Amar Praner Bangladesh

এফডিসি এখন রাজনীতির ঘাঁটি: সম্রাট

 

 

বিনোদন ডেস্কঃ

 

নায়করাজ রাজ্জাক। তার দুই ছেলে বাপ্পারাজ ও সম্রাটও চলচ্চিত্রে নিজেদের অবস্থান তৈরি করেছেন। যদিও এখন রূপালি পর্দায় তাদের খুব একটা দেখা যায় না। এমনকি চলচ্চিত্রের কোনো অনুষ্ঠানে তাদের উপস্থিতি চোখে পড়ে না। এর কারণ জানিয়েছেন খালিদ হোসেন সম্রাট। তার সঙ্গে কথা বলেছেন রাহাত সাইফুল।

রাহাত: চলচ্চিত্রের বিভিন্ন অনুষ্ঠানে আপনাদের উপস্থিতি কম দেখা যায়- এর কারণ কী?

সম্রাট: সোজা কথা বলতে কি আমারা শিল্পী, রাজনীতি জানি না। এফডিসিতে এখন রাজনীতির ঘাঁটি হয়ে গেছে। সবাই দেখি রাজনীতি করে। আপনি কাজ নিয়ে আলোচনায় ডাকেন, কখনও লাগবে রাতে-দিনে? যে কোনো সময় এফডিসিতে ডাকেন চলে আসবো। আপনি এখানে একটা অ্যাক্টিং ইনস্টিটিউশন খোলেন, সেখানে পার্টিসিপেট করতে বলেন করবো। যেখানে আমাদের কিছু শেখানো হয় না, পজিটিভ কিছু হয় না সেখানে সময় দিয়ে সময় নষ্ট। আরো মন খারাপ হবে। এফডিসিতে এক সময় সারাদিন পরে থাকতাম, কারণ তখন একটা সময় ছিল কাজ করার, সারাদিন শুটিং করেছি, পরিবারের মতো ছিলাম আমরা সবাই। এখন কাজ হচ্ছে না। এখন যেটা হচ্ছে এই সমিতি, ওই সমিতির পলিটিক্স। যে জিনিসটা বুঝি না সেখানে কেন যাবো?
আরেকটি ব্যাপার হলো আমাদের দর্শক ভালোবাসেন কেন? আমাদের কাজের জন্য। এখন যারা রাজনীতি করছেন তাদের কিন্তু মানুষ ভালো চোখে দেখছে না। সোশ্যাল মিডিয়ায় মানুষের রিঅ্যাকশন দেখলেই বুঝতে পারবেন।

রাহাত: তাদের আপনি বা আপনারা কোনো পরামর্শ দিয়েছেন কি?

সম্রাট: সেখানে অনেক সিনিয়র আছেন, অনেক জ্ঞানী-গুণী মানুষ আছেন, আমাদের মতো ক্ষুদ্র মানুষের পরামর্শ তারা নেবেন কেন? সবাই সবার জায়গায় ভালো থাকুক। আমার কথা হচ্ছে, যেখানে কাজ থাকবে, সেখানে কাজের প্রয়োজনে যখন ডাকবে যাবো। কাজ ছাড়া এই রাজনীতি- এগুলোর মধ্যে নেই। আব্বা এই শিক্ষা দেয়নি, আর আমরাও শিখিনি।

রাহাত: আপনাকে চলচ্চিত্রে একদমই দেখা যাচ্ছে- এর কারণ কী?

সম্রাট: ফিল্ম রিলিজ হয় কই? এত সিনেমার কাজ হচ্ছে কয়টা রিলিজ হয়? যেগুলো রিলিজ হয় সেগুলো রেজাল্ট আছে? ফিল্মে ক্যারিয়ার প্ল্যান করার। আমার মতে আমার যে বয়স হয়েছে, আমার ম্যাচুরিটি অনুযায়ী ক্যারেক্টারও পাই না। ওখানে আসলে অ্যাফোর্ড দিয়েও লাভ নেই। একটা হয় না- আমি পরিশ্রম করছি, অ্যাফোর্ড দিচ্ছি এটার আউটপুট আসবে, দর্শকদের কাছে যাবে, সেটাও হচ্ছে না। সিনেমা হল নেই, সিনেমা রিলিজ হচ্ছে না। যদি ৫০-৬০ হলে সিনেমা রিলিজ দিতে না পারি তা হলে লাভ কি? আমার কাছে সিনেমা হলো- হিরো এন্ট্রিতে তালি বাজবে, সিটি বাজবে, ডায়লগ অ্যাকশনে তালি বাজবে। দর্শক সিনেমা দেখছেন কি দেখছেন না তাও তো বুঝতেছি না।

রাহাত: বাপ্পারাজের নামের শেষে ‘রাজ’ ব্যবহার করা হয়েছে। আপনার নামের শেষে নেই…।

সম্রাট: এটা কেন করেননি আব্বা আমি জানি না। হয়তো আমার নাম সম্রাট তাই রাজ ব্যবহার করেননি। আমার অন্য ভাইয়ের নামের শেষেও রাজ নেই। এটা হয়েছে কি- ভাইয়াকে যখন নতুন সিনেমায় নেওয়া হয় তখন আব্বা তুমুল জনপ্রিয়। তার বড় ছেলেকে পর্দায় পরিচয় করিয়ে দিতেই হয়তো টাইটেলটা ভাইয়ার নামের সঙ্গে দিয়েছিলেন। পরে মানুষ এটা অ্যাকসেপ্ট করেছে। দেখেন এখন সবাই ভাইয়াকে ‘বাপ্পারাজ’ হিসেবেই চেনে।