‘মামলাবাজ মোতাহারকে মামলা প্রত্যাহার করে নিঃশর্ত ক্ষমা চাওয়ার দাবি’

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ বাংলাদেশ প্রতিদিন সম্পাদক নঈম নিজাম ও সিনিয়র রিপোর্টার সাঈদুর রহমান রিমনসহ চার জনের নামে লালমনিরহাটে দায়ের করা মামলা অবিলম্বে প্রত্যাহারপূর্বক এমপি মোতাহারকে নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার দাবি জানানো হয়েছে। গতকাল দুপুর ১২ টায় উত্তরায় আয়োজিত এক মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশে বক্তারা এ দাবি জানান। দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার উদ্যোগে বৃহত্তর উত্তরা সাংবাদিক সমাজের সহযোগিতায় আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিনিয়র রিপোর্টার সাঈদুর রহমান রিমন। বক্তব্য রাখেন উত্তরা সেন্ট্রাল প্রেসক্লাবের সভাপতি জুয়েল আনান্দ, উত্তরাবাণী’র সম্পাদক আসাদ জং, আওয়ামী প্রচারলীগের কেন্দ্রীয় সেক্রেটারী মাহফুজ, গুলশান থানা কৃষকলীগের সভাপতি এসএম বাবু হীরা, প্রতিদিন খবর পত্রিকার সম্পাদক সরকার জামাল প্রমুখ।
বক্তারা বলেন, দেশবরেণ্য সম্পাদক, সাহসী বীর, অন্যায়ের প্রতিবাদী কন্ঠস্বর নঈম নিজামের বিরুদ্ধে একের পর এক মামলা হয়রানি চালিয়ে সাংবাদিকদের দমিয়ে রাখার চক্রান্ত কোনদিন সফল হবে না। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু কণ্যা শেখ হাসিনার সরকার যখন দেশব্যাপী কাঙ্খিত উন্নয়ন বইয়ে দিচ্ছে, প্রস্তুতি নিচ্ছে আরেক দফা সরকার গঠনের- ঠিক সেই মুহূর্তে পুরনো প্রতিক্রিয়াশীল চক্রটি আবারও পরিকল্পিত চক্রান্ত নিয়ে মাঠে নেমেছে। তারা নির্বাচনের পূর্ব মুহূর্তেই স্বাধীনতাপক্ষের শক্তির উপর মামলা, হামলা চালিয়ে বিপর্যস্ত করার পাঁয়তারা শুরু করেছে। তারা বলেন, আমরা সাংবাদিকতার কন্ঠরোধের কোনো চক্রান্ত সফল হতে দেবো না। এই চক্রের বিরুদ্ধে প্রাণপন লড়াইয়ের পূর্ণ প্রস্তুতি নিয়ে সারাদেশের সাংবাদিকদের এক কাতারে শামিল হওয়ার আহবান জানান বক্তারা।
মানববন্ধনে বাংলাদেশ প্রতিদিনের সিনিয়র রিপোর্টার সাঈদুর রহমান রিমন তার বক্তব্যে সমবেত সাংবাদিক জনতা সকলের প্রতি গভীর কৃতজ্ঞতা জানিয়ে বলেন, আমার প্রিয় সম্পাদক নঈম নিজামের সাহসী ভূমিকায় আতঙ্কিত অপরাধীচক্র বারবারই হামলা মামলার হয়রানিতে বিপর্যস্ত করতে চায়। মামলাবাজ মোতাহার কী কারণে কোন্ যুক্তিতে মামলা করলেন সেটাও আমাদের বোধগম্য নয়। আমরা অবিলম্বে এ মামলা প্রত্যাহারপূর্বক দুর্নীতিবাজ মোতাহার পরিবারের নিঃশর্ত ক্ষমা প্রার্থনার দাবি জানাই। অন্যথায় নঈম নিজামের মতো বীর সম্পাদককে হয়রানি করার যাবতীয় দায়দায়িত্ব তাদেরকে বহণ করতে হবে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here