মোঃ আলামিন তালুকদার ঃ রাজধানীর উত্তরা দক্ষিণখান এলাকার চালাবনের বসবাসরত গার্মেন্টস কর্মী নুপুর বেপরোয়া। বিভিন্ন সময় বিভিন্ন ব্যক্তির নামে উঠছে তার সাথে অনৈতিক সম্পর্কের কথা, তৈরী হয়েছে তার একটি ছোট-খাট গ্রুপ। তার গ্রুপে আছে নামধারী সাংবাদিক সহ কতিপয় বখাটে ছেলে। প্রথমে নুপুর টাকা-পয়সা আছে এমন ব্যক্তির সাথে সম্পর্ক গড়ে তোলে, কিছুদিন যেতে না যেতেই তার গ্রুপের লোকের কাছে নালিশ করে অমুক লোক আমার সর্বনাশ করেছে, উত্তরখানের বড়বাগের গার্মেন্টস এর কন্টাকটার অনিক, দক্ষিণখান গার্মেন্টস এর সুপারভাইজার রিপন, চামুরখান গার্মেন্টস এর দুইজন বয়স্ক লোক নুপুরকে বিয়ে করার জন্য মারামারি পর্যন্তও করেছে। এভাবে অনেক ছেলের সাথে তার অনৈতিক সম্পর্ক হয়। প্রতি মাসেই গার্মেন্টস পরিবর্তন করা তার এই পেশার একটি অংশ। গত তিন বছর আগে অবসরে যাওয়া আনসার কমান্ডার সাকিল উদ্দিন (৬০), দুই ছেলে ও এক মেয়ের পিতা, তার নিকট নুপুর চাকরীর খোজে আসে, কিছুদিন যেতে না যেতেই নুপুর তার গ্রুপের নিকট নালিশ করে যে, শাকিল তার সর্বনাশ করেছে। অথচ মুঠোফোনে শাকিলকে নুপুর জানায় “এগুলো আমি অভিনয় করেছি, আপনাকে ভয় দেখিয়েছি” এই কথাবার্তা শাকিল তার মুঠোফোনে রেকর্ড করে রেখেছে। অন্যদিকে নুপুরের গ্রুপের লোকজন নুপুরকে নিয়ে থানার সামনে ঘোড়াফেরা করে, এবং শাকিলকে মামলা মোকদ্দমার ভয় দেখিয়ে বলে “আমাকে বিয়ে কর, নইলে মিট-মাট কর, না হলে কিন্তু খবর আছে”। ছোট ছোট অপরাধ থেকেই বড় অপরাধের জন্ম হয়। রাজধানী ঢাকা সহ অন্যান্য শহরেও এমন নুপুর সিন্ডিকেট সক্রিয় রয়েছে। তাদের কাজ একটাই, প্রতারনা করে মিথ্যা অপবাদ দিয়ে, মানুষের মান-সন্মানকে পুঁজি করে অর্থ হাতিয়ে নেওয়া।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here