এসএম রাজ্জাক পিন্টু,ঝালকাঠিঃ ঝালকাঠির নলছিটি থানায় ৬ষ্ঠ শ্রেণীর ছাত্রী সুলতানা আক্তার পুতুলকে ধর্ষনের চেষ্ঠার অভিযোগে মামলা রুজু হয়েছে। ঘটনাটি ২২ ফেব্রুয়ারী দুপুর দেড়টার সময় চন্দ্রকান্দা (মালোহার) গ্রামে একটি মুরগী ফার্মে ঘটে। এজাহার সুত্রে জানা গেছে, সুলতানা আক্তার পুতুল চন্দ্র কান্দা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৬ষ্ঠ শ্রেনীর ছাত্রী। বিবাদী নাসির সিকদার পার্শ্ববর্তী বাড়ীর লোক। বিবাদী নাসির সিকদার ইতিপূর্বেও তার মেয়েকে অসৎ উদ্দেশ্যে তাহার কাছে ডাকত। ঘটনার দিন পুতুল নলছিটি থানাধীণ মালোয়ার সাকিনস্থ জনৈক মোঃ মজিবর মাঝির নিকট হইতে ভাড়ায় নেওয়া আমাদের মুরগির ফার্মে খাবার দেওয়ার জন্য খাবার ঘরের ভিতর হইতে খাবার বাহির করিতে গেলে বিবাদী নাসির সিকদার পূর্ব থেকেই ওৎপেতে থাকিয়া অসৎ উদ্দেশ্যে উক্ত মুরগির ফার্মের খাবারের ঘরে প্রবেশ করিয়াই উক্ত ঘরটির দরজা বন্ধ করিয়া দেয়। তখন সুলতানা আক্তার পুতুল দরজা বন্ধ করিয়া দেওয়া দেখিতে পাইয়া ডাকচিৎকার দিতে থাকিলে বিবাদী নাসির সিকদার মেয়েটির মুখ চাপিয়া ধরিয়া উক্ত রুমের মেঝেতে শোয়াইয়া যৌন চরিতার্থ কামনার লক্ষ্যে পড়নের জামা ও পাজামা খুলিয়া ফেলিয়া জোরপূর্বক স্পর্শকাতর স্থানে হাত দেয় এবং ধর্ষনের চেষ্টা করে। ঐ সময় উক্ত ঘরের পার্শ্ব হইতে সাক্ষী সোহাগ গাজী হাটিয়া যাওয়ার সময় মেয়েটির ডাকচিৎকার শুনিয়া উক্ত খাবারের ঘরের দরজা ধাক্কা দিয়া খুলিয়া ফেলিলে বিবাদী নাসির সিকদার ও মেয়েটিকে আপত্তিকর অবস্থায় দেখিতে পায়। বিবাদী নাসির সিকদার সাক্ষী সোহাগ গাজীকে দেখিতে পাইয়া দ্রুত ঘটনাস্থল হইতে পালাইয়া যায়। এ ব্যাপারে নলছিটি থানায় নারী নির্যাতন আইনে মামলা রুজু হয়েছে। বর্তমানে বিবাদী পলাতক রয়েছে। বিবাদীর শ্যালক সরোয়ার জানান, তার ভগ্নিপতি বয়োবৃদ্ধ ও হাজী মানুষ তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার মানসে এই মামলা বলে অভিহিত করেন।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here