মঙ্গলবার, ০৭ ফেব্রুয়ারী ২০২৩, ০৪:২৮ পূর্বাহ্ন
সংবাদ শিরোনাম :
শ্রমিক লীগের ৫৩ নং ওয়ার্ডের সভাপতি রুবেলকে হত্যার চেষ্টা : থানায় অভিযোগ অস্ত্রধারী নুর আলম নূরুকে গ্রেফতারের জন্য মানববন্ধন হলেও নূরু অধরা : প্রশাসন নিরব তিন দিনের সফরে ঢাকায় বেলজিয়ামের রানি ভূমিকম্প: তুরস্কে ও সিরিয়ায় নিহত ৫ শতাধিক উত্তরা বিজিবি মার্কেট এখন আর ডালভাত কর্মসূচিতে নেই মন্দিরে মূর্তির পায়ে এ্যাড. রফিকুল ইসলাম ও তার স্ত্রী’র সেজদা প্রতিবাদে নির্যাতন ও মামলার শিকার মোঃ জলিল রৌমারীতে অটোবাইক শ্রমিক কল্যাণ সোসাইটির অফিস উদ্বোধন যুবলীগ নেতাদের ছত্রছায়ায় কল্যাণপুরে আবাসিক হোটেলে রমরমা দেহব্যবসা তিতাসের অসাধু কর্মকর্তাদের আতাতে লাইন কাটার নামে প্রতিনিয়ত গ্রাহকদের সাথে ব্ল্যাকমেইলিং করছে প্রতারক চক্র রাজধানীর উত্তরখান থেকে ড্যান্ডি পার্টির ১৬ সদস্য গ্রেপ্তার

উত্তরা পূর্ব ও পশ্চিম থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম- মাসুদ আলম বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর আইকন

Reporter Name
  • Update Time : রবিবার, ২২ জানুয়ারী, ২০২৩
  • ১৩ Time View

 

 

 

নার্গিস আক্তার :

 

সদ্য যোগ দেওয়া উত্তরা পশ্চিম থানায় কর্তব্যরত অফিসার ইনচার্জ মাসুদ আলম এবং উত্তরা পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম একজন ভাল মনের মানুষ। সমাজের প্রতিটি ভালো মানুষ এক একটি নক্ষত্র ভালো মানুষের স্থান সর্বদাই সর্বোচ্চ যেখানে জন্মেছেন, যেখানেই তার পদচারণা পড়েছে সেখানেই আদর্শের উজ্জ্বল বার্তা ছড়িয়ে দিয়েছেন সবার মাঝে।

এই মানুষ গুলোর সাফল্য তুলে ধরলে পাওয়া যায় অনেক আদর্শের আলোক বার্তা। অপরাধ মুক্ত সমাজ ব্যবস্থা বাস্তবায়নে পুলিশ ও সাধারণ মানুষের মাঝে সুন্দর পরিবেশ তৈরী করেছেন। গণমানুষের সেবা সঠিক সামাজিক দায়িত্ব পালনে তারা সবার হৃদয়পট জয় করেছেন। বাংলাদেশ পুলিশ বাহিনীর আইকন, মানবতার ফেরিওয়ালা, সদাহাস্যোজ্জ্বল, মেধা মননে অস্ত্রের মতো শাণিত, তীক্ষ্ম বিদ্যুৎময়, স্বতন্ত্র, মহিমায় সমুজ্জ্বল পরোপকার মহতি প্রানের মহান মানুষ, নির্মোহ স্পষ্টভাষী, লিজেন্ড ডেডিকেটেড অফিসার উত্তরা পশ্চিম থানা অফিসার ইনচার্জ মাসুদ আলম এবং উত্তরা পূর্ব থানার অফিসার ইনচার্জ জহিরুল ইসলাম। তারা বিভিন্ন থানায় সততার সাথে দায়িত্ব পালন করে বর্তমানে উত্তরা পশ্চিম ও পূর্ব থানায় দায়িত্ব পালন করে আসছেন।

তারা থানায় যোগদানের পর উত্তরা পশ্চিম ও পূর্ব থানা এলাকায় মাদকের বিরুদ্ধে যুুদ্ধ ঘোষণা করলে এবং মাদক ও অপরাধ স্পর্ট গুলো শনাক্ত করে যথাযথ আইনগত ব্যবস্থা নিয়ে অপরাধীদের আইনের আওতায় আনার নির্দেশ দিলে এলাকা থেকে মাদক এবং অপরাধ অনেকটাই শূন্যের কোঠায় নেমে আসে। বদলে দেওয়ার অসাধ্যকে সাধন করেছেন পুলিশের এই কর্মকর্তারা। তারা কথায় নয় কাজে বিশ্বাসী। ইতিমধ্যে তারা থানায় চৌকস অফিসারদের নিয়ে বেশ কয়েকটি শক্তিশালী টিম তৈরি করে তাদের আওতাধীন থানা এলাকার নজরদারী বৃদ্ধি করার কারণে সমগ্র এলাকা ইনটেনসিভ কেয়ার ইউনিটের মধ্যে আনতে সক্ষম হয়েছে। যেকোন জায়গায় কোন ঘটনা ঘটলেই তারা নিজেরাই সেখানে পৌঁছে যান। তাদের নিজস্ব তহবিল থেকে অসহায় মানুষকে সহযোগীতা করে থাকেন।

থানায় যে কেউ সমস্যা নিয়ে আসলে অবস্থা বুঝে যতটুকু সম্ভব তার দ্রুত সমাধান করার চেষ্টা করেন। এই বিচক্ষণ অফিসাররা ইতিমধ্যে অনেক গুরুত্বপূর্ণ থানায় অফিসার ইনচার্জের দায়িত্ব সততার সাথে পালন করে পুলিশ বাহিনীর আইকন হিসেবে নিজেকে প্রতিষ্ঠিত করতে সক্ষম হয়েছে।

 

 

Please Share This Post in Your Social Media

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

More News Of This Category

এই সাইটের কোন লেখা কপি পেস্ট করা আইনত দন্ডনীয়