়। আটককৃতরা হিজড়ারা শান্তা হিজড়ার সদস্য বলে জানা গেছে।
এঘটনায় উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলা করা হয়েছিল বলে ওসি জানান।

তিনি আরও জানান, এসময় তাদের নিকট থেকে এক নবজাতক পরিবারের কাছ থেকে চাঁদাবাজি হিসেবে নেওয়া ৩ হাজার টাকা উদ্ধার মূলে জব্দ করা হয়।

পুলিশ বলছে, আটককৃত হিজড়ারা নবজাতকের (বাচ্চা)’র জন্য তার পরিবারের কাছে ২০ হাজার টাকা চাঁদা দাবি করছিল। কিন্তু নবজাতক পরিবারটি কাঙ্খিত চাঁদা দিতে অপারগতা প্রকাশ করলে নবজাতক ছিনিয়ে নেয়ার হুমকিও দেয় হিজড়ারা।

এলাকাবাসি, ভুক্তভোগী ও পুলিশ বলছে, গ্রেফতারকৃত হিজড়ারা দীর্ঘ দিন ধরে উত্তরা পশ্চিম থানার ৯ নং সেক্টর আব্দুল্লাহপুর, হাউজবিল্ডিং, আজমপুর এলাকাসহ বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপকহারে দোকানপাট, ব্যবসা প্রতিষ্টান ও বিভিন্ন যানবাহনে চাঁদাবাজি করে আসছিল। এছাড়া তারা ইয়াবা ব্যবসা, ছিনতাইসহ নানাবিধ অপকর্মের সাথে জড়িত রয়েছে। ইতিপূর্বে তাদের বিরুদ্ধে উত্তরা পশ্চিম থানাসহ বিভিন্ন থানা মামলা, জিডি ও অভিযোগ রয়েছে বলে জানা গেছে।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here