Amar Praner Bangladesh

প্রতারণার ফাঁদে ফেলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র

 

 

মোর্শেদ আলী মারুফ :

 

সাভার বেদে পাড়া নামক স্থান থেকে বিভিন্ন ইউটিউব চ্যানেলে বিয়ের প্রলোভন দেখিয়ে প্রবাসীদের ফাঁদে ফেলে লক্ষ লক্ষ টাকা হাতিয়ে নিচ্ছে একটি চক্র, খাদিজা নামে এক মহিলা, ইউটিউব চ্যানেল এস কে বাংলা টিভির মাধ্যমে প্রচার করে সে অসহায় ও দরিদ্র, তার স্বামী আরেকটি বিয়ে করেছে বলে তাকে ডিভোর্স দেওয়ার কথা স্বীকার করে, এই প্রতিবেদনটি ইতালি প্রবাসী আব্দুর রাজ্জাকের নজরে পড়ে তখন সে মানবিক দৃষ্টিতে তাকে ফোন দেয় এবং জিজ্ঞেস করে ,যদি ঘটনা সত্যি হয় তাহলে তাকে বিয়ে করার আশ্বাস দেন,তাদের মধ্যে একটা সু-সম্পর্ক গড়ে উঠে, সম্পর্কের জের ধরে বিভিন্ন সময় খাদিজা টাকার কথা বলে আব্দুর রাজ্জাক তাকে টাকা দিতে রাজি হয় প্রথম-২০ হাজার পাঠাইয়া দেয় পর্যায়ক্রমে-৫০ হাজার-১-২ লক্ষ টাকা দিয়ে দেয়, খাদিজা সর্বমোট-৪,৮০,০০০(চার লক্ষ আশি হাজার টাকা) নেওয়ার পরে রাজ্জাকের সাথে বিভিন্ন তাল-বাহানা শুরু করে দেয়।

তারপরে রাজ্জাকের সন্দেহ শুরু হয়ে যায় তখন রাজ্জাক তার ভাগনি কে খাদিজার খোঁজ নিতে সাভারে পাঠিয়ে দেয়, পোড়াবাড়িতে উপস্থিত হয়ে যখন খোঁজখবর নেওয়া শুরু করে তখন খাদিজা রাজ্জাকের ভাগনির সামনে আসতে বিলম্বানা শুরু করে, আসলে আসবে বা কি করে খাদিজার আরেক সংসার ও বাচ্চা, রানিং সংসার থাকতে কি কেউ বিয়ে করে।

পরবর্তীতে রাজ্জাক গণমাধ্যম কর্মীদের কাছে সহযোগিতা চেয়ে বলেন আমি তাকে প্রায়-৫ লক্ষ টাকা দিছি প্রয়োজনে আরো টাকা দিবো।

রাজ্জাকের কথার উপর ভিত্তি করে একটি ক্রাইম অনুসন্ধান টিম তথ্য সংগ্রহ করার লক্ষ্যে বেদে পল্লীতে প্রবেশ করে এবং সেখানে গিয়ে দেখা যায় ততক্ষণে খাদিজা গা ডাকা দেয়।

তথ্য সংগ্রহ কালে স্বাক্ষাৎকারে সাভার পৌরসভার-১ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর, রমজান আলী বলেন আমরা বিব্রতকর অবস্থায় আছি এ-সব অপরাধ যে-কোনো মূল্যে নির্মূল করতে হবে, কাউন্সিলর আরো বলেন কিছু ইউটিউবার আমাদের এলাকায় ঢুকে ভিডিও করে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে ছেড়ে দিয়ে নিজেদের ফায়দা হাসিলের চেষ্টা করছে,আমি সকল সাংবাদিক ও পুলিশ প্রশাসনের দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলছি এধরনের অপরাধ দমন করতে চাইলে সবাইকে একসাথে কাজ করতে হবে।