পাকিস্তান সন্ত্রাস দমনের লক্ষ্যে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানগুলো মনিটরিংয়ের সব রকম প্রস্তুতি নিয়েছে। দেশটিতে শিক্ষার্থী ও উচ্চ শিক্ষিত লোকজনের একটি গ্রুপের সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ডে জড়িয়ে পড়ার প্রমাণ পাওয়ার পর তারা এ কাজ শুরু করে।

খবর সিনহুয়ার।

শুক্রবার এক প্রেস ব্রিফিংয়ে পাকিস্তানের স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আহসান ইকবাল বলেন, জাতীয় সন্ত্রাস দমন কর্তৃপক্ষ এ দেশের বিভিন্ন কলেজ বিশ্ববিদ্যালয়ে পর্যবেক্ষণের কাজ শুরু করেছে।

তিনি আরও বলেন, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান পর্যবেক্ষণের জন্য পরিকল্পনা প্রণয়নে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বিভিন্ন বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের সঙ্গে বৈঠক করবেন।

মন্ত্রী বলেন, কতিপয় লোকজন শিক্ষিত যুব সমাজকে বিপথে নেয়ার চেষ্টা চালালেও সরকার শিক্ষক সমাজ ও বাবা-মা’র সহযোগিতায় এই প্রবণতাকে নিরুৎসাহিত করার চেষ্টা করছে।

এর আগে, পাকিস্তানের একজন সিনিয়র রাজনীতিবিদকে হত্যার ষড়যন্ত্রের সঙ্গে বন্দর নগরী করাচির একটি সুপরিচিত বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষার্থীদের জড়িত থাকার প্রমাণ পাওয়ার পর বিশ্ববিদ্যালয়টি শিক্ষার্থীদের যাবতীয় তথ্য গোয়েন্দা সংস্থাকে দেয়।

করাচিতে অভিযান চালিয়ে নিষিদ্ধ ঘোষিত সংগঠন ‘আনসার-উল-শরিয়া পাকিস্তানের’ প্রধানকে আইন শৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা গ্রেফতার করার পর স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এ পদক্ষেপ নেয়।

নিরাপত্তা বাহিনীর হাতে গ্রেফতার হওয়া এ প্রধান স্বীকার করেছে যে তাদের সংগঠনের সকল সদস্য উচ্চ শিক্ষিত এবং নগরীর বিভিন্ন সুপরিচিত বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here