বিকালে শুরু নতুন বছরের প্রথম সংসদ অধিবেশন

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

জাতীয় সংসদের চলতি বছরের প্রথম অধিবেশন শুরু হতে যাচ্ছে। আজ ১৮ জানুয়ারি, সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টায় শুরু হতে যাচ্ছে শীতকালীন এই অধিবেশন।

রেওয়াজ অনুযায়ী, অধিবেশনের শুরুতেই ভাষণ দেবেন রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদ। এতে সরকারের কার্যক্রম তুলে ধরবেন তিনি। পরে রাষ্ট্রপতির ভাষণের ধন্যবাদ জানিয়ে সংসদে আনা প্রস্তাবের ওপরের আলোচনা অনুষ্ঠিত হবে।

সাধারণত বছরের প্রথম অধিবেশন ৩০-৩৫ কার্যদিবস চলে। তবে করোনা সংক্রমণে কারণে এবার দীর্ঘ হবে না। করোনাভাইরাসের মহামারীর মধ্যে অনুষ্ঠিত বিগত তিন অধিবেশনের মতো এটিও সংক্ষিপ্ত হবে। মোট ১২ থেকে ১৪ কার্যদিবস এই অধিবেশন চলতে পারে বলে সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা গেছে।

কঠোর স্বাস্থ্যবিধি মেনে শুরু হতে যাচ্ছে এবারের অধিবেশন। শুধু কোভিড-১৯ পরীক্ষায় নেগেটিভ এমপি, মন্ত্রী ও সংসদ সংশ্লিষ্টরা সেখানে প্রবেশের অনুমতি পাবেন। প্রথম দিন করোনাভাইরাস পরীক্ষায় নেগেটিভ রিপোর্ট পাওয়া সব সংসদ সদস্য অংশ নিতে পারবেন। এরপর রোস্টার করা প্রতি কার্যদিবসে সর্বোচ্চ ৯০ জনকে পর্যায়ক্রমে আমন্ত্রণ জানানো হবে।

এ অধিবেশনে বেশ কয়েকটি গুরুত্বপূর্ণ বিল পাস হওয়ার কথা রয়েছে। সচিবালয়ের আইন শাখা সূত্রে জানা গেছে, রাষ্ট্রপতির ভাষণের ওপর আলোচনার আগে ও পরে অন্তত ১০টি বিল পাস এবং ৫-৭টি বিল উত্থাপিত হবে। ইতোমধ্যে আইন শাখায় ছয়টি বিল জমা পড়েছে এবং দু-তিন দিনের মধ্যে আরও বেশ কয়েকটি বিল জমা পড়বে।

অধিবেশন সম্পর্কে সংসদের হুইপ ইকবালুর রহিম বলেন, ‘করোনাভাইরাস পরিস্থিতির কারণে ১২ থেকে ১৪ কার্যদিবস অধিবেশন চালানো হতে পারে। শুরুর দিন সাড়ে ৪টায় অধিবেশন বসলেও এরপর থেকে বেলা ১১টা থেকে অধিবেশন বসবে।’

সোমবার বিকাল সাড়ে ৪টায় অধিবেশন শুরু হয়ে প্রথমে সভাপতিমণ্ডলী মনোনয়ন এবং শোক প্রস্তাব উত্থাপনের পর রাষ্ট্রপতি সংসদে ভাষণ দেবেন। এরপর অধিবেশন মুলতবি করা হবে বলেও জানান তিনি।

এদিকে সংসদ সচিবালয়ে কর্মরতদেরও অধিবেশন চলার সময় সংসদ ভবনে প্রবেশ সীমিত থাকবে। কেবল অধিবেশন সংশ্লিষ্ট কর্মচারীরা সংসদে ঢুকতে পারবেন। তবে তাদের করোনাভাইরাস নেগেটিভ রিপোর্ট থাকতে হবে।