Amar Praner Bangladesh

অলিগলিতে মানুষের আড্ডা, সড়কেও ভিড়

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

মহামারি করোনাভাইরাসের (কোভিড-১৯) সংক্রমণ নিয়ন্ত্রণ সরকার ঘোষিত কঠোর বিধিনিষেধের সপ্তম দিন চলছে। এদিন রাজধানীর অলিগলিতে যেমন মানুষের আড্ডা চলছে, তেমনি মানুষের ভিড় লক্ষ্য করা গেছে সড়কেও।

বুধবার (৭ জুলাই) রাজধানীর চানখারপুল, গুলিস্তান, নয়াপল্টন, কাকরাইল, শান্তিনগর, শাহবাগ ঘুরে এই চিত্র দেখা গেছে।

রাজধানীর চানখারপুল এলাকা। চানখারপুল মোডে রয়েছে পুলিশের চেক পোস্ট। তবে প্রধান সড়কে চেকিং থাকায় রাস্তায় যতটা না মানুষ তার চেয়ে কয়েকগুণ বেশি মানুষ নাজিমউদ্দিন রোডে। এই রোডে সকাল থেকে মধ্যরাত পর্যন্ত অলিগলিতে চলে জটলা দিয়ে আড্ডা। যেন দেখার কেউ নেই।

নাজিমউদ্দিন রোডের স্বপ্ন সুপার মার্কেটের পাশে কয়েকটি দোকানে জটলা দেখে এগিয়ে যেতেই একজন বলে ওঠেন। ‘বাইরে পুলিশ আছে কি না দেখেন। আর না থাকলে ভেতরে এসে বসেন।’ এভাবে দোকানগুলোতে আড্ডা চলছে। চায়ের দোকান থেকে মুদি দোকান- নাজিমউদ্দিন রোডের সবখানে আড্ডা আর জটলা।

গুলিস্তান এলাকা ঘুরে দেখা গেছে, প্রধান সড়কে যেমন মানুষের জটলা, তেমনি রয়েছে অলিগলিতেও মানুষের ভিড়। তবে সবাই আইনশৃঙ্খলা বাহিনী আছে কি না সেটা দেখেই সবাই আড্ডা দিচ্ছেন। যখনই পুলিশ বা সেনাবাহিনীর গাড়ি আসছে তখনই শাটার বন্ধ করে দিচ্ছে। আবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনী চলে যাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই শাটার খুলে আড্ডা শুরু। আর এভাবেই যেন চোর পুলিশের খেলা চলছে।

রাজধানীর শান্তিনগর এলাকায় গিয়ে দেখা গেছে, প্রধান সড়কে পুলিশের চেকিং। যারা বের হচ্ছেন সবাইকে চেকিং করা হচ্ছে। তবে শান্তিনগরের খাবারের দোকানগুলোতে সারি সারি জটলা। যেন কেউ কিছুই ভাবছে না। আর করোনাকালে স্বাস্থ্যবিধির বালাই নেই বললেই চলে।

এদিকে সকাল থেকেই শাহবাগ এলাকায় ছিল পুলিশ ও সেনাবাহিনীর চেকিং। সবাইকে জিজ্ঞাসাবাদ করে ছাড়া হচ্ছে। উত্তর সন্তোষজনক না হলে আটকে রাখা হচ্ছে। তবে অলি-গলিতে কে দেখবে? সেদিকে যেন কারও কোনো খেয়াল নেই। বঙ্গবন্ধু হাসপাতালের পেছনে চলছে কয়েকটি দোকানে আড্ডা। আবার হাসপাতালের গেইটের সামনেও সারি সারিভাবে দাঁড়িয়ে আড্ডা দিচ্ছে মানুষ। কারও মুখে মাস্ক আছে, আবার কারও মুখে নেই। সেদিকে তাদের কোনো ভ্রক্ষেপ নেই। এভাবেই চলছে বিধিনিষেধের সপ্তম দিন।