মোঃ শামছুল হক, জেলা প্রতিনিধি শেরপুর :

 

শেরপুরের নকলায় পৌর শহরের গ্রীনরোড এলাকার এক তরুণ হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে মুসলমান ধর্ম গ্রহণ করেছে।

শেরপুর আদালতের আইনজীবী মো. সুজাউদ্দৌলা সাজনের চেম্বারে ইসলামী শরিয়ত মেনে কালেমা পড়ে মুসলমান হন জেলার নকলা উপজেলার শ্রী লাঞ্জু রবিদাস ও শ্রী বেলী দাসের ছোট ছেলে প্রকাশ চন্দ্র দাস।

ইসলাম ধর্ম গ্রহন করার পরে আইনি ও ইসলামী শরিয়াহ মোতাবেক তার নাম রাখা হয় মোহাম্মদ রাফি সরকার।

সদ্য মুসলামান হওয়া মোহাম্মদ রাফি সরকার জানান, ইসলাম ধর্মের সকল রীতিনীতি মেনে তাকে কালেমা পড়িয়ে মুসলমান বানান তার পরিচিত এক দ্বীনি ভাই। পরে নোটারী পাবলিকের হলফনামায় স্বাক্ষর করেন তিনি।

মুসলমান ধর্ম গ্রহন করা বিষয়ে মোহাম্মদ রাফি সরকারের কাছে জানতে চাওয়া হলে তিনি বলেন, ইসলাম আমার জীবনে অফুরন্ত শান্তি নিয়ে এসেছে। আমি এখন প্রশান্তিপূর্ণ জীবন উপভোগ করছি। প্রত্যেক সময় যখন আমি প্রার্থনা করি এবং নামাজ শেষ করি তখন নিজেকে খুব প্রাণবন্ত ও বিশুদ্ধ মনে হয়।

তিনি আরও জানান, ছোট কাল থেকে মুসলমান সম্প্রদায়ের সাথে চলাফেরা ও তাদের বিভিন্ন ধর্মীয় আলোচনা শোনে এই মর্মে উপলব্ধি করতে পেরেছি যে, বিভিন্ন ধর্মের মধ্যে ইসলামই শ্রেষ্ঠ ধর্ম। ইহকাল ও পরকালের মঙ্গলের জন্য ইসলামই একমাত্র সঠিক পথ। তাই ইসলাম ধর্মের অনুশাসন মেনে চলার বিষয়ে প্রতিজ্ঞাবদ্ধ হয়ে আমি স্বেচ্ছায় স্বজ্ঞানে ও সুুস্থ্য মস্তিষ্কে আমার পুরাতন ধর্ম (হিন্দু) ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহনের চূড়ান্ত সিদ্ধান্তে উপনীত হয়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহন করি।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here