বি এম রাকিব হাসান, খুলনা ব্যুরো: আগামী ৩ মার্চ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা খুলনা সফরে আসছেন। প্রধানমন্ত্রীর হাত দিয়ে প্রকল্প উদ্বোধনের জন্য ১৬টি সংস্থা এ পর্যন্ত সম্ভাব্য ৯৩টি প্রকল্পের তালিকা প্রস্তুত করা হয়েছে। ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ প্রকল্পগুলো যাচাই-বাছাইয়ের পর উদ্বোধনযোগ্য তালিকাগুলোর নাম চূড়ান্ত হলে গণপূর্ত বিভাগ নাম ফলক তৈরি করবে। খুলনা জেলা প্রশাসন বিষয়টি সমন্বয় করছে।
এদিকে, প্রধানমন্ত্রীর আগমন উপলক্ষে মহানগরীসহ সর্বত্র সাজ সাজ রব পড়েছে। সব সংস্থার প্রত্যাশা প্রধানমন্ত্রীর হাত থেকে তাদের স্ব স্ব প্রকল্প উদ্বোধন করা।
বিভিন্ন সংস্থার পাঠানো প্রকল্পের মধ্যে উল্লেখযোগ্য হচ্ছে খুলনা ওয়াসার রূপসা নদীর তলদেশ দিয়ে পাইপলাইন নির্মাণের কাজ, ওয়াসা ভবন, জেলা পরিষদের ডাকবাংলা মোড়ে ১০তলা ভবন নির্মাণ, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ১ হাজার আসন বিশিষ্ট মিলনায়তন, জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের ফুলতলা উপজেলায় উচ্চ জলাধার ও পাইপলাইনের মাধ্যমে সুপেয় পানি সরবরাহ, গণপূর্ত বিভাগের খুলনা আলিয়া মাদ্রাসা মডেল মসজিদ, খুলনা টেক্সটাইল ইন্সটিটিউট, জেলা কারাগার, জেলা পুলিশ লাইন, পাইকগাছা সাব রেজিস্ট্রি অফিস, খুলনা জেনারেল হাসপাতাল ২৫০ শয্যায় উন্নীতকরণ, খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল সম্প্রসারণ, শহীদ শেখ আবু নাসের বিশেষায়িত হাসপাতালের আবাসিক এলাকা নির্মাণ, চীফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালত, তেরখাদা থানা ভবন, সড়ক ও জনপথ বিভাগের বটিয়াঘাটা-নলিয়ান সড়ক, শিক্ষা প্রকৌশল অধিদপ্তরের পাইকগাছা কৃষি কলেজ, লায়ন্স স্কুল, চালনা মোবারক কলেজ, আইডিয়াল কলেজ, শহীদ সোহরাওয়ার্দী কলেজ, ইসলামিয়া ডিগ্রি কলেজের একাডেমিক ভবন, কুয়েটের শহীদ মিনার, খুলনা জেলা স্টেডিয়াম, খুলনা রেলওয়ে স্টেশন, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান হলের ঊর্ধ্বমুখি সম্প্রসারণ, বঙ্গমাতা ফজিলাতুন্নেছা, জেলা প্রশাসনের শেখ রাসেল ইকো পার্ক, পানি উন্নয়ন বোর্ডের ভদ্রা ও শালতা নদীর পুনঃখনন ইত্যাদি।
জেলা প্রশাসনের সূত্র জানান, জমা পড়া প্রকল্পগুলো ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষ যাচাই-বাছাইয়ের পর উদ্বোধনযোগ্য তালিকাগুলোর নাম চূড়ান্ত করা হবে। এরপর গণপূর্ত বিভাগ সংশ্লিষ্ট প্রকল্পগুলোর নাম ফলক তৈরি করবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here