মৎস্য অফিসের নারী কর্মচারীসহ ৯ জেলের জরিমানা

মোঃ নাসির উদ্দিন, ভূঞাপুর (টাঙ্গাইল) প্রতিনিধিঃ

 

টাঙ্গাইলের ভূঞাপুরে যমুনা নদীর অংশে সরকারি নিষেধাজ্ঞা অমান্য করে প্রজনন মৌসুমে মা ইলিশ ধরার অপরাধে ৯ জেলে ও জব্দকৃত মা ইলিশ থেকে অসুদপায়ে ১টি মাছ সরানোর দায়ে উপজেলা মৎস্য অফিসের এক নারী অফিস সহায়ক কর্মচারীসহ ১০ জন কে মোট ৩১ হাজার ৫’শ টাকা জরিমানা করেছে উপজেলা ভ্রাম্যমাণ আদালত।

বৃহস্পতিবার (১৭ অক্টোবর) সকাল ১১ টার দিকে উপজেলা পরিষদ চত্বরে তাদের এ জরিমানা করেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আসলাম হোসাইন। এ সময় উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান, থানার পুলিশ কর্মকর্তা ও কয়েকজন সাংবাদিকসহ অন্যান্যদের উপস্থিতে জব্দকৃত ৪০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল আগুনে পুড়িয়ে ফেলা হয়। যার আনুমানিক মূল্য ২ লাখ ৫০ হাজার টাকা হবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য কর্মকর্তা।

জরিমানা প্রাপ্তরা হলেন, উপজেলার চর চন্দুনী গ্রামের মো. আমজাত আলীর ছেলে মো. আমীর হামজা (৩৮), জগৎপুরা গ্রামের মো. শামছুল হকের ছেলে মোয়াজ্জেম হোসেন (৩২), মো. সাহার আলী শেখের ছেলে মো. আশরাফুল (৩০), মো. হারুন অর রশিদের ছেলে মো. সবুজ হাসান (২৪), ডিগ্রিচর গ্রামের মো. ইয়াকুব আলীর ছেলে মো. এরশাদ (২৫), মৃত ফরিজল মন্ডলের ছেলে মো. শফিকুল ইসলাম (৩০), বাসুদেবকোল গ্রামের মো. জামাল হোসেনের ছেলে মো. সোহেল রানা (২০), সিরাজগঞ্জ সদর উপজেলার সিংগা বিল হাইলদা গ্রামের মো. মোশারফ হোসেনের ছেলে মো. হোসেন (২৪), মো. হরমুজ আলীর ছেলে মো. মোতালেব হোসেন (৩২)।

এ বিষয়ে উপজেলা মৎস্য কর্মকর্তা মো. হাফিজুর রহমান জানান, গত বুধবার রাত ১ টার দিকে যমুনা নদীতে অভিযান পরিচালনা চালানো হয়। এতে ৯ জেলেসহ ৪০ হাজার মিটার কারেন্ট জাল জব্দ এবং ২০ কেজি ইলিশ মাছ উদ্ধার করা হয়। নারী অফিস সহায়ক কার্মচারীকে জরিমানা করার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান, উদ্ধারকৃত ইলিশ থেকে কাউকে না বলে ইলিশ সরানোর দায়ে তাকে এ জরিমানা করা হয় এবং তাকে শোকজ করা হয়। তিনি আরো বলেন, প্রজনন মৌসুমে কেয়ারিং করার সময় যার কাছে ইলিশ পাওয়া যাবে সেও অপরাধী।

এ বিষয়টি উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. আসলাম হোসাইন সত্যতা নিশ্চিত করে জানান, মা ইলিশ ধরার অপরাধে বৃহস্পতিবার সকালে ওই ৯ জেলে ও এক নারী অফিস সহায়ক কর্মচারীকে ৪ হাজার টাকাসহ বিভিন্ন অংকে মোট ৩১ হাজার ৫’শ টাকা জরিমানা করা হয়। পরে সিদ্ধান্ত অনুয়ারী জব্দকৃত কারেন্ট জাল পুড়ানো হয় এবং ২০ কেজি ইলিশ এতিমখানায় বিতরণ করা হয়। ইলিশ মাছ ধরা বন্ধে তাদের এ অভিযান অব্যাহত থাকবে বলেও জানান তিনি।