মনির হোসেন (শিশির) :

রাজধানীর উত্তরা থেকে শীর্ষ ছিনতাইকারী গ্রেফতার করেছে পুলিশ। শুক্রবার (২৮ অক্টোবর) ভোরে উত্তরা ৭ নম্বর সেক্টরের সামনে থেকে তাদের গ্রেপ্তার করা হয়।

গ্রেপ্তার হওয়া ছিনতাইকারীরা হলেন, মো. আক্তার হোসেন (২৩) ও মো. হুতিক (২২)। গ্রেফতার আক্তার নেত্রকোনার বারহাট্টা থানার কদমতলী এলাকার মো. জামালের ছেলে। হৃতিক চট্টগ্রামের পাহাড়তলী থানার সিটি গেইট এলাকার আজিজের ছেলে।

পুলিশ জানায়, তারা চলন্ত বাস থেকে যাত্রীর মোবাইল, ব্যাগ, চেইন ছোঁ মেরে ছিনিয়ে নেয় বলে ‘কাউয়া’ নামে পরিচিত। সন্ধ্যায় উত্তরা পশ্চিম থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মোহাম্মদ মোহসীন নিশ্চিত করে তিনি বলেন, আক্তার মূলত ভাঙারির দোকানদার। এখান থেকেই পরিচয় হয় হৃতিকের সঙ্গে। এরপরই দু’জনে মিলে শুরু করে ছিনতাই। তাদের মূল টার্গেট আন্তঃজেলা বাস। এসব বাস খুবই দ্রুত চলাচল করায় জানালার পাশে বসা যাত্রীর মোবাইল বা ব্যাগ টান দিয়ে দৌড়ে পালায়। দ্রুতগামী গাড়ি হওয়ায় গাড়ি থামতে থামতেই পালিয়ে যায় তারা।

আক্তার এবং হৃতিক দুর্ধর্ষ ছিনতাইকারী হওয়া একপর্যায়ে ‘কাউয়া’ নামে পরিচিতি পায়। এ রুটে আন্তঃজেলা বাসগুলো থেকে ছিনতাইয়ের প্রায় সবগুলোতেই জড়িত তারা। কিন্তু তারা ধরা পড়েন না কোনোভাবেই। যখনই তারা ধরা পড়ে সঙ্গে সঙ্গেই নিজেদের শরীর কাটে, মলমূত্র করে সেগুলো নিজেদের গায়ে মাখে আবার অন্যদের দিকেও ছুড়ে মারে। এ জন্য ভয়ে কেউ তাদের ধরে না। আর তারাও প্রতিবার পালিয়ে যায়।

মানুষ যাতে তাদের কথা না বুঝে সেজন্য তারা সাংকেতিক ভাষা ব্যবহার করে। যেমন— গলার চেইনকে সুতা বলে, মোবাইলকে বাঁশি এবং কানের দুলকে ঝুমকা বলে। গ্রেফতারের পর তাদের আদালতে পাঠিয়ে রিমান্ড আবেদন করলে আদালত একদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেছেন বলেও জানান তিনি।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here