রবিবার, ০৫ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:০৭ অপরাহ্ন

আমার সোনার বাংলায়-বৈসম্যের ঠাই নাই কোটা মুক্ত চাকরি চাই

Reporter Name
  • Update Time : বুধবার, ১১ এপ্রিল, ২০১৮
  • ৪৩ Time View

উত্তরা প্রতিনিধিঃ বঙ্গ বন্ধুর বাংলায় বৈসম্যের ঠাই নাই, আমার সোনার বাংলায় বৈসম্যের ঠাই নাই, কোটা সংস্কার করতে হবে, বেধাবিদের চাকরি দিতে হবে, ম তে মতিয়া তুই রাজাকার তুই রাজাকার। গতকাল বুধবার রাজধানীর উত্তরার হাউজবিল্ডিং এলাকায় ঢাকা ময়মনসিংহ মহাসড়ক বন্ধ করে কোটা সংস্কারের দাবি ও কৃষি মন্ত্রী মতিয়া চৌধুরির সংসদে দেয়া ভাষনের প্রতিবাদে এমন শ্লোগান দিতে থাকে আন্দোলন রত বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা।

সকাল সাড়ে ১০ টায় উত্তরা ৭ নং সেক্টরস্থ বিজিএমইএ বিশ্ব বিদ্যালয়ের সামনে জরো হতে থাকে উত্তরার সকল বিশ্ব বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা। সকাল ১১ টায় কয়েক শত ছাত্র-ছাত্রী একত্র হয়ে শ্লোগান দিতে থাকে বিজিএমইএ ক্যাম্পাসের সামনের সড়ক টিতে। একই সময়ে উত্তরা আইইউবিএটি ইউনিভার্সিটির শিক্ষার্থীরাও তাদের ক্যাম্পাসের সামনে আন্দোলন শুরু করে ও শ্লোগান দিতে থাকে, করবো কোটা সংস্কার আমরা হবো রাজাকার, ফ্রি ফর কোটা, একাত্তরের হাতিয়ার গর্জে উঠুক আরেক বার, ম তে মতিয়া তুই রাজাকার তুই রাজাকার, এতো সুন্দর সোনার দেশ কোটার জালে করলো শেষ, জয় বাংলা। কুটা মুক্ত চাকরি চাই। এসময় পুলিশ তাদের শান্ত করার চেষ্ঠো করে। পরে উত্তরার আসপাশের বিভিন্ন বিশ্ব বিদ্যালয়ের ছাত্র-ছাত্রীরা পায়ে হেটে এবং ট্রাক ও পিকআপ ভ্যান যোগে এসে যোগ দেয় হাউজবিল্ডিং এলাকায় আন্দোলনে অবস্থান রত শিক্ষার্থীদের সাথে। বেলা ১২ টার দিকে কয়েক হাজার শিক্ষার্থী এক হয়ে পুলিশি বাধা উপেক্ষা করে দখলে নেয় ঢাকা ময়মনসিং মহাসড়ক। বিকেল ৪ টা নাগাদ টানা অবস্থানের কারনে যানবাহন না চলায় উত্তরে গাজীপুর চৌরাস্তা থেকে হাউজবিল্ডিং ও দক্ষিনে মহাখালি পর্যন্ত সম্পুর্ণ সড়কে তীব্র যানজটের কারনে চরম দুর্ভোগে পরেন সাধারন মনুষ। এসময় যাত্রীদের পায়ে হেটে নিজ গন্তব্যে যেতে দেখা গেছে। দুপুর ২ টার দিকে বাংলাদেশ ছাত্রলীগের সভাপতি- সাধারন সম্পাদকের আস্বাসে শিক্ষার্থীদের মাঝে কিছুটা সন্তষ্টি দেখা যায়। পরক্ষনেই এই বিষয়ে কেন্দ্রীয় ছাত্র পরিষদের পক্ষ থেকে জানানো হয়, প্রধান মন্ত্রী নিজ মুখে কোটা বন্ধের সিদ্ধান্ত না জানানো পর্যন্ত আন্দোলন অব্যহত রাখবে বলে জানায় শিক্ষার্থীরা। তবে আন্দোলন রত শিক্ষার্থীরা যাতে কোন রকম সহিংসতায় না জড়ায় সেদিকেও খেয়াল রাখছেন পুলিশ। গতকালের আন্দোলনের শুরু থেকেই ঘটনাস্থলে উপস্থিত ছিলেন উত্তরা জোনের ডিসি, এডিসি সহ জোনের উচ্চ পদস্থ কর্মকর্তারা। রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত আন্দোলন চলছিল। তবে কোথাও কোন রকম অপ্রিতিকর ঘটনার খবর পাওয়া যায়নি।

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category