সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ

 

সাতক্ষীরা মাথাবিহীন লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তবে লাশ উদ্ধারের কয়েক ঘণ্টা পর নিথর দেহের পরিচয় মিলেছে।

সকাল ৮ টায় শহরের বকচরা বাইপাস সড়ক সংলগ্ন মৎস্য ঘের থেকে সদর থানা পুলিশ মাথাবিহীন দেহ উদ্ধার করে।মাথাবিহীন দেহ চা দোকানী ইয়াছিন আলী (৩৮)।সে শহরের সুলতানপুরের বাসিন্দা শাহাবাজ মোল্লার পুত্র। বকচরা গ্রামের কয়েক জন জানান,সকালে তারা মাছের ঘেরে আসছিলেন এ সময় রাস্তায় জুতা ও তাজা রক্ত দেখতে পায়। পরে সড়কের পাশে লাগানো ঘাস বনের নিচে মৎস্য ঘেরে ওই ব্যক্তির গলা কাটা লাশ নজরে আসে।

এ সময় সদর থানা পুলিশকে খবর দিলে পুলিশ ঘটনাস্থলে এসে মাথা বিহীন লাশ উদ্ধার করে। তবে বাইপাস এলাকায় মাথাবিহীন নিথর দেহের কথা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়লে বিপুল সংখ্যক লোক জড়ো হয় ঘটনাস্থলে। নিহতের কন্যা জেসমিন আক্তার বৃষ্টিপাতকে জানান তার পিতা একজন চা বিক্রেতা। শহরের পুরাতন সাতক্ষীরা এলাকায় বাবা চায়ের দোকান রয়েছে। সন্ধ্যায় বাসা থেকে বের হয়ে দোকানে যায়। রাতে তার মায়ের সাথে কথা হয়েছে সে শহরের বাইপাস এলাকায় একটি ঘর বাঁধার জন্য যাবে। বাসায় ফিরতে অনেক দেরি হবে। কিন্তু সারারাত বাবা আর বাসায় আসেনি।এরপর থেকে বাবার ফোন বন্ধ ছিল। সকালে লোক মারফত জানতে পেরে আমার পিতার লাশ শনাক্ত করেছি।

এ বিষয়ে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার কাজী মনিরুজ্জামানের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন,লোক মারফত জানতে পেরে ঘটনাস্থলে এসেছি। এখানে জেলা পুলিশের সকল ইউনিট পর্যবেক্ষণ করছেন।এটি একটি নির্মম হত্যাকাণ্ড। প্রথমে তার পরিচয় পাওয়া না গেলেও পরবর্তীতে পরিচয় মিলেছে। এই ঘটনা সাথে জড়িতদের অনতিবিলম্বে গ্রেফতার করা হবে। দোষীদের সর্বোচ্চ শাস্তির জন্য জেলা পুলিশ কঠোর ব্যবস্থা গ্রহণ করবে।

এসময় উপস্থিত ছিলেন,অতিঃপুলিশ সুপার ওয়াপস কনক কুমার, সদর সার্কেলের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার মীর আসাদুজ্জামান চৌধুরী, সদর ওসি এস এম কাইয়ুম, ডিবি ওসি বাবুল আক্তার সহ পুলিশের উদ্বোধন কর্মকর্তা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছেন।সাতক্ষীরা সদর থানার ওসি কাইয়ুম জানান, গলাকাটা লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। তবে তার মাথা পাওয়া যায়নি। ইতিমধ্যে অভিযান শুরু হয়েছে।এই হত্যাকাণ্ডের ঘটনা উদঘাটনের চেষ্টা করছে পুলিশ।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here