বুধবার, ০৭ ডিসেম্বর ২০২২, ০৭:০৭ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :

হারিয়ে যাচ্ছে মুল্যবান উদ্ভিদ আকন্দ

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ১২ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮
  • ১৩ Time View

বদরগঞ্জ (রংপুর) প্রতিনিধিঃ বদরগঞ্জ উপজেলা সদর হতে কয়েক কিলোমিটার দুরে গিয়েও রাস্তার দু-ধারে আকন্দ নামের মহামুল্যবান ভেষজ উদ্ভিদটির দেখা না পেয়ে চারদিকে এর খোঁজ করতে থাকি। হঠাৎ মুল্যবান এই উদ্ভিদটির দেখা মেলে উপজেলার রামনাথপুর ইউপির ঝাকুয়াপাড়া গ্রামের রেল লাইন সংলগ্ন এলাকায়। অথচ এক সময় আকন্দ নামের এই উদ্ভিদটি প্রকৃতির কোলে অবহেলা আর অনাদরে আপনা আপনি বেড়ে ওঠতো। এর অবদান মনুষ্য সমাজে অনেকখানি হবার পরও এর খোঁজ আমরা তেমন রাখি না। আর যে সমস্ত এলাকায় দেখা মেলে তারাও এর গুরুত্ব না দিয়ে জ্বালানি হিসেবে কেটে সাবাড় করে দিচ্ছে। ফলে ক্রমান্বয়ে প্রকৃতি হতে প্রতিনিয়ত একটি একটি করে মুল্যবান উদ্ভিদরাজি হারিয়ে যাচ্ছে।
আকন্দের বৈজ্ঞানিক নাম-ক্যালোট্রপিস প্রোসিরা,গোত্রের নাম-এসক্লিপিয়েডেসি। গাছটির উচ্চতা-৩-৬ ফিট। পাতা রোমশ ধরনের, পাতা ও ডাল হতে দুধের মত সাদা রংয়ের রসালো আটা বের হয়। মুল্যবান ভেষজগুন সম্পন্ন আকন্দ উদ্ভিদটির পাতা ব্যাথানাশক হিসেবে অত্যন্ত কার্যকর ভুমিকা রাখে।
আকন্দ উদ্ভিদ সম্পর্কে কথা হয় রামনাথপুর ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান ও প্রবীন ব্যক্তি মহিউদ্দিন প্রামানিকের(৮৬)সাথে, তিনি জানান; দেশিয় প্রজাতির ভেষজগুন সম্পন্ন এ গাছটি আগে আমাদের বাড়িসহ যেখানে সেখানে পাওয়া যেত। জ্বালানি সংকটের কারনে গাছটিকে কেটে জ্বালানি হিসেবে ব্যবহার করায় আকন্দ গাছ আর চোখে পড়ছে না। গাছটি এখন অস্তিত্ব সংকটে।
তিনি আরও জানান; অবহেলা আর অনাদরে বেড়ে ওঠা গাছটি প্রকৃতির একটি অমুল্য সম্পদ। ব্যথানাশক হিসেবে খুবই কার্যকর। গাছটি যাতে প্রকৃতি হতে হারিয়ে না যায় সে দিকে দৃষ্টি দেয়া প্রয়োজন।
গ্রাম্য কবিরাজ মহব্বত আলি(৬৮) জানান;অনেক খোঁজাখুঁজির পর রেললাইনের ধারে গাছটি পেলাম। একজন বাতের রোগির জন্য গাছটির পাতা আমার ভীষন দরকার ছিল। এখান হতে পাতা নিয়ে যাচ্ছি,ঔষধ তৈরি করবো।
বদরগঞ্জ মহিলা ডিগ্রি কলেজের উদ্ভিদ বিদ্যা বিভাগের সহকারি অধ্যাপক আমিনুল ইসলাম জানান;নতুন প্রজন্মের ছেলে মেয়েরা দেশিয় প্রজাতির আকন্দ নামের উদ্ভিদটিকে চেনে না এবং জানে না এর গুনাগুন সম্পর্কে। মানুষের নানা রোগ নিরাময়ে আকন্দ উদ্ভিদ কার্যকর ভুমিকা রাখে। অথচ আমরা ভেষজ গুন সম্পন্ন উদ্ভিদটিকে কেটে সাবাড় করে ফেলছি। আকন্দ উদ্ভিদটিকে যদি আমরা না বুঝে জ্বালানি হিসেবে কেটে শেষ করি তাহলে প্রকৃতি হতে ভেষজগুন সম্পন্ন উদ্ভিদটি একদিন চিরতরে হারিয়ে যাবে।
তিনি আরও জানান;আমাদের নিজেদের প্রয়োজনে দেশিয় প্রজাতির মহামুল্যবান ভেষজগুন সম্পন্ন উদ্ভিদটিকে আমাদেরই সংরক্ষন করতে হবে। আমাদের মত শিক্ষকদের উচিত হবে, শিক্ষার্থীদের মুল্যবান এ উদ্ভিদটির সাথে পরিচিত করে দেয়া এবং এর গুনাগুন সম্পর্কে অবগত করা।
বদরগঞ্জ উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা মাহবুবর রহমান জানান; আকন্দ উদ্ভিদটিকে আর আগের মত পাওয়া যায় না। মুল্যবান ভেষজ গুন সম্পন্ন দেশিয় প্রজাতির এ উদ্ভিদটিকে আমাদের স্বার্থেই রক্ষা করতে হবে, তা না হলে এক সময় প্রকৃতি হতে হারিয়ে যাবে আকন্দ নামের মুল্যবান উদ্ভিদটি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়

Headlines