বগুড়ার শেরপুরে স্বেচ্ছাশ্রম দিয়ে সেচ্ছাসেবকরা নির্মাণ করলেন বাঁশের সাঁকো যাতায়াতের সুবিধা হলো ২০ গ্রামের মানুষের

প্রকাশ : রবিবার, মে ১২, ২০১৯ অপরাহ্ণ ৯:৪৮

শেরপুর(বগুড়া)প্রতিনিধি :

 

বগুড়া শেরপুরে শাহবন্দেগী ও খানপুর ইউনিয়নের প্রায় ২০ গ্রামের মানুষের পারাপারের জন্য করতোয়া নদীর উপর নির্মিত হল তালেব ঘাটের বাঁশের সাঁকো। স্থানীয় সংসদ সদস্য মো: হাবিবর রহমানের আর্থিক অনুদান ও স্থানীয় বাসিন্দাদের স্বেচ্ছাশ্রমে এই বাঁশের সাঁকো নির্মাণ করা হয়েছে।

 

শনিবার ধড়মোকাম হঠাৎপাড়া তালেব ঘাটে নির্মিত বাঁশের সাঁকো পরিদর্শন করেন সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ হাবিবর রহমান। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, শেরপুর উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব আম্বিয়া, ভেটেরিনারি সার্জন ডা. মোঃ রায়হান, আওয়ামীলীগ নেতা আবু তালেব আকন্দ, মনিরুজ্জামান জিন্নাহ, শামীম হোসেন, আব্দুল হান্নান, আব্দুল মান্নান, আসাদুল, ফজলুল হক প্রমুখ। সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ¦ হাবিবর রহমানের আর্থিক অনুদান ও এলাকাবাসীর স্বেচ্ছশ্রমে নির্মিত ১০০ ফুট দৈর্ঘ্যরে বাঁশের সাঁকোটি উপজেলার ধড়মোকাম হঠাৎপাড়া তালেব ঘাট ও খানপুর ইউনিয়নের গোপালপুর গ্রামের জনসাধারনের যাতায়াত সহজ করবে। এ ছাড়া এই বাঁশের সাঁকো দিয়ে শেরুয়া বটতলা, ধড়মোকাম, দহপাড়া, গোপালপুর, ভদ্রপাড়া, খাগা, দড়িখাগা, ছাতিয়ানিসহ প্রায় ২০টি গ্রামের মানুষ, স্কুল-কলেজের শিক্ষার্থী প্রতিদিন যাতায়াত করতে পারবে।

 

শিক্ষাথী রুবেল বলেন, আমরা নদীপার হতাম নৌকা দিয়ে এখন বাঁশের সাকো হওয়ায় আমাদের আসা-যাওয়া একটু সুবিধা হয়েছে।
কৃষক আব্দুল ওয়াহেদ বলেন, শেরুয়া বটতলা একটি গুরুত্বপূর্ণ এলাকা। এ অঞ্চলের গুরুত্বপূর্ণ হাট বাজার ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রয়েছে। করতোয়া নদীর উপর বাঁশের সাঁকো তৈরী হওয়ায় যাতায়াত ব্যবস্থা সহজ হবে।

 

খানপুর ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক আহসান হাবীব আম্বীয়া জানান, খানপুর ইউনিয়নের প্রায় ১০ গ্রামের মানুষ অনেক পথ ঘুরে উপজেলা সদর ও শেরুয়া বটতলায় আসতো এই বাঁশের সাঁকো নির্মাণ হওয়ায় এই এলাকার মানুষ সহজেই উপজেলঅ সদরে যেতে পারবে।

 

সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মো: হাবিবর রহমান বাঁশের সাকোটি পরিদর্শনের সময় বলেন,ভবিষ্যতে এখানে একটি ব্রীজ নির্মাণের জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেওয়া হবে।