Amar Praner Bangladesh

আঃ গনি খান প্রধানমন্ত্রীসহ বিভিন্ন দপ্তরে লিখিত অভিযোগ করেন ভুমিদস্যুদের বিরুদ্ধে

 

(ভান্ডারিয়ায় মুক্তিযোদ্ধা ও তার স্ত্রী’র নামে সরকারিভাবে বরাদ্ধকৃত এক খন্ড জমি পেয়েও বসতঘর উত্তোলন করে বসবাস করতে পারেনি, প্রাণনাশের হুমকি দিচ্ছে ভুমিদস্যুরা)

 

 

পিরোজপুর প্রতিনিধি :

 

পিরোজপুর জেলার ভান্ডারিয়া উপজেলার উত্তর শিয়ালকাঠী গ্রামের ০৮ নং ওয়ার্ডের বীর মুক্তিযোদ্ধা আঃ গনি খান ও তার স্ত্রীর নামে সরকারিভাবে বরাদ্ধকৃত এক খন্ড জমি পেয়েও ঘর উত্তোলন করে বসবাস করতে পারেনি, সন্ত্রাসীর ভয়ে গ্রাম ছেড়ে বিভিন্ন এলাকায় বসবাস করে আসছেন তিনি ও তার পরিবার। অনুপায় হইয়া পরিবারটি মাথা গোজার ঠাই ফিরে পাওয়ার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রী, মাননীয় ভূমি মন্ত্রী, বিভাগীয় কমিশনার, জেলা প্রশাসক বরাবরে লিখিত অভিযোগ দিয়েছেন।

মুক্তিযোদ্ধা আঃ গনি খান জানান, আমি ভিটাবাড়ীয়া ইউনিয়ন মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কমিটির “ক” তালিকায় আছি। আমি ১৯৭১ ইং সালে যুদ্ধকালীন কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল আজিজ সিকদার ও মুক্তিযোদ্ধা সংসদ উপজেলা কমান্ডার বীর মুক্তিযোদ্ধা খান এনায়েত করিম এবং অন্যান্য মুক্তিযোদ্ধাদের সাথে মহান স্বাধীনতা যুদ্ধে অংশগ্রহণ করে রণাঙ্গনে যুদ্ধ করি।

আমি একজন প্রকৃত মুক্তিযোদ্ধা। দীর্ঘ নয় বছর পূর্বে আমি ও আমার স্ত্রী সুফিয়া বেগম দুইজনের নামে সরকারিভাবে ভুমিহীনদের জন্য বরাদ্ধকৃত ভান্ডারিয়া থানার অন্তর্গত ১ নং ভিটাবাড়ীয়া ইউনিয়নের উত্তর শিয়ালকাঠী মৌজায় ৩০ শতাংশ জমি পাই এবং সরকারি সার্ভেয়ার সরেজমিনে পরিমাপ করে পিলার দিয়ে সীমানা নির্ধারণ করে আমাকে দখল বুঝাইয়া দেয়। ঐ জমিতে একখানা বসতঘর উত্তোলন করি এবং পরিবার নিয়ে বসবাস শুরু করি।

কিন্তু এলাকার ভূমিদস্যুদের জমিটুকুর উপর কু-নজর পরায় জমিটুকু দখল করার জন্য ওসমান খান, তার দুই ছেলে ইউসুফ খান ও এনায়েত খান সহ অজ্ঞাতনামা ৮/১০ জন ভুমিদস্যু রাতের আধারে আমাদের ভয় ভীতি দেখিয়ে ঘর থেকে তাড়িয়ে দিয়ে উত্তোলনকৃত ঘরটি ভেঙ্গে নদীতে ফেলে দেয়। যাহাতে আমি ও আমার পরিবার ঐ জমিতে বসবাস করতে না পারি সেজন্য তারা সম্পূর্ণ অন্যায়ভাবে অর্থের দাপটে আমাদের বিরুদ্ধে একটি সাজানো মামলা দিয়ে আমার পরিবারকে হয়রানি করে আসছে। বার বার একখানা বসতঘর নির্মাণ করার চেষ্টা করলেও ভুমিদস্যুরা ঐ জমিতে আর যেতে দেয়নি।

তারা জবরদখল করে নেওয়ার জন্য প্রতিনিয়ত আমার ও আমার পরিবারকে দেশীয় অস্ত্র দিয়ে জীবন নাশের হুমকি দিয়ে আসছে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ প্রশাসনের বড় বড় দপ্তরে যারা রয়েছেন তাদের মাধ্যমে যাহাতে এই ভুমিদস্যুদের কবল থেকে জমিটুকু উদ্ধার করে একজন মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে একখানা বসতঘর নির্মাণ করে পরিবার পরিজন নিয়ে শেষ সময়টুকু কাটাতে পারি তাহার সু-ব্যবস্থার করার জন্য মাননীয় প্রধানমন্ত্রীসহ প্রশাসনের কাছে জোর অনুরোধ রইল।