শুক্রবার, ০৯ ডিসেম্বর ২০২২, ০৯:২১ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
নেতাকর্মীরা প্রস্তুত থাকুন, কেউ যেনো মানুষের ক্ষ‌তি কর‌তে না পা‌রে : প্রধানমন্ত্রী গাজীপুরে তুলার গোডাউনে আগুন, নিয়ন্ত্রণে ৮ ইউনিট একই ইউনিয়নে ৭ টি অবৈধ ইট ভাটা গুঁড়িয়ে দিয়েছে পরিবেশ অধিদপ্তর টাঙ্গাইলে জিমে’র আড়ালে মাদক ব্যবসা; ৩০ লাখ টাকার হিরোইনসহ নারী আটক তোফাজ্জল হোসেন মিয়াকে প্রধানমন্ত্রীর মূখ্য সচিব নিয়োগ প্রদান করায় ভাণ্ডারিয়ায় দোয়া ও মোনাজাত ১ কোটি ৫৩ লাখ টাকা ব্যয়ে রৌমারীতে লজিক প্রকল্পের কাজে অনিয়মের অভিযোগ সাতক্ষীরায় বঙ্গবন্ধুর মুর‍্যালে পুস্পস্তবক অর্পণ করলেন খুলনা রেঞ্জের নবাগত ডিআইজি মইনুল হক কুমিল্লায় তৈরি হলো দেশের সর্বাধুনিক কৃত্রিম বুদ্ধিমত্তাসম্পন্ন রোবট টঙ্গীতে এশিয়ান ও আনন্দ টিভির সাংবাদিকের উপর হামলা ভোলা-লক্ষ্মীপুর নৌরুটে লঞ্চ চলাচল বন্ধ

সবাইকে প্রস্তুত হওয়ার আহ্বান- খেলা হবে বিএনপির বিরুদ্ধে উত্তরায় রাস্তা দখল করে সমাবেশে কাদেরের বক্তব্য

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২১ নভেম্বর, ২০২২
  • ১০ Time View

 

(স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছিলেন, রাস্তাঘাট বন্ধ করে সমাবেশ করলে, জনগণের জানমালের ক্ষতি করলে আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনী প্রতিহত করবে। তারা হাত গুটিয়ে বসে থাকবে না। কিন্তু উত্তরার এই সমাবেশকে কেন্দ্র করে জনমনে দেখা দিয়েছে মিশ্র প্রতিক্রিয়া।)

 

রবিউল আলম রাজু :

 

রাজধানীর উত্তরায় মাসকট প্লাজার সামনে রোববার (২০ নভেম্বর) ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগ আয়োজিত শান্তি সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। বিএনপি, জামায়াত ও উগ্র সাম্প্রদায়িক গোষ্ঠীর সন্ত্রাস ও ভয়াবহ নৈরাজ্য সৃষ্টির প্রতিবাদে এই সমাবেশের আয়োজন করা হয়। শান্তি মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশে লাখো জনতার ঢল নামে। বিকেল ৩টায় এ সমাবেশে যোগ দিতে এসে জনতার ভিড় ঢেলে এগুতে না পেরে পুলিশের মোটর সাইকেলে সমাবেশ স্থলে পৌঁছান ওবায়দুল কাদের। সমাবেশে সভাপতিত্ব করেন ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ বজলুর রহমান।

বক্তব্য দেন আওয়ামী লীগের ঢাকা বিভাগের সাংঠনিক সম্পাদক মির্জা আজম এমপি এবং মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক মতিউর রহমান মতি প্রমুখ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন, ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এস এ মান্নান কচি। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশ, দেশের কোথাও আর রাস্তা দখল করে সভা-সমাবেশ করা যাবে না বলে অনেক সমাবেশে মন্তব্য করেছেন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এবং সড়ক পরিবহন ও সেতুমন্ত্রী ওবায়দুল কাদের।

কিছুদিন পূর্বে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খান কামাল বলেছিলেন কেউ যদি রাস্তা বন্ধ করে জনগণকে কষ্ট দিয়ে মিছিল মিটিং সমাবেশ করে তাদের বিরুদ্ধে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী ব্যবস্থা নিতে পারবে। ২০/১১/২০২২২ ইং রাজধানীর উত্তরায় দুপুরে উত্তরার প্রধান সড়ক সোনারগাঁও জনপথে রাস্তা বন্ধ ও দখল করে শান্তি সমাবেশ ও বিক্ষোভ মিছিলের প্রস্তুতি নিচ্ছে ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামীলীগ। উত্তরা হাউজ বিল্ডিং থেকে ১১নং চৌরাস্তা পর্যন্ত পুলিশের সামনেই রাস্তা আটকে এই প্রতিবাদ সমাবেশ করেন। রাস্তা বন্ধের ফলে সকল পরিবহন রাস্তায় আটকা পড়ে। আটকে পড়া যানবাহনের জন্য দেখা যায় তীব্র যানজট। এতে ভোগান্তির শিকার হচ্ছেন সাধারণ যাত্রীরা। দুর্ভোগ সম্পর্কে জানতে চাইলে এক যাত্রী বলেন, ‘প্রতিদিন রাস্তায় জ্যামের কারণে দুর্ভোগ পোহাতে হয়। তার ওপর আবার এইদিকের রাস্তা বন্ধ। কি বলব বুঝতে পারছি না।

এ বিষয়ে কথা হলে উত্তরা জোনের ট্রাফিক বিভাগের কর্মকর্তা বলেন, ইতোমধ্যে বিষয়টি ঊর্ধ্বতন মহলকে জানানো হয়েছে। আর বাসের জন্য বিকল্প রুটের ব্যবস্থা করে দিয়েছি। রক্ষক যদি ভক্ষক হয় সাধারণ জনগণ যাবে কোথায়? ক্ষমতাসীন দলের লোকেরা মিছিল মিটিং প্রতিবাদ করার জন্য যদি রাজপথ বেছে নেই, তাহলে বিরোধী দলের নেতাকর্মীরা এরকম আত্মঘাতি প্রতিবাদের বিষয়কে প্রাধান্য দিলে সাধারণ জনগণ যাবে কোথায়? নাম না জানাতে উত্তরা আওয়ামীলীগের একজন প্রবীণ নেতা সংবাদের প্রতিবেদককে জানান, এরকম রাস্তা বন্ধ করে সমাবেশের বিষয়টি সুনামের চেয়ে সমালোচনায় স্থান পাবে বলে আমি মনে করি। একটি পর্যায়ে শান্তি সমাবেশে আসতে থাকেন নেতাকর্মীরা বিমান বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সদ্য সাবেক সভাপতি শাহজাহান আলী মণ্ডল এবং আওয়ামী লীগের শিল্প ও বাণিজ্য বিষয়ক উপ-কমিটির সদস্য, বিমান বন্দর থানা আওয়ামী লীগের সাবেক প্রচার ও গবেষণা সম্পাদক জাকির হাসান জুয়েল শান্তি মিছিল ও বিক্ষোভ সমাবেশে নেতৃত্ব দেন।

ঢাকা মহানগর উত্তর আওয়ামী লীগের শান্তি সমাবেশে সকাল থেকেই খণ্ড খণ্ড মিছিল নিয়ে জড়ো হতে থাকেন দলের নেতাকর্মীরা। বক্তব্য দিতে গিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের বলেছেন, অনেক ষড়যন্ত্র হয়েছে, আপনাদের প্রস্তুত থাকতে হবে। আমরা জানি দেশের মানুষ কষ্টে আছে, তেলের দাম, জিনিসপত্রের দাম এখন বাড়তির দিকে। গরিবরা কষ্ট পাচ্ছে। বিএনপি যতই অপপ্রচার করুক, শেখ হাসিনা বলেছেন বাংলাদেশে দুর্ভিক্ষ হবে না।

তিনি বলেন, রাতের আঁধারে কাঁচপুর সেতুতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার উদ্বোধনী ফলক পুড়িয়ে ফেলেছে, ভেঙ্গে ফেলেছে, এরা কারা? এরা আগুন সন্ত্রাসী। আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে প্রস্তুত হয়ে যান। ওবায়দুল কাদের বলেন, খেলা হবে ভোট চুরির বিরুদ্ধে, দুর্নীতির বিরুদ্ধে, দুঃশাসনের বিরুদ্ধে, ভুয়া ভোটার তালিকা প্রণয়নকারীদের বিরুদ্ধে, খেলা হবে বিএনপির বিরুদ্ধে। খেলা হবে আগামী ডিসেম্বরে। তিনি আরো বলেন, ফখরুল ভাই, বড় বড় কথা বলছেন, মুচলেকা দিয়ে তারেক রহমান লন্ডনে গেছেন।

বিএনপি স্বাধীনতার শত্রু। গণতন্ত্র বিএনপি গিলে খেয়েছে। আইনের শাসন গিলে খেয়েছে, আবার ক্ষমতায় এলে বিএনপি বাংলাদেশ গিলে খাবে। সেতুমন্ত্রী বলেন, আওয়ামী লীগ রাজপথে থাকবে, কেউ খেলতে এলে জবাব দেওয়া হবে। আপনারা প্রস্তুত থাকুন। এখন সামনে কত লোক, পেছনে কত লোক, কিছুই আমি দেখছি না। ওবায়দুল কাদের বলেন, ভুলে যান তত্ত্বাবধায়ক। সেটি মৃত, মৃত ইস্যুকে জীবিত করার অপচেষ্টা করবেন না। স্বপ্ন দেখছেন? স্বপ্ন দুঃস্বপ্ন হয়ে যাবে, খেলা হবে। আল্লাহ ছাড়া কাউকে ভয় পান না শেখ হাসিনা। ভয় দেখাবেন না। আওয়ামী লীগ জীবিত আছে। বাংলাদেশকে বাঁচাতে হলে আওয়ামী লীগকে বাঁচাতে হবে। খেলা হবে, হবে ইনশাআল্লাহ। সমাবেশের সার্বিক সহযোগিতা করেন ঢাকা-১৮ আসনের সংসদ সদস্য হাবিব হাসান।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines