স্টাফ রিপোটার: ঢাকা জেলার সাভার উপজেলার ইউনিয়ন গুলোতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অধীনে ২০১৫-১৬ ও ২০১৬-১৭ অর্থ বছরের ইউনিয়ন প্রকল্পগুলির বিপরিতে বরাদ্দ প্রায় ২৯ কোটি ৬৫ লাখ টাকা । উক্ত টাকা ব্যয়ে ২০টি ব্রিজ, ৮টি কালভার্ট, ১টি বন্যা আশ্রয় কেন্দ্র, ১৬০টি ইজিপিপি প্রকল্প, সোলার স্ট্রিট লাইট ৩০০টি, গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার/রক্ষনাবেক্ষন কাবিখা/কাবিটা/টিআর ১১৩১ টি প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে ।এছাড়াও প্রাথমিক ও উচ্চমাধ্যমিক,১০০টি বিদ্যালয়ে মাল্টিমিডিয়া সেট ও বিজ্ঞানাগারের যন্ত্রপাতি প্রদান করা হয়েছে।প্রকল্পগুলি চাল,গম ও নগদ অর্থের মাধ্যমে গ্রামীণ অবকাঠামো রক্ষণাবেক্ষণ প্রকল্প (টিআর),অতিদরিদ্রদের জন্য কর্মসংস্থান কর্মসুচি প্রকল্প, গ্রামীণ অবকাঠামো সংস্কার প্রকল্প (কাবিটা), সোলারহোম সিস্টেম, সেতু-কালভার্ট নির্মাণ প্রকল্প, গ্রামীন সড়কের রাস্তা মাটি ভরাট ও ইট সলিং রাস্তা, মসজিদ, মাদ্রাসা,মক্তব, মন্দির ও বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের মাঠ ভরাট,খালের উপর ব্রীজ নির্মাণ,জনগুরুত্বপূর্ণ গ্রামীণ অবকাঠামো ও সড়ক উন্নয়ন কর্মসূচীর আওতায় এসব প্রকল্প কাজ করা হয়েছে।
উপজেলা উপ-সহকারী প্রকৌশলী মোঃ জাহাঙ্গীর আলম জানায়,শিমুলিয়া ইউনিয়নের গোহাইলবাড়ী ও রাঙ্গামাটি খালের উপর ব্রীজ নির্মাণ,ধামসোনা ইউনিয়নের মাঝাইল,বাশবাড়ী,ডেন্ডাবর খালসহ উনাইল মাদ্রাসার রাস্তায় সংযোগ সড়কের উপর কালভার্ট নির্মাণ কাজ সমাপ্ত হয়েছে।আশুলিয়া ইউনিয়নে টংগাবাড়ী ইপিজেড রাস্তা উন্নয়ন, শ্রী খন্ডিয়া ছালেহা ইদ্রিস প্রথমিক বিদ্যালয়ে এবং নয়াপাড়া কেন্দ্রীয় জামে মসজিদে সোলার প্যানেল স্থাপন এছাড়াও অন্যান্য অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়েছে।পাথালিয়া ইউনিয়নে গকুলনগর বায়তুল আখের কবরস্থান উন্নয়ন,বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানে সোলার প্যানেল হোম সিস্টেম ও স্ট্রীট লাইট স্থাপন এবং গকুলনগর হতে কুরগাঁও রাস্তায় ব্রীজ নির্মান সহ অনেক প্রকল্প বাস্তবায়ন করা হয়।এছাড়াও কাউন্দিয়া ইউনিয়নে একটি আধুনিক বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র নির্মাণসহ অন্যান্য ইউনিয়ন ভাকুর্তা,আমিনবাজার, বিরুলিয়া,সাভার,সকল ইউনিয়ন সমূহে উল্লেখযোগ্য পরিমান কাজ বাস্তবায়ন হয়েছে।
এ ব্যাপারে ধামসোনা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ সাইফুল ইসলাম জানায়,দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অধিনে ব্রীজ ও রাস্তাসমূহ নির্মাণ করার পরে এলাকার প্রতিটি পরিবারের মুখে হাসি ফুটেছে।তিনি এক প্রশ্নের জবাবে বলেন, বাস্তবায়নাধীন অধিকাংশ উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ প্রায় ৭৫ থেকে ৮০ শতাংশ শেষ হয়েছে।বর্তমান সরকারের দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন অধিদপ্তরের অধীনে এসব প্রকল্প গুলো বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।

দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের অধিনে প্রকল্প বাস্তবায়ন ব্যাপারে জানতে চাইলে কাউন্দিয়া ইউনিয়নে পরিষদের চেয়ারম্যান মোঃ আতিকুর রহমান শান্ত জানায়,বর্তমান সরকারের আমলে আমার এলাকায় কাউন্দিয়া শহিদ স্মৃতি উচ্চবিদ্যালয়ে একটি আধুনিক বন্যা আশ্রয়কেন্দ্র নির্মানে অত্র এলাকা বন্যাকবলিত হলে এলাকার সকলে সেখানে আশ্রয় নিতে পারবে এবং বাকি সময়ে সেটি বিদ্যালয়ের ভবন হিসেব ব্যবহার করা হয় সেজন্য এলাকাবাসি অনেক সন্তুষ্ট।এরই ধারাবাহিকতায় জননেত্রী শেখ হাসিনার বাংলাদেশ উন্নয়নের রোল মডেলে পরিনত হয়েছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা মোহাম্মদ একরামুল হক জানায়,স্থানীয় সুশীল সমাজের অভিমত দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয় আওতাধীন অধিদপ্তরের অধীনে বাস্তবায়নাধীন বিভিন্ন প্রকল্পের নির্মাণ কাজ শেষ হলে গ্রামীণ জনপদের সড়ক যোগাযোগের অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হওয়ার পাশা-পাশি আর্থ-সামাজিক উন্নয়নে প্রসার হবে।বর্তমান সময় পর্যন্ত সাভার উপজেলার, শিমুলিয়া, বিরুলিয়া, ধামসোনা, পাথালিয়া, ইয়ারপুর, আশুলিয়া, বনগাঁও ইউনিয়েনে প্রায় ২৯ কোটি ৫৬ টাকা ব্যয়ে সকল প্রকল্প ইউনিয়নের গ্রামিন উন্নয়নের সরকারের অগ্রগতি বাস্তবায় ও ১০৪কি: মি: সড়ক রক্ষানা বেক্ষনের কাজ সম্পন্ন করা হয়েছে।অবশিষ্ট সড়ক মেরামত ও রক্ষানা বেক্ষনের কাজ চলমান।এবং অন্যান্য উন্নয়ন প্রকল্পের কাজ সমাপ্তির পথে রয়েছে।বর্তমান সরকারের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার ও উন্নায়নের অগ্রগতির ধারা বজায় রাখতে একটি শক্তিশালী যোগাযোগ ব্যবস্থা গড়ে তোলার লক্ষে অদম্য গতিতে কাজ করে যাচ্ছি। দেশের প্রত্যন্ত গ্রাম অঞ্চলের সংস্কার ও উন্নয়নের কাজগুলো দ্রুত গতিতে অব্যাহত আছে।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here