তালায় বিউটিশিয়ান গৃহবধু অগ্নিদগ্ধ

আব্দুস সালাম, তালা (সাতক্ষীরা) প্রতিনিধিঃ

 

তালায় ফারহানা আক্তার রত্না (২৬) নামের এক বিউটিশিয়ান গৃহবধুকে সাবেক স্বামী কর্তৃক গায়ে পেট্রোল ঢেলে অগ্নিদগ্ধ’র ঘটনা ঘটানো হয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। ঘটনাটি ঘটেছে, তালা সদরের মোবারকপুর ব্রীজ সংলগ্ন সাধু পাড়ায় গত ২১ ফেব্রুয়ারী রাত দেড়টার দিকে । অগ্নিদগ্ধ গৃহবধু ফারহানা বর্তমানে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে বার্ণ ইউনিটের আইসিইউ তে ভর্তি রয়েছে।

অভিযোগ সুত্রে জানাযায়, তালার সদরের মোবারকপুর গ্রামের অসিম সাধুর বাড়ীর ভাড়াটিয়া বিউটিশিয়ান ফারহানা আক্তার রত্না কে ২১ ফেব্রুয়ারী রাতে সাবেক স্বামী মিজনুর রহমান সহ ৩/৪ জন কৌশলে বাসায় প্রবেশ করে গায়ে পেট্রোল দিয়ে আগুন ধরিয়ে দিয়ে পালিয়ে যায়। এতে তার শরীরের ৭৫ শতাংশ ঝলসে গেছে। তাকে উদ্ধার করে প্রথমে তালা হাসপাতালে, পরে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়া হয়। তার অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় গতকালই তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের বার্ণ ইউনিটে ভর্তি করা হয়েছে।

জানাযায়, বিগত ১০/১১ বছর পূর্বে ডুমুরিয়া উপজেলার মালতিয়া গ্রামের সোহরাব হোসেন সেখ’র পুত্র মিজানুর রহমানের সহিত ইসলামী শরীয়াহ মেতাবেক পাইকগাছা উপজেলার মালত গ্রামের রোকন সরদার কণ্যা ফারহানার বিবাহ হয়। তাদের ঘরে সাজিদ (১০) নামের একটি পুত্র সন্তান জন্ম নেয়। কিন্তু যৌতুকের দাবীর কারণে তাদের বিবাহ বিচ্ছেদ ঘটে। এ ব্যাপারে আদালতে মামলা বিচারাধীন রয়েছে, বলেও জানান, অগ্নিদগ্ধ ফারহানা আক্তারের পিতা রোকন সরদার। এরপর কুষ্টিয়া জেলার দৌলতপুর উপজেলার খাসমধুরাপুর গ্রামে আব্দুস সাত্তারের পুত্র হাসিবুর রহমানের সহিত দ্বিতীয় বিবাহ করে সংসার করাকালীন সাবেক স্বামী তাকে বিভিন্ন হুমকী দিয়ে আসছিল। তারই সুত্র ধরে এ অগ্নিদগ্ধের ঘটনা ঘটেছে, বলে দাবী করেন রোকন সরদার। এ বিষয়ে তালা থানা অফিসার ইনচার্জ (ওসি) মেহেদী রাসেল জানান, অভিযোগ প্রেক্ষিতে পুলিশ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছে, উত্তরাত্তর তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা নেওয়া হবে।