Amar Praner Bangladesh

আজ শামসুল হক চিশতির ওফাত দিবস ১২তম বার্ষিক ওরস

 

আ: রশিদ তালুকদার, টাঙ্গাইল প্রতিনিধি :

 

২০ আগস্ট আধ্যাত্মিক সাধক পীরে কামেল শাহ্ সুফি শামসুল হক চিশ্তির ওফাত দিবস ও ১২তম বার্ষিক ওরস। টাঙ্গাইলে ঘাটাইল উপজেলার লোকেরপাড়ায় তাঁর মাজার প্রাঙ্গণে দিনটি পালন উপলক্ষে নানা কর্মসূচী গ্রহণ করেছে ওরস উদযাপন কমিটি। কর্মসূচীর মধ্যে রয়েছে ধর্মীয় আলোচনা, হালকায়ে জিকির, কোরআন খানি, নফল ইবাদত, বাউল সঙ্গীত পরিবেশন ও শিরনি বিতরন। শামসুল হক চিশ্তির একমাত্র ছেলে বিল্লাল হোসেন জানান টাঙ্গাইলের বিভিন্ন উপজেলা ছাড়াও দেশের বিভিন্ন অঞ্চল থেকে ভক্ত আশেকান ও তরিকত প্রেমিরা অংশ নিবে ওরসে।

এলমে তাছাউফ ও সুফিজম গবেষক শামসুল হক চিশ্তি ১৯৫৩ খ্রিস্টাব্দে ৩১ সেপ্টেম্বর জন্ম গ্রহণ করেন। তাঁর পিতা জুব্বার আলী। মাতা আম্বিয়া খাতুন। তিনি ২০১০ খ্রিস্টাব্দে ২০ আগস্ট ওফাত লাভ করেন।

শামসুল হক চিশ্তির ধ্যান জ্ঞান ছিল সমাজে সঠিক সুফিবাদ প্রতিষ্ঠা করা। এ কারনে তরিকতের নামে ভণ্ডামি দৃঢ়ভাবে প্রতিবাদ করেছেন। তিনি বলতেন, এমন ব্যাক্তির সান্নিধ্য গ্রহণ করতে হবে যার অন্তরে হরদম আল্লাহ ও রাসুল প্রেমের জিকির বহমান আছে। তাঁর সান্নিধ্য লাভে ছুঁটে আসতো তরিকত প্রেমিরা। জ্ঞানলব্ধ আলোচনায় মুগ্ধ হতো সমেবেতরা।

অনেকে তাঁর সান্নিধ্যে সুখ-দুঃখ, কান্না, ব্যাথা, বঞ্চনা ও দীর্ঘশ^াস রোমন্থন করতেন। অনকে নেচে গেয়ে আনন্দের হিল্লোল জাগাতেন। আবার অনেকে বেদনার স্তপ্ত দীর্ঘশ^াস জড়িয়ে কান্নায় ভেঙ্গে পড়তেন। দুনিয়ার চাওয়া পাওয়া ভুলে পরপারের চিন্তায় মগ্ন হতেন। তিনিও ব্যাথিতের ব্যাথায়, অসহায়ের অশ্রুজলে নিজেকে অনুভব করতেন। তরিকত বা সুফিবাদের মাধ্যমে মানুষকে ভালোবাসার বন্ধনে বাঁধার চেষ্টা করতেন।

সুফিবাদের জাগরণ সৃষ্টিতে তফসারত এ সাধক ‘ধর্মই মানবতা মানবতাই ধর্ম’ নামে গ্রন্থ ও তিনশতাধিক ভক্তি মূলক গান রচনা করেছেন।