Amar Praner Bangladesh

উত্তরায় এ- টু -জেড ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টারের অবৈধ বানিজ্য অদক্ষ কারিগরের হাতে তৈরি হচ্ছে অদক্ষ ড্রাইভার

 

 

আবু হাসানঃ

 

রাজধানীর উত্তরায় বিভিন্ন স্থানে বিভিন্ন নামে বেনামে ফুতপাতে সাধারণ মানুষ চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে অবৈধ ভাবে চলছে ১৭টি ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টার। সাধারণ জনগণ মনে করেন এ যেনো মানুষের মরণ ফাঁদ বসিয়েছে ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টার গুলো।

সরেজমিনে ঘুরে দেখা যায়, অদক্ষ প্রশিক্ষকের হাতে তৈরি হচ্ছে অদক্ষ চালক। বিআরটিএ কর্তৃপক্ষ গত ৩১ আগস্ট ২০২২ ইং তারিখে বিআরটিএ বনানী সদর কার্যালয়ের ভ্রম্যমান আদালত ৫ এর নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট জনাব তরিকুল ইসলাম রাজধানীর উত্তরায় ৩ নম্বর সেক্টরের ১৪ নম্বর রোডের মাথায় ফুতপাতের ওয়াশার ড্রেনের উপর গড়ে উঠা এ টু জেড নামের একটি অবৈধ ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টারকে ২০ হাজার টাকা জরিমানা করে।

এছাড়া অবৈধ ভাবে এ টু জেড ড্রাইভিং ট্রেনিং সেন্টারের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখতে সিলগালা করেছে ভ্রাম্যমান আদালত।

এসময় তার পাশে থাকা আরেকটি বিআরটিএর অনুমতি প্রাপ্ত এম আর ড্রাইভিং স্কুলের শাখা অফিস শুধু সিটি কর্পোরেশনর ড্রেনের উপর থাকার অপরাধে এম আর ড্রাইভিং স্কুলকে ১০ হাজার টাকা জরিমানা করে সতর্ক করেছেন নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট তরিকুল ইসলাম।

এছাড়াও তিনি জানান, রাজধানীতে অবৈধ কোন ড্রাইভিং স্কুল চলতে দেওয়া হবে না। এ ধরনের ড্রাইভিং স্কুল সম্পর্কে অভিযোগ এলে আইন অনুযায়ী প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। আমাদের বিআরটি ‘র অভিযান অব্যাহত থাকবে।

এ বিষয়ে এ-টু-জেড ট্রেনিং সেন্টারের পরিচালক শহীদুল ইসলামের মুঠোফোনে কথা হলে তিনি বলেন, আমার ব্যাপারে যে পত্রিকায় মিথ্যা সংবাদ প্রকাশ করেছে আমি তার বিরুদ্ধে হাই কোর্টে রিট করবো। আমি আপনার সাথে সাক্ষাতে কথা বলবো। (ধারাবাহিক চলমান )