বৃহস্পতিবার, ২৩ মার্চ ২০২৩, ০৮:১৭ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
গাজীপুরে মেয়র পদপ্রার্থী রাসেল সরকারের উদ্যোগে ইফতার সামগ্রী বিতরণ নড়াইলে চোর চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেফতার, জেলা পুলিশ সুপারের সংবাদ সম্মেলন মানিকগঞ্জে বিশ্ব পানি দিবস উপলক্ষে আলোচনা সভা ইএসডিও-রেসকিউ প্রকল্পের উদ্যোগে উদ্যোক্তা ও স্টেকহোল্ডারদের মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত পবিত্র মাহে রমজান ও আসন্ন ঈদ-উল ফিতর উপলক্ষে আইন শৃংঙ্খলা ও নিরাপত্তা সংক্রান্ত মতবিনিময় সভা সমাজের সকল মতাদর্শের মানুষের কাছে একজন দক্ষ ও পরিশ্রমী চেয়ারম্যান খোকা স্কুল ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি বাচ্চু মন্ডলের পদত্যাগ দাবীতে শিক্ষার্থীদের মিছিল সাতক্ষীরায় ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমির দলিল ও চাবি হস্তান্তর বাগেরহাটের মোংলায় আ’লীগ নেতার বিরুদ্ধে কৃষি জমি দখলের অভিযোগ, প্রতিবাদে এলাকাবাসীর বিক্ষোভ শ্রীবরদীতে ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারের মাঝে জমিসহ গৃহ হস্তান্তর

অসাধু প্রশাসনের আতাতে দেশে বসেছে প্রতারণার মেলা

Reporter Name
  • Update Time : সোমবার, ২৯ মার্চ, ২০২১
  • ৫০ Time View

 

(খাদ্য ও ঔষধ ভেজাল, করোনা, শিক্ষা ও স্বাস্থ্যখাতে, বিয়ে, বিদেশ পাঠানো, জ্বীনের বাদশার, পিলার, ভূমিদস্যু-জমি জালিয়াতী, ফ্ল্যাট, নিয়োগ বাণিজ্য, বিকাশ, ফেসবুক, ভন্ডপীর, ছদ্মবেশী প্রতারণা, ভোটার আইডি কার্ড জালিয়াতি, এমএলএম ও অনলাইনে ব্যবসা, ছবি বাণিজ্য, সেল্ফি এসব ক্ষেত্রে প্রতারণা। প্রশাসন বলছে, মূলত লোভের ফাঁদে পড়েই মানুষ বেশি প্রতারিত হচ্ছেন। এছাড়া অজ্ঞতাও একটি কারণ। তবে প্রতারণা থেকে বাঁচতে সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। তবে অপরাধ বিশ্লেষকরা মনে করছেন, প্রতারণার ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঢিলেমি ও অসৎ কর্মতৎপরতা প্রতারকদের সাথে আতাত ও রাজনৈতিক মদদ একটি বিষয়।)

 

শের ই গুল :

 

আইন শৃঙ্খলা বাহিনী ও দেশের চলমান সকল আইনকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখিয়ে প্রতারক কু-চক্রী গোষ্ঠী প্রতারণার জাল ছড়িয়ে মানুষ ঠকিয়ে হাতিয়ে নিচ্ছে অর্থ ও সম্পদ। খাদ্য ও ঔষধ ভেজালে প্রতারণা, করোনা পরীক্ষা নিয়ে প্রতারণা, বিয়ে করে প্রতারণা, বিদেশ পাঠানোর নামে প্রতারণা, জ¦ীনের বাদশার প্রতারণা, পিলার প্রতারণা, ভূমিদস্যু-জমি জালিয়াতী প্রতারণা, ফ্ল্যাট প্রতারণা, নিয়োগ বাণিজ্য প্রতারণা, বিকাশ প্রতারণা, ফেসবুকে বন্ধু সেজে উপহার দেয়ার নামে প্রতারণা, ভন্ডপীরের প্রতারণা, ছদ্মবেশী প্রতারণা, ভোটার আইডি কার্ড জালিয়াতি প্রতারণা, এমএলএম ও অনলাইনে ব্যবসার নামে প্রতারণা, দেশে চলছে ভিন্ন ভিন্ন পদ্ধতিতে প্রতারণা, বছরজুড়ে আলোচনায় ছিল এমন নানা প্রতারণাকাণ্ড।

অবস্থা দৃষ্টে মনে হয় অসাধু প্রশাসনের আতাতে দেশের সর্বত্র বসেছে প্রতারণার মেলা। পুলিশ বলছে, মূলত লোভের ফাঁদে পড়েই মানুষ বেশি প্রতারিত হচ্ছেন। এছাড়া অজ্ঞতাও একটি কারণ। তবে প্রতারণা থেকে বাঁচতে সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। তবে অপরাধ বিশ্লেষকরা মনে করছেন, প্রতারণার ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঢিলেমি অসৎ কর্মকর্তাদের আতাত ও রাজনৈতিক মদদ একটি বিষয়। জেকেজি ও রিজেন্ট প্রতারণার ক্ষেত্রে এমনটাই দেখা গেছে। আরেকটি বিষয়ও রয়েছে কম সময়ে বেশি লাভবান হওয়ার আশা।

প্রতারকরা এমন লোভ দেখিয়ে শিক্ষিত মানুষদেরও বোকা বানাচ্ছে। এমএলএম ব্যবসা থেকে শুরু করে নানা রকম জালিয়াতি-প্রতারণার ডজন-ডজন মামলার খবর ঢেকে রেখে গুরুত্বপূর্ণ অনুষ্ঠানে ভিভিআইপিদের মাঝখানে হাজির হতে শাহেদসহ অজানা হাজারো শাহেদদের বেগ পেতে হয়নি ও হচ্ছে না। এদের মধ্যে কোন কোন প্রতারক আইনের আওতায় আসলেও জেলখানায় নাকি বহল তবিয়তে থাকে বলা যায় সেখানেও প্রতারণা। সরকারের মন্ত্রী, এমপি, আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীর শীর্ষ কর্মকর্তা ও সরকারি আমলাসহ গুরুত্বপূর্ণ ব্যক্তিদের সঙ্গে তোলা অসংখ্য সেলফি প্রতারকদের ফেসবুক পেইজের শোভা বাড়িয়ে থাকে। করোনা মহামারিতে ছবি বাণিজ্যের অন্যতম প্রতারক নিয়ন্ত্রণাধীন রিজেন্ট হাসপাতালকে এ রোগের চিকিৎসার দায়িত্ব দিয়েছিল সরকার।

তবে কোভিড-১৯ চিকিৎসা ও পরীক্ষা নিয়ে নানা অভিযোগের ভিত্তিতে র‌্যাব তদন্ত শুরু করলে কেঁচো খুঁড়তে সাপ বেরিয়ে আসে। এমএলএম ব্যবসা খুলে গ্রাহকদের টাকা আত্মসাৎ, চাকরির নামে অর্থ নেয়া, ভুয়া নাম-ঠিকানা ব্যবহার করে কো-অপারেটিভ থেকে অর্থ আত্মসাৎ, ব্ল্যাকমেইলসহ নানা প্রতারণার অভিযোগ দেশব্যাপী ছড়িয়ে আছে। অবস্থা দৃষ্টে মনে হয় প্রতারকরা দেশে প্রতারণার রাজত্ব কায়েম করেছে। সিআইডির জালে ধরা পড়ে সাদিয়া জান্নাত ওরফে জান্নাতুল ফেরদৌস (৩৮) নামে এক নারী।

কখনো অবিবাহিত যুবক, কখনো বিপত্নীক, কখনো তালাকপ্রাপ্তা, কখনো নামাজি, আবার কখনো বয়স্কপাত্র চেয়ে বিজ্ঞাপন দিতেন এ নারী। যে পাত্রের জন্য যেমন পাত্রী দরকার তেমন রূপেই নিজেকে উপস্থাপনের চেষ্টা করতেন তিনি। বিশেষ করে ধনাঢ্য পাত্রদের টার্গেট করে বিদেশে নিয়ে যাওয়ার প্রলোভন দিয়েই বেশি প্রতারণা করে টাকা নিতেন। এভাবে গত প্রায় ১০ বছর ধরে শতাধিক পাত্রের সঙ্গে প্রতারণা করে কোটি-কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় জান্নাত।

এভাবে প্রতারণা করে ২০ কোটি টাকার সম্পত্তির মালিক হন এ নারী। এছাড়া ফেসবুকে বন্ধু বানিয়ে উপহার দেয়ার নামেও প্রতারণায় সক্রিয় আছে নাইজেরিয়াসহ আফ্রিকা থেকে আসা বিদেশি নাগরিকসহ অনেক প্রতারকরা। দেশীয় কিছু ব্যক্তির সহায়তায় প্রতারণার ফাঁদে ফেলে কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় তারা। ভোটার আইডি কার্ড জালিয়াতি করেও ঋণ নিয়ে গেল বছর প্রতারণার ঘটনা ঘটে। এ কাণ্ডে নাম আসে জাতীয় নির্বাচন কমিশনে কর্মরত কিছু সদস্যের নামও। এছাড়া ই-কমার্স ব্যবসার নামে মাত্র ১০ মাসে গ্রাহকদের কাছ থেকে ২৬৮ কোটি টাকা হাতিয়ে নেয় ‘এসপিসি ওয়ার্ল্ড এক্সপ্রেস’ নামে একটি মাল্টিলেভেল মার্কেটিং (এমএলএম) কোম্পানি।

প্রতারণায় অভিযুক্ত প্রতিষ্ঠান ডেসটিনির মতো ‘পিরামিড’ পদ্ধতিতে লভ্যাংশ দেয়ার প্রলোভন দেখিয়ে ২২ লাখ গ্রাহকের কাছ থেকে এই বিপুল পরিমাণ অর্থ আত্মসাৎ করেন তারা।

সুনির্দিষ্ট অভিযোগ ও তথ্যানুসন্ধানের পর এই চক্রের ৬ সদস্যকে গ্রেপ্তার করা হয়। প্রতারণার মামলা নিয়ে কাজ করা ডিএমপির গোয়েন্দা শাখার সাইবার এন্ড স্পেশাল ক্রাইম বিভাগের সহকারী কমিশনার প্রাণের বাংলাদেশকে বলেন, মূলত লোভের ফাঁদে পড়েই মানুষ বেশি প্রতারিত হচ্ছেন। এছাড়া অজ্ঞতাও একটি কারণ। অনেকেই প্রতারিত হলেও আইনের সহায়তা নিতে চান না।

তবে প্রতারণা থেকে বাঁচতে সচেতনতার কোনো বিকল্প নেই। মওলানা ভাসানী বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ^বিদ্যালয়ের ক্রিমিনোলজি এন্ড পুলিশ সায়েন্স বিভাগের অধ্যাপক ড. ওমর ফারুক এ প্রতিবেদককে বলেন, কম সময়ে বেশি লাভবান হওয়ার আশাই প্রতারণায় পড়ার একটি বড় কারণ। আমরা অধিকাংশ ক্ষেত্রেই দেখছি, প্রতারকরা তাদের টার্গেটকে লোভের ফাঁদে ফেলে। অনেক শিক্ষিত মানুষকেও আমরা বোকা হতে দেখছি। আরেকটি বিষয়, প্রতারণার ক্ষেত্রে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর ঢিলেমি। কারণ প্রতারণার প্রমাণ না পাওয়া পর্যন্ত কারো বিরুদ্ধে মামলা নেয়ার বিষয়ে আদালতের একটি নির্দেশনা রয়েছে। এ কারণে অনেক ক্ষেত্রেই অভিযোগ নিতে চায় না পুলিশ। এছাড়া রাজনৈতিক ছত্রছায়া। জেকেজি ও রিজেন্ট প্রতারণার ক্ষেত্রে এমনটাই দেখা গেছে। প্রতারণা বন্ধে জনসচেতনতা তৈরির পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারী বাহিনীকে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে হবে।

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়