সুন্দরবনে ঘূর্ণিঝড় আম্পানের আক্রমণ, ২০ ফিটের উপরে প্রবাহিত হচ্ছে জলোচ্ছ্বাস

 

 

এ.কে.এম এনামুল হক মোল্লা, খুলনা থেকেঃ

 

 

সুন্দরবন সংলগ্ন এলাকা দিয়ে বাংলাদেশে প্রবেশ করে অতিপ্রবল ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এখন খুলনা ও বাগেরহাটের মোংলায় অবস্থান করছে।এর প্রভাবে এ অঞ্চলে ভারী বর্ষণের সঙ্গে বইছে ঝড়ো বাতাস।

সুন্দরবনে পানি প্রায় ২০ ফিট উপর দিয়ে অতিবাহিত হচ্ছে।

দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশের সাথে সুন্দরবন কটকা কচুখালী ফরেস্টার আব্দুল কুদ্দুসের সাথে কথা হলে তিনি জানান, আমাদের এখানে প্রচন্ড ঝড় ও বৃষ্টি হচ্ছে জলোচ্ছ্বাস প্রায় ২০ ফিট উপরে প্রবাহিত হচ্ছে, হরিণ, বুনো শুকর সহ অন্যান্য প্রাণী ফরেস্টের রেস্ট হাউজের নিচে আশ্রয় নিয়েছে। অন্যদিকে বন্যা শুরু হওয়ার আগেই সুন্দর বনের জেলে, মাওয়ালী, মধু আহরণকারী এবং আশেপাশের লোকজনকে আমরা নিরাপদ স্থানে নিয়ে এসেছি।

এদিকে খুলনা আঞ্চলিক আওহাওয়া অফিস জানিয়েছে, বুধবার (২০ মে) রাত ৮ টার দিকে  ঘূর্ণিঝড় আম্পান প্রবল আঘাত হানা শুরু করে।

তিনি বলেন, সন্ধ্যার পর পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূলীয় এলাকায় (সুন্দরবন এলাকা) অবস্থান করছিল। ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার। যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়া আকারে ১৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। তবে ধীরে ধীরে এর শক্তি হ্রাস পাবে।

ঘূর্ণিঝড়ের প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন সাগর এলাকা উত্তাল রয়েছে। মোংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ১০ (দশ) নম্বর এবং চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার সমুদ্র বন্দরকে ৯ (নয়) নম্বর মহাবিপদ সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

আবহাওয়া অধিদপ্তরের এক বিশেষ বিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, উত্তরপশ্চিম বঙ্গোপসাগর ও তৎসলগ্ন উত্তরপূর্ব বঙ্গোপসাগর এবং পশ্চিমমধ্য বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ আরও উত্তর-উত্তরপূর্ব দিয়ে অগ্রসর হয়ে বিকেল ৪টা নাগাদ সাগর দ্বীপের পূর্বপাশ দিয়ে পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূল অতিক্রম শুরু করে।

এটি সন্ধ্যা ৬টায় পশ্চিমবঙ্গ-বাংলাদেশ উপকূলীয় এলাকায় (সুন্দরবন এলাকা) অবস্থান করছিল। এটি আরো উত্তর-উত্তরপূর্ব দিতে অগ্রসর হয়ে পরবর্তী ৩ থেকে ৪ ঘণ্টার মধ্যে উপকূল অতিক্রম সম্পন্ন করতে পারে বলে বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়।

অধিদম্পতর বলছে, ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৭৪ কিলোমিটারের মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ১৬০ কিলোমিটার। যা দমকা হাওয়ার আকারে ১৮০ কিলোমিটার পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। ‘আম্পান’ এর প্রভাবে উত্তর বঙ্গোপসাগর ও তৎসলগ্ন এলাকা উত্তাল রয়েছে।