বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪১ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

রায়পুরে অবৈধ কারেন্ট জাল বিক্রি বন্ধ হয়নি

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
  • ২ Time View
জয়নাল আবদীন রায়পুর (লক্ষীপুর) প্রতিনিধি : উপজেলায় প্রায় ৫০টি হাট-বাজারে অবৈধ কারেন্ট জাল বিক্রি হচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত বুধবার নদীপথে বরিশাল অঞ্চলে প্রচারের সময় রায়পুর চরকাছিয়া মেঘনা নদীর পাড় থেকে পুলিশ এক মাইক্রোবাস কারেন্টজাল জব্দ করে।
সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, রায়পুর পৌর শহরের মুড়িহাটা, হায়দরগঞ্জ বাজার, চারকাছিয়া, পুরাতন বেড়ির মাথা, পানির ঘাট, হাজিমারা, খাসের হাট, মোল্লার হাট, চরাঞ্চলের উত্তর চরবংশী, দক্ষিণ চরবংশী ও চরআবাবিল ইউনিয়নের মেঘনা নদীর পাড়ের ১৫-২০টি  ছোট-বড়  দোকান রয়েছে অবৈধ কারেন্ট বিক্রি হচ্ছে। তবে দোকানীরা নদীপথে মুন্সিগঞ্জের বিভিন্ন কারখানা থেকে কিনে এনে এখানে পাইকারি ও খুচরা বিক্রি করে।
নদীর তীরে কয়েকজন কারেন্ট জাল ব্যবসায়ীরা জানান, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী দেখলে তারা বিক্রি বন্ধ রাখেন। তারা চলে যাওয়ার পর আবার বিক্রি শুরু হয়। এছাড়াও আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী নদীতে ছাড়া  কোনো দোকানে অভিযান চালায় না।
নাইয়াপাড়ার কয়েকজন জেলে জানান, সুতার জালে নদীতে মাছ না পাওয়ায় তারা বাধ্য হয়ে কারেন্ট জাল ব্যবহার করছে।
রায়পুর উপজেলা সিনিয়র মত্স্য কর্মকর্তা বেলায়েত হোসেন জানান, তার দপ্তরে পর্যাপ্ত জনবল না থাকলেও দিন-রাত স্থানীয় প্রশাসনকে নিয়ে নদীতে জাটকা নিধন বন্ধে অভিযান পরিচালনা করা হচ্ছে। তবে কোনো একটি দোকানে অভিযান চালালে দ্রুত খবর ছড়িয়ে পড়লে এই সময়ের মধ্যে অন্যরা সতর্ক হয়ে যায়। জনবল কম থাকায় দোকানে অভিযান চালিয়ে সুফল পাওয়া যাচ্ছে না।
উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শিল্পী রানী রায় বলেন, গত দুই মাসে কোস্টগার্ডকে সাথে নিয়ে ভ্রাম্যমাণ আদালত চালিয়ে প্রায় অর্ধকোটি টাকার কারেন্ট জাল জব্দ করে অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। এছাড়াও অনেক জেলেদের জরিমানা করা হয়। মত্স্য কর্মকর্তার সাথে কথা বলে আবারও দোকানগুলো দ্রুত সময়ের মধ্যেই অভিযান পরিচালনা করা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines