Amar Praner Bangladesh

রাজধানীর মিরপুরে গার্মেন্টস কর্মীদের দাবি আদায়ের নামে জামাত বিএনপির উস্কনীতে বিক্ষোভ ও ভাংচুর

 

 

আনিছ মাহমুদ লিমন :

রাজধানী মিরপুরে আজ সকাল ১০ ঘটিকায় গার্মেন্টস শ্রমিকদের দাবি আদায়ের নামে পেছনে ভিন্ন চরিত্রে ভিন্ন এজেন্ডা নিয়ে আওয়ামীলীগ বিরোধী এবং রাষ্ট্রবিরোধী কর্মকাণ্ডে নাশকতামূলক কর্মকাণ্ড চালিয়েছে আজ বিএনপি ও জামাত জামাতের পৃষ্ঠপোষকতায় নির্দেশে।

গতকাল থেকেই শ্রমিকদের বিভিন্ন দাবি আদায়ের নামে জামাত-শিবিরের অর্থ ও পৃষ্ঠপোষকতায় সরকারবিরোধী এবং রাষ্ট্রবিরোধী একটি আন্দোলনের চেষ্টা করছিলেন যা ইতিমধ্যেই গোয়েন্দা সংস্থাগুলো নিশ্চিত করেছে গার্মেন্টস শিল্পের ধ্বংসের উদ্দেশ্যে এই শিল্পকে শেষ করে ফেলে দেয়ার উদ্দেশ্যে কয়েক হাজার বিএনপি-জামাতের নেতৃবৃন্দের উস্কানিতে এবং পৃষ্ঠপোষকতায় সকাল ১০ ঘটিকায় শুরু করে ভাংচুর মিরপুর ১৪ নাম্বার থেকে মিরপুর ১০ গোলচক্করে দুপুর পর্যন্ত রণক্ষেত্রে পরিণত হয়। রাষ্ট্রের অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ বেশকিছু গার্মেন্টস কলকারখানা ভেঙে ফেলা হয়।

সকাল ১১ টার দিকে কয়েক হাজার উশৃংখল জনগণ যখন দশ নম্বরে ভাঙচুর শুরু করে স্থানীয় ঠিক তখনি বাংলাদেশ আওয়ামী লীগসহ স্বাধীনতার পক্ষে বিভিন্ন শক্তির সংগঠনগুলো ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক প্রলয় সমদ্দার বাপ্পির নেতৃত্বে প্রতিরোধ গড়ে তোলার চেষ্টা করেন রাষ্ট্রের সম্পদ ভাঙচুর এবং এই অরাজকতা বন্ধের জন্য তারা এগিয়ে আসলে উশৃংখল এই দলের আক্রমণের শিকার হন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক প্রলয় সমদ্দার বাপ্পি, সহ ৩০ নেতা কর্মী আহত হন ও তাদের মটর সাইকেল ভাংচুর করে আগুন জ্বালিয়ে দেয়, এ-সময় আরো উপস্থিত ছিলেন ৯৪ নম্বর ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সভাপতি আলহাজ্ব মোহাম্মদ মহিউদ্দিন ও সাধারণ সম্পাদক লায়ন আমির উদ্দিন।

ঢাকা মহানগরের সদস্য এম সাইফুল সাইফুল, মহানগরের সদস্য সাইফুদ্দিন টিপু, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় শিল্প বাণিজ্য বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য নাসিমুল হক রুবেল,কাফরুল থানার সহ-সভাপতি বাহার উদ্দিন, মোঃ মুজিবুর রহমান, থানা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সজল, ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শফিকুল ইসলাম আখের, রফিকুল ইসলাম, মহিলা আওয়ামী লীগ নেত্রী সুইটি, যুব মহিলা লীগ আওয়ামী লীগ নেত্রী মুন্নি সহ আরো অনেকে।
এ কথা বল্লেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের দপ্তর সম্পাদক প্রলয় সমদ্দার বাপ্পি।