মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:২৪ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

শেরপুরে মা- ছেলেসহ একই পরিবারে তিন জনের ইসলাম গ্রহণ

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ৫ অক্টোবর, ২০২২
  • ৪ Time View

 

 

মোঃ শামছুল হক, জেলা প্রতিনিধি শেরপুর :

শেরপুরে একই পরিবারের মা ও ২ পুত্রসহ ৩ জন ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। তারা সনাতনী হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্মে দীক্ষিত হয়েছেন। মঙ্গলবার (৪ অক্টোবর) বিকেলে তারা প্রথমে একজন মাওলানার কাছে কালেমা পড়ে এবং পরে আদালতে হাজির হয়ে এফিডেভিটের মাধ্যমে সনাতনী হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেন।

তারা হলেন, জেলার নালিতাবাড়ি উপজেলার শহরের গড়কান্দা মহল্লার মৃত খগেন বিশ্বাসের স্ত্রী সবিতা রানী, তার পুত্র জয় ও বিজয়। বর্তমানে তারা তাদের নাম গ্রহণ করেছেন আছিয়া বেগম, মোহাম্মদ হাসান ও মোহাম্মদ হোসাইন।

জানা গেছে, জয় শেরপুর জেলা শহরের স্বর্ণ ব্যবসায়ী মো. ফরিদুল ইসলামের সিয়ান চেইন সেন্টারে, ছোট ছেলে বিজয় বালা তৈরির কাজ করছেন। এক পর্যায়ে তারা মুসলমানদের আঁচার অনুষ্ঠান ভালো লাগায় তার মলিক ফরিদকে প্রস্তাব দেন সে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করবেন। তখন ফরিদ জানায়, তার অভিভাবকের সাথে কথা বলে অনুমতি নিয়ে আইনগতভাবে তা করতে হবে। পরে বিজয় তার ভাই জয় এবং মা সবিতা রাণীর সাথে কথা বললে তারাও ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে রাজি হয়। এরপর তারা ওই স্বর্ণ ব্যবসায়ী এবং ইউপি সদস্য সুলতান সরকারের সহযোগিতায় অ্যাডভোকেট মেরাজ উদ্দিনের সহযোগিতায় আদালতে হাজির হয়ে এফিডেভিট করেন। তার আগে তারা স্থানীয় মুফতি নুরুল আলমের কাছে কালেমা পড়েন।

এ বিষয়ে নওমুসলিম আছিয়া বেগম জানায়, ইসলাম ধর্ম আমার অনেক আগে থেকেই ভালো লাগতো। প্রতিবেশীদের ইসলাম ধর্মের বিভিন্ন অনুষ্ঠান দেখে আমারও ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে মন চাইতো। ছেলে বিজয় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করছে শুনে আমি এবং আমার অন্য ছেলে জয়কে নিয়ে রাজি হই ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করতে।

এ বিষয়ে বিজয় জানায়, কারো প্ররোচনায় ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করিনি। আমি অনেক দিন থেকেই ইসলাম ধর্ম গ্রহণের জন্য নিজে নিজেই খতনা করেছি। আজ আমার মা ও ভাইকে নিয়ে আদালতের মাধ্যমে এবং কালেমা পড়ে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করলাম।

অ্যাডভোকেট মেরাজ উদ্দিন জানান, আজ স্বর্গীয় খগেন বিশ্বাসের স্ত্রী সবিতা রাণী বিশ্বাস ও তার দুই পুত্র স্বেচ্ছায় আমার কাছে এসে তাদের সনাতনী হিন্দু ধর্ম ত্যাগ করে ইসলাম ধর্ম গ্রহণ করেছেন। আমি তাদের মাননীয় সিনিয়র জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক মো. মেহেদী হাসানের মাধ্যমে এফিডেভিট সম্পন্ন করেছি।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines