শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ১২:৩৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নেতাকর্মীরা প্রস্তুত থাকুন, কেউ যেনো মানুষের ক্ষ‌তি কর‌তে না পা‌রে : প্রধানমন্ত্রী গাজীপুরে তুলার গোডাউনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৮ ইউনিট একই ইউনিয়নে ৭ টি অবৈধ ইট ভাটা গুঁড়িয়ে দিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর টাঙ্গাইলে জিমে’র আড়ালে মাদক ব্যবসা; ৩০ লাখ টাকার হিরোইনসহ নারী আটক তোফাজ্জল হোসেন মিয়াকে প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব নিয়োগ প্রদান করায় ভাণ্ডারিয়ায় দোয়া ও মোনাজাত ১ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে রৌমারীতে লজিক প্রকল্পের কাজে অনিয়মের অভিযোগ সাতক্ষীরায় বঙ্গবন্ধুর মুর‍্যালে পুস্পস্তবক অর্পণ করলেন খুলনা রেঞ্জের নবাগত ডিআইজি মইনুল হক কুমিল্লায় তৈরি হলো দেশের সর্বাধুনিক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবট টঙ্গীতে এশিয়ান ও আনন্দ টিভির সাংবাদিকের উপর হামলা ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

পুলিশ-সন্ত্রাসী ভাই ভাই, একসাথে মামলা খাই, সাধারন জনগন কোথায় যায়

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ৩০ জানুয়ারি, ২০১৮
  • ২ Time View

মোঃ সেকান্দর আলী আকন্দঃ ১৬ জানুয়ারী ডিএমপি ঢাকা দক্ষিণখান থানার এসআই আসাদ এএসআই মলিন ও এসআই আল আমিনসহ ২ জন সন্ত্রাসী মোঃ আবু তাহের (৫০) ও মোঃ সোহেল (৪০) এর বিরুদ্ধে সিএমএম কোর্টে মামলা নং-১৮/১৮, ধারাঃ ১৪৩/৪৪৮/৩২৩/৩২৬/ ৩৮০/৩০৭/৫০৬/৩৫৪/ ১০৯ দঃবিঃ আদালতে মামলা দাখিল হয়। উক্ত মামলায় আদালত উত্তর বিভাগের ডিসি’র মাধ্যমে এ.সি’র দ্বারা তদন্ত সাপেক্ষে ১১/৩/২০১৮ইং তারিখে প্রতিবেদন দাখিলের জন্য নির্দেশ দেন। গত ০৮/০১/২০১৮ইং তারিখে পুলিশ সদর দপ্তরে পুলিশ সপ্তাহ পালন হচ্ছিল ঠিক সেই সময় পুলিশের কিছু অসৎ কর্মকর্তার দ্বারা বশির মৃধার পরিবার নির্যাতিত হন। প্রধানমন্ত্রী পুলিশের জবাবদিহিতার উপর জোর দিয়েছেন। পুলিশের উপর সাধারণ মানুষের আস্থা যেন সবসময় থাকে সেদিকের দৃষ্টি রাখার কথা বলেছেন। তিনি আরো বলেন, পুলিশকে আমি সব সময় আইনের রক্ষকের ভূমিকায় দেখতে চাই। দেশের আইন, সততা ও নৈতিক মূল্যবোধই হবে পেশাগত দায়িত্ব পালনের পথ নির্দেশক। দক্ষিণখান থানাধীন, ফায়দাবাদ মরঘাট এলাকায় পারভিন আক্তার তিন্নি, পিতা-বশির মৃধা গত ১০/০১/২০১৮ইং তারিখে পুলিশ কমিশনারের বরাবর একটি অভিযোগ দাখিল করেন। তাতে উল্লেখ করেন যে পুলিশ নিরাপত্তা দিতে ব্যর্থ হয়েছেন তার পরিবারকে। পারভিন আক্তার তিন্নি বলেন আমার বাবা একজন দিনমজুর, আমি একটি ছোট চাকুরী করি আমার পরিবার আর্থিক সমস্যার কারণে আমি বেশি পড়াশোনা করতে পারিনি। আমাদের সংসার খুবই কষ্টে দিন কাটে। আনুমানিক ০৬ মাস যাবত আমার পাশ^বর্তী বাড়ীওয়ালা আবু তাহের ও তার ভাড়া করে আনা দক্ষিণখান থানার এস. আই মিলন এবং তার পরিচালিত লোক আমাদের পরিবারকে অত্যাচার করে আসছে। এক পর্যায়ে আমাদের বাড়ী ও দোকানপাট ভাংচুর করে। তারপরও সে ক্ষান্ত। গত ০৮/০১/২০১৮ইং তারিখে দুপুর ২:০০ ঘটিকার সময় দক্ষিণখান থানার পুলিশ এ.এস.আই মিলন, এস.আই আসাদ, ও এ.এস.আই আল আমিন ও অন্যান্য পুলিশ উপস্থিত থেকে আমার দুলাভাই শিপন ও আমার ছোট ভাই হৃদয়কে মারধর করতে থাকে। আমি জিজ্ঞাসা করতে গেলে আবু তাহের ও তার ভাই হোসেন আমাকে পুলিশের সামনেই শারীরিক নির্যাতন করে। এর আগে একই দিনে সকাল বেলা আবু তাহের ও তার পরিবার আমার বাবাকে মেরে ৪টি দাঁত ভেঙ্গে ফেলে যার কারণে আমার বাবাকে নিয়ে আমার মা মুমুর্ষ অবস্থায় টঙ্গী হাসপাতালে নিয়ে চলে যায়। আমি আমার দুলাভাই ও আমার ছোট ভাই বাড়ীতে একা ছিলাম। আমরা ঘটনার পর দক্ষিণখান থানায় অভিযোগ করতে গেলে আমার কাছ থেকে কোন অভিযোগ না নিয়ে দক্ষিণখান থানায় একটি সাধারণ ডায়েরী করে বের করে দেয় যাহার জি.ডি নং-৪৫৬, তারিখঃ ০৮/০১/২০১৮ইং। উক্ত ঘটনার পর থেকে আমরা চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছি। পরবর্তীতে তারা পুলিশের সোর্স এবং অসৎ পুলিশের অত্যাচারে বাধ্য হয়ে মামলা করতে বাধ্য হন। সরজমিনে গিয়ে দেখা যায় যে, পানি উন্নয়ন বোর্ড ও আবু তাহের এর ২ জনের যাঁতাকলে পিষে যাচ্ছে বশির মৃধা। পানি উন্নয়ন বোর্ড সৌন্দর্য্য বর্ধনের জন্য তুরাগ নদীর তীর ঘেষে দক্ষিণ দিক দিয়ে একটি রাস্তা নির্মাণ করেছে তার পাশেই ০১ শতাংশ জমি (যার সি এস নং-৪৪, আর এস নং-৭৭, মহানগর সি এস নং-১৫৩৫৪) লম্বা করে রয়ে গেছে বশির মৃধার জমি আবু তাহের তার জমির পূর্ব দিক দিয়ে ছেড়ে বাড়ী করলেও বশির মৃধার বাড়ীর দিক দিয়ে ০১ ইঞ্চিও ছাড়েনি বরং বশির মৃধার জমির উপরে জানালার সানসেট করে ১ ফিট পরিমান দখলের চেষ্টা করছে। ঘটনাস্থলে দেখা মিলে বাদী আবু তাহেরের সাথে। তিনি জানান যে, আমি ৬ মাস ধরে এই নতুন বাড়ীটি ক্রয় করে বসবাস করে আসছি। আমার প্রতিবেশি বশির মৃধা আমার সাথে দীর্ঘ দিন ধরে জমি সংক্রান্ত ঝামেলা চলছে তিনি অক্কপটে স্বীকার করেন। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান যে, এই বাড়ীটি রাস্তা না থাকায় বাড়ীর মালিক পর পর ৩ বার মালিকানা পরিবর্তন হয়ে বাড়ীটি আবু তাহের ক্রয় করে গত ৬ মাস ধরে বসবাস করে আসছে। অপরদিকে বশির মৃধা দীর্ঘ ৩০ বছর ধরে নিজ জায়গায় বসবাস করে আসছে। আমাদের সাথে কখনো কোন ব্যাপারে বশির মৃধার সাথে ঝগড়া-ঝাটি হয়নি। মসজিদের ইমাম আসাদ জানান যে, বশির মৃধা একজন দিনমজুর সে অনেক কষ্ট করে এই জায়গাটি ক্রয় করে বসবাস করে আসছে। আর দক্ষিণ দিকে বশির মৃধার সীমানা ঘেষে আবু তাহের তার জানালা করে রেখেছে যার কারণে কিছু দিন পর পর তাদের দুজনের মাঝে ঝগড়া বিবাদ লেগেই থাকে। দক্ষিণখান থানার এ.এস.আই আল আমিন ও এস.আই আসাদের সাথে যোগাযোগ করলে তারা জানান যে, উক্ত বিষয়টি তারা অবগত রয়েছে। তবে নির্যাতনের কথাটি স্বীকার করেননি। মুঠোফোনে এ.এস.আই মিলনকে পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines