Amar Praner Bangladesh

রূপসায় মাদক ব্যবসায়ীরা চালিয়ে যাচ্ছে রমরমা ব্যবসা

 

 

খুলনা প্রতিনিধিঃ

 

রূপসা উপজেলায় মাদকসেবী ও মাদক বিক্রেতাদের দৌরাত্ম্য বৃদ্ধি পাওয়ায় উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ন স্পটগুলি এখন মাদকে সয়লাব হয়ে গেছে। পুলিশের তৎপরতাকে চ্যালেঞ্জ করে এবং উঠতি যুবক ও শিক্ষার্থীদের টার্গেট করে বেপরোয়া ভাবে ভিন্ন ভিন্ন প্রক্রিয়ায় মাদক আমদানি-রপ্তানি ও খুচরা বিক্রয় কার্যক্রম এখন প্রায় সহজ বিষয়ে পরিণত হয়েছে।

পুলিশ অভিযান চালিয়ে মাদক দ্রব্য উদ্ধার, মাদক ব্যবসায়ী গ্রেফতার করার পরেও দমন করা যাচ্ছেনা এদেরকে। জানাগেছে, রূপসা উপজেলার ঘাটভোগ ইউনিয়নের প্রতিটি গুরুত্বপূর্ণ ইস্পটে ইয়াবা ও গাঁজা বিক্রি চলছে দীর্ঘদিন ধরে।

এ অঞ্চলগুলোতে ছোটখাটো ভাবে যারা মাদক বিকিকিনি করে তাদের মধ্যে কেউ কেউ পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলেও বড় ব্যবসায়ীরা রয়েছে অন্তরালে।

উপজেলার শিয়ালী বাজার, চাঁদপুর, কচাতলা বাজার সিন্দুরডাঙ্গা এলাকায়, সামন্তসেনা নতুন হাট এলাকায়, ঘাটভোগ মোড়, আলাইপুর ব্রীজের নিচে বড় ধরনের ইয়াবা ব্যবসা এবং খুচরা বিক্রি করে, আইচগাতী ইউনিয়নের সেনের বাজার চিনি মসজিদের সামনে, বাসস্ট্যান্ড এলাকায়, কামার পাড়া এলাকায়, পপুলার জুট প্রেসের সামনে, রাজাপুর এলাকায়, রাজাপুর সোনাপুর কিন্ডার গার্টেনের সামনে, মিলকি দেয়াড়ার বাগানবাড়ী এলাকায়, রাজাপুর জয়বাংলার মাঠ এলাকায়, তেলির মোড়ে,, মিলকি দেওয়াড়ার একটি হোটেলে, যুগিহাটি এলাকায়, চর রূপসা এলাকায়, বশিরের মোড়, শ্রীফলতলা ইউনিয়নের নন্দন পুর গ্রামের তালবোনের মাঠের আশেপাশে বসবাসকারীরা ইয়াবার ও গাঁজার এক চেটিয়া ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে রূপসার সবচেয়ে বেশি মাদকের চালান আসে ঘাটভোগ ইউনিয়ন শ্রীফলতলা ইউনিয়নে নন্দনপুর, খুলনা জেলার সবচেয়ে বড় ব্যবসায়ী হিসেবে পরিচিত হওয়ায় তারা এমন ভাবে মাদক আমদানী রপ্তানী করে যে পুলিশ শত চেষ্টা করেও মাদক সহ তাদের গ্রেফতার করতে ব্যার্থ হচ্ছে। এ দিকে মাদকের করালগ্রাসে ৫ টি ইউনিয়নের স্কুল ও কলেজ পড়–য়া শিক্ষার্থী যেমন বিভিন্ন ধরনের নেশায় জড়িয়ে পড়ছে তেমনি বেকার যুবক-যুবতীরাও কোন না কোন ভাবে এ নেশার সাথে সম্পৃক্ত হচ্ছে।

রূপসায় মাদকের অবাধ বিচরন সম্পর্কে রূপসা থানার ওসি সরদার মোশাররফ হোসেন জানান, মাদক বিরোধী অভিযান অব্যাহত আছে গত কয়েক মাসে অর্ধশতাধিক মাদক বিক্রেতা গ্রেফতার হয়েছে।

বড় ব্যবসায়ীদের ধরার জন্য তাদের অভিযান অব্যাহত আছে। মাদক ব্যবসায়ীদের বিরুদ্ধে অভিযান অব্যাহত থাকায় গা ঢাকা দিয়েছে মাদক ব্যবসায়ীরা। সাধারণ মানুষ ও জনপ্রতিনিধিরা মাদক ব্যবসায়ী ও মাদক সেবীদের বিরুদ্ধে সোচ্চার ছিল।

বর্তমানে পুলিশী অভিযান না থাকার কারনে মাদক ব্যবসায়ীরা প্রকাশ্যে জনসাধরনের মাঝে হুমকি ধামকি দিয়ে ভয়ভীতি সৃষ্টি করার চেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। জনপ্রতিনিধি, পুলিশ, সাংবাদিকদেরকেও প্রকাশ্যে বিভিন্ন প্রকার হুমকি দিয়ে এলাকায় আতঙ্ক সৃষ্টি করার পায়তারা চালাচ্ছে।