ডেস্ক রিপোর্টঃ রাজধানীর তুরাগে পৃথক স্থানে সংঘর্ষের খবর পাওয়া গেছে। প্রতিপক্ষের হামলায় আহত ৪। অন্যদিকে তুরাগের খাল পাড় এলাকায় (সিআইডি) পরিচয়ে অটোরিক্সা ছিনতাই কালে একজনকে ও মারামারির ঘটনায় ১ জন সহ দুই জনকে আটক করেছে পুলিশ।
গতকাল সকাল ১১ টার দিকে তুরাগের খালপার চেকপোষ্ট এলাকায় গোয়েন্দা পুলিশ পরিচয়ে অটোরিক্সা ছিনতাইয়ের সময় মো. শাহ জালাল (৪০) নামে এক ভূয়া সিআইডি কে আটক করে জনতা, পরে তুরাগের চেকপোষ্টে নিয়োজিত পুলিশের কাছে সপর্দ করে। এই বিষয়ে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন চেকপোষ্টে দায়ীত্বরত অফিসার। এদিকে একি সময়ে তুরাগের ১৫ নং সেক্টরে উত্তরা পাসপোর্ট অফিসের সামনে চোরাই পেট্রোল ব্যাবসাইকে কেন্দ্র করে মো. শাহ আলম (৩৮) ও বাপ্পি (৩০) নামের দুজনকে রক্তাক্ত জখম করে আর টিভির নামধারী সাংবাদিক মো. আব্দুল মান্নান (৩৭) মো. মিরাজ (৩০) সহ অজ্ঞাত ১৫/১৬ জন। ঘটনাস্থল থেকে আর টিভির নামধারী সাংবাদিক মো. আব্দুল মান্নানকে সাধারন জনতা গণ-ধোলাই দিয়ে পুলিশে সোপর্দ করেন এবং ঘটনাস্থল থেকে মিরাজ সহ অন্যান্যরা পালিয়ে যায়। এই বিষয়ে থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাগেছে। আহত শাহ আলমের শারিরিক অবস্থার অবনতি হওয়ায় তাকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালের দায়িত্বরত ডাক্তার। এই বিষয়ে আহত বাপ্পি বাদী হয়ে তুরাগ থানায় মামলার প্রস্তুতি নিচ্ছেন বলে জানাগেছে। ঘটনার সময় উপস্থিত জনতার সামনে আব্দুল মান্নানকে আটক করে তুরাগ থানা পুলিশ। অপরদিকে একি সময়ে তুরাগের তারারটেক মসজিদ এলাকায় জমি সংক্রান্ত বিরোধের জেরে শক্ত বাঁশ দিয়ে পিটিয়ে মো. নাজিম উদ্দিন (৪৮) ও তার ছেলে মো. বাবুল হোসেন (২৬) কে রক্তাক্ত জখম করে প্রতিবেশী মো. হারুন (৫০) বিল্লাল (৪২) ও নাসির (৩৫)। সর্ব সাং তারার টেক, তুরাগ ঢাকা এলাকার স্থায়ী বাসিন্ধা। পরে আহত বাবা ও ছেলেকে উদ্ধার করে প্রতিবেশীরা প্রথমে টঙ্গী সরকারি হাসপাতালে নিলে ছেলে বাবুলের অবস্থা আশঙ্কা জনক হওয়ায় উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেলে রেফার্ড করে। পরে স্বজনরা তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য উত্তরা আধুনিক মেডিকেলে ভর্তি করেন। এই বিষয়েও তুরাগ থানায় মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে জানাগেছে।
পৃথক মারামারির ঘটনার বিষয়ে জানতে চাইলে তুরাগ থানার (ওসি) অপারেশন মো. দুলাল হোসেন দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশকে বলেন, এখনো আমরা লিখিত কোন অভিযোগ পাইনি। কেউ অভিযোগ করলে অবশ্যই আইনগত ব্যাবস্থা নেয়া হবে। তবে আহত শাহ আলমের অবস্থা আশঙ্কা জনক। তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে রেফার্ড করা হয়েছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here