সোমবার, ০৬ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:৪২ অপরাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
তিন দিনের সফরে ঢাকায় বেলজিয়ামের রানি ভূমিকম্প: তুরস্কে ও সিরিয়ায় নিহত ৫ শতাধিক উত্তরা বিজিবি মার্কেট এখন আর ডালভাত কর্মসূচিতে নেই মন্দিরে মূর্তির পায়ে এ্যাড. রফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী’র সেজদা প্রতিবাদে নির্যাতন ও মামলার শিকার মোঃ জলিল রৌমারীতে অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটির অফিস উদ্বোধন যুবলীগ নেতাদের ছত্রছায়ায় কল্যাণপুরে আবাসিক হোটেলে রমরমা দেহব্যবসা তিতাসের অসাধু কর্মকর্তাদের আতাতে লাইন কাটার নামে প্রতিনিয়ত গ্রাহকদের সাথে ব্ল্যাকমেইলিং করছে প্রতারক চক্র রাজধানীর উত্তরখান থেকে ড্যান্ডি পার্টির ১৬ সদস্য গ্রেপ্তার দেশে গুপ্ত লিখন বিদ্যাকে ব্যবহার করে জঙ্গী ও মাদক কার্যক্রম প্রসারিত হচ্ছে দক্ষিণখানে নির্মাণাধীন ৯ তলা ভবন থেকে পড়ে রাজমিস্ত্রি নিহত : আহত-১

আট ধারা সংশোধনের তাগিদ,সম্পাদক পরিষদের তীব্র আপত্তি

Reporter Name
  • Update Time : মঙ্গলবার, ২২ মে, ২০১৮
  • ৩২ Time View

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

প্রস্তাবিত ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন, ২০১৮ এর ৮ ধারা নিয়ে আপত্তি জানিয়েছেন দেশের প্রথিতযশা জেষ্ঠ্য সাংবাদিক নেতারা। এই আইনের আওতায় যেসব ধারায় সাংবাদিকতা বাধাপ্রাপ্ত হয় সেগুলো দূর করার দাবি জানিয়েছেন তারা।

মঙ্গলবার জাতীয় সংসদে সংসদের ডাক টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির বৈঠকে ডিজিটাল নিরাপত্তা বিল নিয়ে আলোচনা হয়। প্রস্তাবিত এই আইন নিয়ে সাংবাদিক, কূটনীতিক, মানবাধিকারকর্মীসহ বিভিন্ন পক্ষের আপত্তি ছিল। বিলটি সংসদে ওঠার পর পরীক্ষার জন্য সংসদীয় কমিটিতে পাঠানো হয়।

সাংবাদিক বা যে কেউ ইচ্ছাকৃতভাবে গুরুত্বপূর্ণ তথ্য কাঠামোতে বার বার অনুপ্রবেশ করলে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড ও ৫ কোটি টাকা অর্থদণ্ডের বিধান রাখা হয়েছে। এজন্য অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স, বাংলাদেশ ফেডারেল সাংবাদিক ইউনিয়ন (বিএফইউজে) ও সম্পাদক পরিষদের সঙ্গে বৈঠক করে কমিটি। বৈঠকে সম্পাদক পরিষদ একটি লিখিত প্রস্তাবও দেয়

বৈঠক শেষে সম্পাদক পরিষদের সভাপতি সমকাল সম্পাদক গোলাম সারওয়ার সাংবাদিকদের বলেন, ‘অত্যন্ত ফলপ্রসূ আলোচনা হয়েছে। ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে সাংবাদিকতার অবাধ বিচরণের ক্ষেত্রে যেসব ধারায় বাধা আসতে পারে, সেগুলোতে আমরা তুলে দিতে বলেছি। তা না হলে আমরা গণতন্ত্র রক্ষার জন্য আন্দোলন করেছি; আমরা সাংবাদিকতা রক্ষার জন্য আন্দোলনে যাব, সেটা বলে এসেছি।’

গোলাম সারওয়ার বলেন, তারা সম্পাদক পরিষদের পক্ষ থেকে একটি লিখিত বক্তব্য কমিটিকে দিয়েছেন।

তিনি বলেন, এই ডিজিটাল আইন নিয়ে আমরা যে দুচিন্তায় ছিলাম সেগুলো ভালোভাবে তুলে ধরতে পেরেছি। বিএফইউজের সভাপতি মঞ্জুরুল আহসান বুলবুল বলেন, এই প্রস্তাবিত আইন নিয়ে জাতীয় ও আন্তর্জাতিক উদ্বেগগুলো বৈঠকে তুলে ধরেছি। আমরা বলেছি যাতে এমন কোনো আইন না হয় যেন সাধারণ মানুষের মতো প্রকাশের স্বাধীনতা খর্ব হয়। এমন কোনো ধারা যাতে না থাকে গণমাধ্যমের স্বাধীনতা সংকুচিত হয়

ডাক, টেলিযোগাযোগ ও তথ্যপ্রযুক্তিমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বলেন, ‘আমরা উভয় পক্ষ একমত হয়েছি যে এ রকম একটি আইন আমাদের দরকার। সেই আইনের যেসব জায়গায় সংশোধনী করা প্রয়োজন, সেটা আমরা করব।’

কমিটির সভাপতি ইমরান আহমেদের সভাপতিত্বে বৈঠকে কমিটির সদস্য তথ্য ও যোগাযোগপ্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহ্‌মেদ, মোয়াজ্জেম হোসেন রতন, শওকত হাচানুর রহমান, কাজী ফিরোজ রশীদ, হোসনে আরা লুৎফা ডালিয়া এবং বিশেষ আমন্ত্রণে ডাক ও টেলিযোগাযোগমন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার এবং আইন, বিচার ও সংসদবিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বৈঠকে অংশ নেন। কমিটির আমন্ত্রণে সম্পাদক পরিষদের সভাপতি গোলাম সারওয়ার, সাধারণ সম্পাদক মাহ্ফুজ আনাম, অ্যাসোসিয়েশন অব টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্সের সভাপতি সালমান এফ রহমান, সহসভাপতি মোজাম্মেল হক বাবু, বিএফইউজের সভাপতি মনজুরুল আহসান বুলবুল, মহাসচিব ওমর ফারুক বৈঠকে যোগ দেন

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category