Amar Praner Bangladesh

উত্তরায় কিশোর গ্যাংয়ের সংবাদের জেরে সম্পাদক ও রিপোর্টারকে হত্যার চেষ্টা

 

 

প্রাণের বাংলাদেশ ডেস্ক :

 

গত ২৩/০৪/২০২২ ইং আনুমানিক রাত ৮.৩০ ঘটিকার সময় উত্তরা জসিম উদ্দিন প্রেসক্লাবের আলোচনা অনুষ্ঠান শেষে দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকার সম্পাদক বিশিষ্ট কবি ও সাহিত্যিক বিএমএসএফ’র কেন্দ্রীয় নেতা আব্দুল্লাহ্ আল মামুন ও সিনিয়র ষ্টাফ রিপোর্টার রবিউল আলম রাজু সহ কয়েকজন ক্লাব থেকে বের হয়ে উত্তরা ৩ নং সেক্টর ১৮ নং রোডের মাথায় আসলে অজ্ঞাতনামা ১৫-২০ জনের একটি সংঘবদ্ধ কিশোর গ্যাং তাদেরকে ঘিরে ফেলে এবং সম্পাদককে লক্ষ্য করে বলে আমাদের বিরুদ্ধে কিশোর গ্যাংয়ের নিউজ করেছিস কেন, এ কথা বলেই তাদের হাতে থাকা বেল্ট এবং লাঠি দিয়ে অতর্কিত হামলা চালায়।

কিশোর গ্যাংয়ের হামলায় সম্পাদক এবং তার সহকর্মী রবিউল আলম রাজু গুরুতর আহত হয়। তাদের ডাক চিৎকারে অন্যান্য সহকর্মীরা কিশোর গ্যাংয়ের হাত থেকে সম্পাদক ও সাংবাদিককে বাঁচানোর জন্য দৌঁড়ে আসলে কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীরা সম্পাদককে হত্যা করতে না পেরে চিৎকার দিতে থাকে আবার সুযোগ পেলে সম্পাদকের লাশ ফেলে দিবো বলে দৌঁড়ে পালিয়ে যেতে সক্ষম হয়।

পরবর্তীতে সম্পাদক এবং তার সহকর্মীকে টঙ্গী শহীদ আহসান উল্লাহ মাষ্টার জেনারেল হাসপাতালে প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়া হয়, সম্পাদকের শরীরের আটটি জায়গায় এবং সহকর্মীর সাতটি জায়গায় কেটে যায় ও নিলাফুলা জখম হয়। পরবর্তীতে উত্তরা পশ্চিম থানায় একটি অভিযোগ দায়ের করা হয়।

থানা কর্তৃপক্ষ জানায়, বিষয়টি তদন্ত করে অবশ্যই মামলা নিয়ে অপরাধী কিশোর গ্যাংয়ের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে। উল্লেখ্য বেশ কিছু দিন পূর্বে দৈনিক আমার প্রাণের বাংলাদেশ পত্রিকায় উত্তরার কিশোর গ্যাং সম্পর্কিত একটি সংবাদ প্রকাশিত হয়। এই সংবাদের জের ধরেই কিশোর গ্যাংয়ের সক্রিয় সদস্যরা সম্পাদক ও সাংবাদিককে হত্যা করার উদ্দেশ্যে তাদের উপর হামলা চালায় বলে জানা যায়।

এ বিষয়ে উত্তরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি রাসেল খান জানান, কিশোর গ্যাংয়ের অপতৎপরতার বিরুদ্ধে অবশ্যই প্রশাসনের আরোও বেশি নজরদারী বাড়াতে হবে। আমরা সাংবাদিকদের উপর এই নেক্কার জনক হামলার তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাই।

পরবর্তীতে মানববন্ধন ও কঠোর কর্মসূচী দিয়ে সন্ত্রাসীদেরকে আইনের আওতায় আনার জন্য আমাদের সকল প্রকার পদক্ষেপ বিদ্যমান থাকবে। ঘটনা শুনে উত্তরা প্রেসক্লাবের অন্যতম কর্মকর্তা মামুন খান এবং দেলোয়ার হোসেন সহ অনেক সাংবাদিকরা টঙ্গী হাসপাতাল গেইটে উপস্থিত হয়। সম্পাদকের উপর এই হামলার জন্য সোশ্যাল মিডিয়া সহ সর্বক্ষেত্রে নিন্দা জ্ঞাপন করে বিভিন্ন স্ট্যাটাস দেওয়া হয়েছে। সকলের একটি দাবী অতিসত্ত্বর কিশোর গ্যাং সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে তাদেরকে গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির ব্যবস্থা করা হোক।