আব্দুল্লাহ আল মামুন, সৌদিআরব প্রতিনিধি :

 

সৌদিআরবে জেদ্দা শহরের বেষ্ট গ্রুপ কোম্পানির ম্যান পাওয়ার সাপ্লাইয়ার মো: সোহেল আহম্মদের (৪০)বিরুদ্ধে অসংখ্য বাংলাদেশি সৌদি প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ আত্মসাৎতের অভিযোগ উঠেছে I

অভিযোগে জানা যায়, সৌদিআরবের জেদ্দা শহরে মো: সোহেল আহম্মদ (৪০)নামে এক ব্যক্তি ম্যান পাওয়ার বিজনেস অফিস খুলে নিরিহ সাধারণ বাংলাদেশি নাগরিকদের বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ ব্যবস্থা করে তাদের বেতনের সম্পূর্ণ টাকা উত্তোলন করে প্রতারিত করছেন I

অভিযোগে উঠে এসেছে তার বিরুদ্ধে ভয়াবহ সব তথ্য, মো: সোহেল আহম্মদ (৪০)বাংলাদেশের মুন্সিগঞ্জ জেলার বিক্রমপুর এলাকার বাসিন্দা, আজ থেকে প্রায় ১৫ বছর আগে লেবার ভিসায় তিনি সৌদিআরব পাড়ি জমান, নিজের বুদ্ধিমত্তা আর শিক্ষাকে কাজে লাগিয়ে আয়ত্ত করেন মানুষকে প্রতারিত করার সব কৌশল I এমন কোন খারাপ কাজ, নেশা আর অবৈধ ব্যবসা নাই যা করেন না এই সোহেল আহম্মদ, সৌদিআরবে বিলাসী জীবনযাপনসহ বাংলাদেশে রয়েছে তার কোটি কোটি টাকার সম্পদ আর বাড়ি গাড়ি, যার অধিকাংশই তিনি গড়েছেন সৌদিআরবের প্রবাসীদের কষ্টার্জিত অর্থ আত্মসাৎ আর প্রতারিত করে I

এক অভিযোগে সৌদিআরবে কর্মরত টাঙ্গাইল জেলার হিজ্জোতউল্লা (৫৫)বলেন, গত ৮মাস আগে আমিসহ আরো দশ জনের একটি বাংলাদেশি প্রবাসী ভাইদের কাজ দেবার কথা বলে ইয়ানবু শহরের উমলুজ এলাকার রেডসি প্রজেক্টের একটি কোম্পানিতে ডাকের (এসি) কাজের কথা বলে নিয়ে যান এবং সেখানে আমরা কাজ করার পরে আমাদের পাওনা অর্থ এখন পর্যন্ত পরিশোধ করেনি, তাকে ফোন করলেও ফোন রিসিভ করে না, কোথায় আছে তাও জানি না I

আরও অভিযোগ করেন, লক্ষীপুর জেলার রায়পুরের মো: আলমঙ্গীর, মো: তারেক, মাহবুব আলাম, মো: সাইমুন, তৌহির আলম, টাঙ্গাইল জেলার মৌরসালিন চয়ন,শাহিন সিকদারসহ আরোও অনেকে I অভিযোগে শাহিন সিকদার বলেন, সোহেলের সাথে আমাদের কাজের কোন প্রমাণ পত্র না থাকায় আমরা সোহেলের বিরুদ্ধে সৌদি আইনে কোন ব্যবস্থা নিতে পারছি না, তাই জেদ্দায় অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাসের কর্মকর্তাদের এই বিষয়ে ব্যবস্থা নিতে অনুরোধ করছি I

প্রবাসীদের অর্থ আত্মসাৎকারী অভিযুক্ত সোহেল আহম্মদকে তার বক্তব্য গ্রহণ করার জন্য দীর্ঘ দিন ধরে অনবরত তার মুঠো ফোনে কল করে এবং ক্ষুদে বার্তা পাঠিয়েও তার সাথে যোগাযোগ করা সম্ভব হয়নি I

 

 

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here