Amar Praner Bangladesh

আবাসনের আড়ালে এমএলএম নাজরানের প্রতারণা

 

ওয়াহিদ আব্দুল্লাহ্ রাজীব/ঐশী :

একের পর এক প্রতারণার পরও দেশে বন্ধ হয়নি বহুস্তর বিপণন পদ্ধতি এমএলএম কোম্পানীর প্রতারণার ফাঁদ। ডেসটিনির পর দেশজুড়ে প্রতারণার ফাঁদ পেঁতেছে নাজরান বিডি প্রা: লি: নামক এমএলএম কোম্পানী।

অধিক অর্থে প্রলোভন দেখিয়ে সদস্য করছে সহজ-সরল তরুণ-তরুণীদের। এদের মাধ্যমে জমি বা প্লাট, দেওয়ার নামে প্রকৃত দামের তুলনায় প্রায় দশ গুনের চেয়েও বেশি। সদস্যদের কাছ থেকে হাতিয়ে নিচ্ছে লক্ষ লক্ষ টাকা। দামের চেয়ে মানে সেরা সদস্যদের হাতে ধরিয়ে দিয়ে পণ্য নামক প্রতারণার ফাঁদ। আর ভবিষ্যতের আয়ের আশায় তাদের সেই ফাঁদে ফেলে বেকারত্ব অভিশাপ ভুক্ত থাকা এইরকম তরুণীরা ডেসটিনির প্রতারণার ফাঁদ হওয়ার পর সরকারের দৌড় ঝাঁপে কিছুদিনের জন্য ঝিমিয়ে পড়েছিল এমএলএম কোম্পানীর রমরমা বাণিজ্য।

তারপর সম্প্রতি দেশজুড়ে নাজরান বিডি প্রা: লি: কোম্পানী রাজধানীর উত্তরার আলাউল এভিনিউ সেক্টর-৬ বাড়ী-৩০ ৮ম তলায় চালিয়ে যাচ্ছে এই প্রতারণার ব্যবসা। এ ব্যাপারে জানতে চাইলে, ভাইস চেয়ারম্যান আতাউর রহমান জানান আমরা কাউকে চাকুরী দিচ্ছি না। আমাদের জমি আছে তা মার্কেটিং করার জন্য লোক নিয়োগ করছি। যে শুধু এমএলএম-ই নয়। তাদের একটি সিন্ডকেট অর্থ পাচারের সাথে জরিত শুধু দেশেই নয় দেশের বাহিরেও পাচার করে এমনটা জানান জনৈক কর্মকর্তা।

এই হায় হায় কোম্পানীর এম ডি জীবন। জীবনের সাথে দেখা করতে বার বার চেষ্টা করলে তাকে পাওয়া যায়নি। জনৈক এক কর্মকর্তা বলেন, দুইজন প্রায় পঞ্চাশ কোটি টাকা আত্মসাৎ করে নিয়ে যান। বর্তমানে এই প্রতিষ্ঠানের দায়িত্বে রয়েছেন কুখ্যাত সন্ত্রাসী, চাঁদাবাজের গডফাদার আতাউর রহমান। যে সব সময়, আইন-শৃঙ্খলা বাহিনীর নাকের ডগায় রশি লাগিয়ে চালিয়ে যাচ্ছে প্রতারণার বাণিজ্য। মেহের পুর জেলার এক বেকার যুবক রফিকুল জানান প্রাণের বাংলাদেশকে বলেন, আমি চাকরীর পত্রিকায় দেখে আসছি আমার বাপের জমি বিক্রি করে আমার এক লাখ টাকা নিয়ে এখানে প্লাট কেনার জন্য টাকা দিয়েছি তার কোন হুদুস এখনো পাইনি। অন্য এক সদস্য সুজন বলেন, আমি পাঁচ লক্ষ টাকা দিয়ে বলেছে দশ লক্ষ টাকা দিবে।

এই কোম্পানীর একজন কর্মকর্তা কিছু সদস্যের কাছে জানা যায় যে, তারা কিভাবে কার্যক্রম পরিচালনা করছে। কিন্তু আমাদের টাকা নাই কিছু বলতে চাইলে আমাদেরকে মেরে ফেলার হুমকি প্রদান করে। এ ব্যাপারে উত্তরা জোনের উপ-পুলিশ কমিশনার শহীদুল্লাহ বলেন, প্রাণের বাংলাদেশকে, বিষয়টি আমার জানা নেই কোন অভিযোগ পেলে আমরা দেখবো। নাজরান বিডি প্রা: লি: নামের কোন আবাসনের নাম নেই রাজধাণী উন্নায়ন কর্তৃপক্ষে।