হাসনাত রাব্বু, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি :

 

কুষ্টিয়ায় কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের আবির নামে এক শিক্ষার্থীকে প্রকাশ্যে খুর দিয়ে আঘাত করার অভিযোগ উঠেছে জেলা স্কুলের শিক্ষার্থীদের বিরুদ্ধে। এ সময় স্কুলে হামলা ও ভাঙচুর চালানো হয় বলে প্রত্যক্ষদর্শীরা জানিয়েছেন। সোমবার (১৩ জুন) দুপুরে এ ঘটনা ঘটে। আহত শিক্ষার্থী আবির বর্তমানে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। তার অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা। আবিরের বাড়ি জেলা স্কুলের সামনে মজমপুর এলাকায়। তার বাবার নাম মোহাম্মদ শাহজাদা।

কলকাকলি স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা জানান, পরীক্ষা শেষে ছেলে-মেয়েরা বাড়ি ফিরছিলো। এ সময় জেলা স্কুলের একদল শিক্ষার্থী লাঠি ও দেশীয় অস্ত্র নিয়ে স্কুলে হামলা চালায়। এসময় আবিরকে খুর দিয়ে ডান পায়ের রানে আঘাত করা হয়। শিক্ষকরা বাধা দিতে গেলে তাদের ওপরও চড়াও হয় বলে জানান প্রত্যক্ষদর্শীরা।

এ বিষয়ে কলকাকলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক জেবুননেসা সবুজ বলেন, জেলা স্কুলের ছেলেরা আমাদের স্কুলে হামলা করেছে। এসময় আমাদের এক ছাত্রকে খুর দিয়ে আঘাত করেছে তারা। স্কুলের দুটি ভবনের সব জানালা ভেঙে দিয়েছে তারা। এ বিষয়ে আমরা থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছি।

আবিরের বাবা শাহাজাদা বলেন আমার ছেলেতো নিরীহ। তাকে কেন মারা হলো। এ ঘটনায় আমি বিচার চাই।
পুলিশ জানায়, উভয় স্কুলের ছাত্রদের মধ্যে বেশ কিছুদিন ধরে বিবাদ চলে আসছিলো বলে জানা গেছে। যে কারনে এই হামলা চালানো হয়েছে বলে ধারনা করা হচ্ছে। তবে এই ঘটনায় যারা জড়িত তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। এ বিষয়ে এখনো কোনো মামলা হয়নি।

এ বিষয়ে কুষ্টিয়া জেলা স্কুলের প্রধান শিক্ষক এফতে খাইরুল ইসলাম বলেন,‘ সকালে ছেলেরা উত্তেজিত হয়। আমি তাদের ঠাণ্ডা করার চেষ্টা করি। তারা আমার কথা না শুনে কলকাকলী স্কুলে গিয়ে এক ছাত্রকে খুর মেরেছে। স্কুলে ভাঙচুর চালিয়েছে। এটা লজ্জ্বাজনক। জড়িতদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here