মোর্শেদ আলী মারুফ :

 

সাভার বিরুলিয়ায় সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড কোম্পানির অংশীদারদের দ্বন্দ্বে গোলাগুলির ঘটনা ঘটেছে এ ঘটনায় গুলিবিদ্ধ তিন জন সহ আরো হতাহতের ঘটনা ঘটে।

বুধবার ৩১শে আগস্ট বিকাল সাড়ে পাঁচটার দিকে সাভার বিরুলিয়া এলাকায় সিটি ইউনিভার্সিটি সংলগ্ন সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড নামে কোম্পানিতে এই গুলাগুলির ঘটনা ঘটে।

এ ঘটনায় তিন জনকে আটক রাখা হয়, তবে তাদের পরিচয় এখনো পাওয়া যায়নি। তিনজনের মধ্যে একজনের নাম মোঃ রিপন (৪০) তিনি এই কারখানার ফ্লোর ইনচার্জ, তবে তিনি সহ বাকিদের পরিচয় পাওয়া যায়নি, রিপন বর্তমানে সাভার এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন রয়েছে।

আহত অবস্থায় আরেকজনের পরিচয় পাওয়া গেছে মোঃ নজরুল ইসলাম পিতঃ মোঃ নুরুল ইসলাম, গ্রামঃ সন্দীপ, থানাঃ আশুলিয়া, জেলাঃ ঢাকা। নজরুল ইসলাম সিমটেক্স ইন্ডাস্ট্রিজ লিমিটেড এর কোয়ালিটি অডিটর হিসাবে কর্মরত আছে।
স্থানীয়রা জানান বিকালে ওই কোম্পানির অংশীদারদের মধ্যে দ্বন্দ্বের সৃষ্টি হয়।

এ সময় তাদের মধ্যে গোলাগুলির ঘটনা ঘটে। এঘটনায় তিনজন গুলিবৃদ্ধি হলে তাদেরকে উদ্ধার করে হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।

বিরুলিয়া ইউনিয়নের ইউপি সদস্য, তাজুল ইসলাম বলেন অবসরপ্রাপ্ত,কর্নেল আনিস ওই কারখানার অংশীদার ছিলেন, নানান অনিয়মের কারণে তার মালিকানা বাতিল করা হয়,পরে তিনি বুধবার বিকালে গানম্যান ও দলবল নিয়ে কারখানা দখল করতে আসেন ।

দখল করতে এসে গুলি করলে তিনজন গুলিবিদ্ধ হন, এঘটনায় তিনজনকে আটকে রাখা হয়েছে। কারখানার সুপার ভাইজার মামুন বলেন কারখানায় গত এক সপ্তাহ থেকে ঝামেলা চলছে। বুধবার বিকালে কারখানায় আগের চেয়ারম্যান এসে গুলি করেছে, আমার ফ্লোর ইনচার্জের পায়ে গুলিবিদ্ধ হয়েছে, আমি তাকে এনাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নিয়ে এসেছি তারপর থেকে আমি কিছু জানিনা। গুলিবিদ্ধ ফ্লোর ইনচার্জ রিপনের সাথে কথা বলার চেষ্টা করলে তিনি কথা বলতে পারেন নাই।

এ বিষয়ে অবসরপ্রাপ্ত কর্নেল আনিসের সাথে যোগাযোগ করার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। সাভার মডেল থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মমিনুল ইসলাম বলেন আমি অন্য ঘটনায় আছি এবিষয় আমার জানা নাই। বিরুলিয়া পুলিশ ফাঁড়ির ইনচার্জ,এস,আই,দিদার বলেন একটু পরে বিস্তারিত জানানো হবে, এখন কিছু বলতে পারছি না।

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here