নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

রাজধানীর ধানমন্ডির শুক্রাবাদ এলাকায় সংঘবদ্ধ ধর্ষণের শিকার সেই বিউটিশিয়ান এখন ঢাকা মেডিকেল হাসপাতালে ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) চিকিৎসাধীন আছেন। বৃহস্পতিবার (১৩ অক্টোবর) সকালে তার বিভিন্ন ধরনের পরীক্ষা করা হয়েছে এবং আরো কিছু পরীক্ষা চলছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে ওসিসির সমন্বয়ক ডা. বিলকিস বেগম বলেন, বিউটিশিয়ান নারীর ফরেনসিক পরীক্ষা সম্পন্ন হয়েছে। এছাড়া ডিএনএ নমুনা সংগ্রহ করা হয়েছে।

যেহেতু ওই নারী অন্তঃসত্ত্বা আল্ট্রাসনোগ্রাম পরীক্ষা বাকি আছে। সেটা করা হচ্ছে, সেটার রিপোর্ট দেখে বোঝা যাবে পেটের বাচ্চার কী অবস্থা।

তিনি বলেন, এছাড়া তিনি খুব কান্নাকাটি করছেন। তাই তাকে কাউন্সিলিং করার প্রস্তুতি চলছে।

এর আগে, বৃহস্পতিবার এ ঘটনায় দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করে পুলিশ।

শেরে-বাংলা নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল বড়ুয়া জানান, এ ঘটনায় শেরে-বাংলা নগর থানায় মামলা করেছেন ধর্ষণের শিকার ওই নারীর স্বামী। এই মামলায় দুই অভিযুক্তকে গ্রেফতার করা হয়েছে। আমাদের অভিযান চলছে। বিস্তারিত পরে জানানো হবে।

বুধবার (১২ অক্টোবর) বিকেলে ওই বিউটিশিয়ানকে ঢাকা মেডিকেল কলেজ (ঢামেক) হাসপাতালের ওয়ান-স্টপ ক্রাইসিস সেন্টারে (ওসিসি) ভর্তি করা হয়। তিনি পাঁচ মাসের অন্তঃসত্ত্বা বলে জানিয়েছেন চিকিৎসকরা।

এর আগে, মঙ্গলবার (১১ অক্টোবর) সন্ধ্যায় এক তরুণী ওই বিউটিশিয়ানকে ফোন করে কাজ করাবেন বলে ধানমন্ডি ২৮ নম্বরে আসতে বলেন। সে অনুযায়ী ওই বিউটিশিয়ান ধানমন্ডি ২৮ নম্বরে যান। সেখান থেকে ওই তরুণী তাকে শুক্রাবাদের একটি বেসরকারি হাসপাতালের পাশের গলির একটি বাড়ির দোতলার বাসায় নিয়ে যান। ওই বাসায় থাকা কয়েকজন পুরুষ ভিকটিমকে মারধর করেন। পরে তারা মিলে ধর্ষণ করেন।

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here