২ জন চিকিৎসকসহ নতুন আক্রান্ত ৪ জন

 প্রাণের বাংলাদেশ ডেস্ক :

 

দুইজন চিকিৎসকসহ দেশে নতুন করে চারজন নভেল করোনাভাইরাস বা কভিড-১৯ রোগে আক্রান্ত হয়েছেন। এ নিয়ে দেশে মোট আক্রান্তের সংখ্যা দাঁড়ালো ৪৮ জনে।

শুক্রবার স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠানের (আইইডিসিআর) পরিচালক ডা. মীরজাদী সেব্রিনা ফ্লোরা করোনাভাইরাস নিয়ে অনলাইনে নিয়মিত সংবাদ ব্রিফিংয়ে এ তথ্য জানান।

আক্রান্ত চারজনের মধ্যে একজন পুরুষ, তিনজন নারী। এরা চিহ্নিত রোগীর সংস্পর্শে এসেছিলেন। চারজনের মধ্যে দুইজন ঢাকার ভেতর ও দুইজন ঢাকার বাইরে।

আক্রান্তদের মধ্যে একজনের বয়স ২০ থেকে ৩০ এর মধ্যে। ৩১ থেকে ৪০ এর মধ্যে একজন, ৪১ থেকে ৫০ এর মধ্যে একজন ও ৫১ থেকে ৬০ এর মধ্যে একজন রয়েছে বলে তিনি জানান।

তিনি বলেন, ‘গত ২৪ ঘণ্টায় আইইডিসিআরের হটলাইনে ফোন এসেছে তিন হাজার ৩২১টি। এই সময়ের মধ্যে ১০৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।’

এখন পর্যন্ত মোট এক হাজার ২৬ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, ‘এর মধ্যে নতুন করে পরীক্ষা করা ১০৬ জনের নমুনার মধ্যে চার জনের শরীরে ভাইরাসের উপস্থিতি নিশ্চিত হওয়া গেছে।’

তিনি আরো জানান, নতুন আক্রান্ত চার জনের মধ্যে একজনের বয়স ২০ থেকে ৩০, একজনের বয়স ৩১ থেকে ৪০, একজনের বয়স ৪১ থেকে ৫০ এবং আরেকজন পঞ্চাশোর্ধ্ব।

নতুন চার রোগীর দুইজন ঢাকার ও দুইজন ঢাকার বাইরের বাসিন্দা। এদের দুইজনের শারীরিক আরো কিছু জটিলতা থাকলেও সকলেই সুস্থ আছেন বলেও জানান আইইডিসিআর পরিচালক।

আছাড় তিনি জানান, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাস মোকাবিলায় সারাদেশে ৪৭ হাজারের বেশি মানুষ হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় রয়েছেন। সেই সঙ্গে আগে থেকে কোয়ারেন্টাইনে থাকাদের মধ্যে ছাড় পেয়েছেন ১৬ হাজার ৫শ ৬৪ জন।

গত এক সপ্তাহে হোম কোয়ারেন্টাইনের আওতায় এসেছেন ৩০ হাজার ১৬৭ জন। এরমধ্যে গত ২৪ ঘণ্টায় এসেছেন চার হাজার ৭৫ জন। এই সময়ে ছাড়পত্র পেয়েছেন তিন হাজার ৭৪৩ জন।

প্রসঙ্গত, গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনা রোগী শনাক্ত হয়। সেদিন তিনজনের শরীরে করোনা শনাক্ত করা হয়েছে বলে জানায় আইইডিসিআর। এরপর আরও ৪৪ জনের শরীরে করোনা পাওয়া যায়। তাদের মধ্যে মারা যায় পাঁচজন।