শিঘ্রই চালু হচ্ছে অনলাইন জিডি

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

খুব শিগগিরই অনলাইনে জেনারেল ডায়েরি (জিডি) ও পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজ চালু করা হবে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল। এতে ঘরে বসেই অনলাইনে জিডি করতে পারবেন নাগরিকরা।

আজ বৃহস্পতিবার সচিবালয়ে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে ‘ডিজিটাল কেইস ডায়েরি’-এর ওপর পর্যালোচনা সভা শেষে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী একথা জানান। এ সময় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইসিটি বিভাগ এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

সভায় আইসিটি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় ও আইসিটি বিভাগ এবং আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
কোনো কিছু হারিয়ে গেলে বা কোনো হুমকি পেলে পুলিশি সহায়তা পেতে স্থানীয় থানায় সাধারণ ডায়েরি করার নিয়ম রয়েছে। থানায় গিয়ে জিডি দায়ের করতে সময়ক্ষেপণ হয় নাগরিকের।
স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, আমাদের যা কিছু হারিযে যায়, যা কিছু এক্সিডেন্ট হয়, যা কিছু একটা দুর্ঘটনা ঘটে আমরা কিন্তু নিকটবর্তী থানায় একটি জিডি করার জন্য যাই। আমাদের যেতে আসতে একটা সময় লাগে। আমাদের অনেক সময় লেগে যায় জিডিটা ফর্মে আনতে। সেজন্য আমরা অনলাইন জিডির ব্যবস্থা করেছি। সেটার জন্য এক সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে দায়িত্ব দেওয়া হয়েছে। তিনি খুব শিগগিরই কীভাবে বাস্তবায়ন করব সেটা আমাদের জানাবেন।
তিনি বলেন, আমরা প্রথম পর্যায়ে শুধু লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ড বা হারিয়ে গেছে- এই ধরনের যে জিডি করতে হয় সেটা দিয়ে যাত্রা শুরু করব। এজন্য প্রথমে ঢাকা এবং ময়মনসিংহ মেট্রোপলিটনে শুরু করব। তারপরে সারা বাংলাদেশে বিস্তৃত হবে।
পুলিশ ভেরিফিকেশনের কাজও অনলাইনে নিয়ে আসার প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
তিনি বলেন, আমরা শুধু লস্ট অ্যান্ড ফাউন্ডে সীমাবদ্ধ থাকব না। আমরা পুলিশ ভেরিফিকেশন থেকে শুরু করে সবকিছু অনলাইনে যাতে করতে পারি তারও পরীক্ষা-নিরীক্ষা করা হচ্ছে। প্রত্যেকটা থানা যাতে আমাদের অনলাইনে চলে আসে আমরা সে ব্যবস্থা করছি। আমরা খুব শিগগিরই সেই জায়গাটিতে যেতে পারব।
‘আমাদের পাসপোর্টের পুলিশ ভেরিফিকেশনের জন্য অনেক দিন বসে থাকতে হয়, সেটা দ্রুততার সঙ্গে শেষ করার জন্য আমরা এ ব্যবস্থা নিচ্ছি।’