রাবি করেসপন্ডেন্ট : রাজশাহী বিশ্ববিদ্যালয়ের গণযোগাযোগ ও সাংবাদিকতা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক দুলাল চন্দ্র বিশ^াস ও আইন বিভাগের অধ্যাপক ড. এম আনিসুর রহমানরে বিরুদ্ধে পিএইচডি গবেষণা জালিয়াতির (থিসিস) অভিযোগ নির্দোষ প্রমাণিত হয়েছে। সোমবার সন্ধ্যায় ৪৭৬তম সিন্ডিকেটে তাদেরকে নির্দোষ ঘোষণা করা হয়। এ তথ্য নিশ্চিত করেছেন সিন্ডিকেট সদস্য মামুন আব্দুল কাইয়ুম।
জানা গেছে, আইন বিভাগের অধ্যাপক আনিসুর রহমানকে ২০০৭ সালে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়। তার গবেষণার শিরোনাম ছিল ‘বাংলাদেশের নির্বাচনে নির্বাচন কমিশনারের ভূমিকা’। অন্যদিকে ড. দুলাল চন্দ্র বিশ্বাসের গবেষণার শিরোনাম ছিল ‘ কমিউনিটি রেডিও ও সামাজিক পরিবর্তন’। তদন্তে নির্দোষ প্রমাণিত হওয়ায় পরবর্তীতে পিএইচডি ডিগ্রি প্রদান করা হয়।
তদন্ত শেষে বিশ^বিদ্যালয়ের রেজিস্ট্রারের কাছে গত সোমবার সকালে ৬ পৃষ্ঠার তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হয় বলে জানান অধ্যাপক আব্দুল লতিফ। সিন্ডিকেটে বিষয়টি ওঠার পর তাদেরকে নির্দোষ ঘোষণা করা হয়। তদন্ত কমিটির অন্য দুজন সদস্য ছিলেন- সিন্ডিকেট সদস্য ড. রুস্তম উদ্দিন আহমেদ এবং ফলিত পদার্থবিজ্ঞান ও ইলেকট্রনিক ইঞ্জিনিয়ারিং বিভাগের অধ্যাপক আবু বকর মো. ইসমাইল।
এর আগে তাদের গবেষণা জালিয়াতি অভিযোগের পর ৪৭২তম সিন্ডিকেটে বিশ্ববিদ্যালয় চিকিৎসা মনোবিজ্ঞানের সভাপতি অধ্যাপক আব্দুল লতিফকে প্রধান করে তিন সদস্য বিশিষ্ট্য একটি কমিটি গঠন করেন উপাচার্য অধ্যাপক আব্দুস সোবহান। তবে অভিযোগ ওঠা দুই শিক্ষক নিজেদের গবেষণাপত্রে কোনো জালিয়াতি নেই বলে চ্যালেঞ্জ করেছিলেন। #

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here