মেসির গোলে হার এড়ালো আর্জেন্টিনা

অনলাইন ডেস্ক:
চির প্রতিদ্বন্দ্বী ব্রাজিলের বিপক্ষে তার করা একমাত্র গোলেই জয় পেয়েছিল আর্জেন্টিনা। দিন তিনেক পরে আবারও আর্জেন্টিনার রক্ষাকর্তা হিসেবে আবির্ভূত হয়েছেন তিনি। শেষ মুহূর্তের পেনাল্টি গোলে হারতে বসা দলকে ২-২ গোলে ড্রয়ের সম্মান এনে দিয়েছেন আর্জেন্টিনা অধিনায়ক। এছাড়া আগুয়েরোর করা দলের প্রথম গোলেও তার পরোক্ষ ভূমিকা ছিল।
অনেক বিতর্ক ও সমালোচনার পরও ইসরায়েলের সাবেক রাজধানী তেলআবিবের ব্লুমফিল্ড স্টেডিয়ামে মাঠে গড়িয়েছে আর্জেন্টিনা ও উরুগুয়ের মধ্যকার প্রীতি ফুটবল ম্যাচ। যেখানে ধ্রুপদী প্রদর্শনীতে জিতেছে ফুটবল, হারেনি আর্জেন্টিনা-উরুগুয়ের কেউই। দুই দলের পাল্লা দিয়ে লড়াই করার ম্যাচে দারুণ এক অভিজ্ঞতাই হয়েছে উপস্থিত দর্শকদের।
এ খেলায় দুইবার পিছিয়ে পড়েও হার মানেনি আর্জেন্টিনা। গোল শোধ করে লড়াইয়ে ফিরেছে দুইবারই। শেষপর্যন্ত আলবিসেলেস্তেদের আক্ষেপ হয়ে থেকেছে একদম শেষ দিকে গোল মিসের হতাশা।
এবারের আন্তর্জাতিক বিরতিটা বেশ ভালোই কাটলো মেসি-আগুয়েরোদের। প্রথম ম্যাচে ব্রাজিলকে ১-০ গোলে হারানোর পর এবার উরুগুয়ের সঙ্গে দারুণ ফুটবল খেলে ২-২ গোলে ড্র। আর সবমিলিয়ে সবশেষ কোপা আমেরিকার পর থেকে টানা সাত ম্যাচ অপরাজিত আর্জেন্টিনা।

আলবিসেলেস্তেরা অবশ্য ৫ মিনিটের বেশি সমতা ধরে রাখতে পারেনি। আর্জেন্টিনার বক্সের ঠিক বাইরে সুয়ারেজকে ফাউল করায় ফ্রি কিক পায় উরুগুয়ে। এরপর সুয়ারেজের নেয়া ডান পায়ের বুলেট গতির ফ্রি কিক এক হাতে আটকাতে গিয়ে হার মানেন আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক আন্দ্রাদা। আর তাতেই আবারো এগিয়ে যায় উরুগুয়ে।

ম্যাচ শেষের আগ মুহূর্তে ডি বক্সের ভেতরে মার্টিন কাসেরেসের হাতে বল লাগলে পেনাল্টি পেয় যায় আর্জেন্টিনা। ইনজুরি সময়ের দ্বিতীয় মিনিটে মেসির নেয়া স্পট কিক জালের ঠিকানা খুঁজে পেলে শেষ পর্যন্ত পরাজয়ের হাত থেকে রক্ষা পায় আর্জেন্টিনা।

আগের ম্যাচে পেনাল্টি থেকে সরাসরি গোল করতে না পারলেও এবার আর ব্যর্থ হননি এলএম টেন। নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে টানা দুই ম্যাচেই গোল করলেন মেসি।  জাতীয় দলের জার্সিতে এটি মেসির ৭০তম গোল।