গাজীপুর প্রতিনিধিঃ

 

নগরবাসীর অভিযোগ, অপরিকল্পিত ড্রেনেজ ব্যবস্থা ও চলমান বিআরটি প্রকল্পের কাজের কারণে সড়কে খানাখন্দক সৃষ্টি হয়েছে। এতে বৃষ্টির পানি নেমে না যাওয়ায় এমন পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিনে দেখা যায়, টঙ্গীর মিলগেট, স্টেশন রোড, ছয়দানা, ভোগড়া বাইপাস, চান্দনা চৌরাস্তা এলাকার সড়কে আগে থেকে থাকা খানাখন্দকে হাটু পর্যন্ত পানি জমে রয়েছে। এতে পরিবহনে উঠতে ও নামতে ভোগান্তি পোহাতে হচ্ছে সাধারণ যাত্রীদের।

টানা বৃষ্টিতে গাজীপুরস্থ ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কে বৃষ্টির পানি জমে থাকায় মঙ্গলবার (১৩ সেপ্টেম্বর) সকাল থেকেই প্রতিটি গাড়িকে ধীরগতিতে চলাচল করতে দেখা গেছে। এছাড়া গন্তব্যে পৌঁছাতে ভোগান্তিতে পড়তে হয় সাধারণ মানুষদের।

স্থানীয় বাসিন্দা আসিফুর রহমান বলেন, ‘ঢাকা-ময়মনসিংহ মহাসড়কের দুইপাশে কোনো ড্রেন নেই। এজন্য অতিসহজেই রাস্তায় পানি জমে যায়। রাস্তা তৈরীর আগে পরিকল্পিত ড্রেন নির্মাণ প্রয়োজন ছিল।’

ভোগরা এলাকার বাসিন্দা আব্দুল সাত্তার বলেন, ‘বিআরটি প্রকল্পের দীর্ঘমেয়াদী কাজের জন্য এই রাস্তার দূরাবস্থা। সামান্য বৃষ্টিতে অফিস ও স্কুলগামী মানুষদের কষ্ট পোহাতে হয়। এর সব দায়ভার কর্তৃপক্ষকে নিতে হবে।’

গাজীপুর মেট্রোপলিটন পুলিশের সহকারী কমিশনার (মিডিয়া) আবু সায়েম নয়ন বলেন, ‘গতরাত থেকে টানা বৃষ্টির কারণে মিলগেইট এলাকায় খানাখন্দযুক্ত উভয়মুখী রাস্তায় বৃষ্টির পানি জমেছে। যার কারণে এক লেনে গাড়ি চলাচল করছে। এতে যানবাহনের ধীর গতি রয়েছে। অতিবৃষ্টি এবং অবকাঠামোগত দূর্বলতার কারণে মহাসড়কটির উভয়মুখী রাস্তা ব্যবহারকারীদের সাময়িক অসুবিধা হচ্ছে।’

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here