Amar Praner Bangladesh

কমোডিটি এক্সচেঞ্জ হলে বাজারে অস্থিরতা কমবে

 

 

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

 

বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, কমোডিটি এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠা করা সময়োপযোগী সিদ্ধান্ত। আমি বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে কমোডিটি এক্সচেঞ্জের প্রয়োজনীয়তা বেশি অনুভব করছি। এটা প্রতিষ্ঠিত হলে ভোক্তাদের একটি কেন্দ্রীয় ও বড় বাজার তৈরি হবে এবং বাজারে অস্থিরতা অনেক কমে যাবে।

মঙ্গলবার (১২ এপ্রিল) ভার্চুয়াল প্ল্যাটফর্মে বাংলাদেশে প্রথমবারের মতো কমোডিটি এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠায় ভারতের মাল্টি কমোডিটি এক্সচেঞ্জের (এমসিএক্স) সঙ্গে সিএসইর চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন।

অনুষ্ঠানে চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন মাল্টি কমোডিটি এক্সচেঞ্জের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও পি. এস. রেডিডি এবং সিএসইর ভরপ্রাপ্ত ব্যবস্থাপনা পরিচালক গোলাম ফারুক।

টিপু মুনশি বলেন, কিছুদিন ধরে জিনিসপত্রের দাম কখনও শুনছি অনেক বেশি, এতে ভোক্তারা রিতিমতো ক্ষুব্ধ। আবার কখনও শুনছি বিক্রেতারা সঠিক মূল্য পাচ্ছেন না। তবে আজকের আলোচনা যেসব বিষয় উঠে এসেছে সেখানে সস্তি লাভ করছি যে, কমোডিটি এক্সচেঞ্জ সৃষ্টি হলে দ্রব্যমূল্যের দাম বাড়ার সমস্যা নিয়ন্ত্রণে রাখার কিছু সমাধান আছে। যেটা আমাদের এ বিপদ থেকে কিছুটা উদ্ধার করবে।

তিনি বলেন, বাণিজ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি এখন বিপদেই আমি। তবে আজকের এ অনুষ্ঠান আয়োজনের ফলে কিছুটা সাহস পাচ্ছি। কমোডিটি এক্সচেঞ্জ আমরা একটু দেরিতে হলেও শুরু করতে যাচ্ছি। আশা করছি এটা খুব শিগগিরই চালু করা হবে।

আজকে এ অনুষ্ঠানে সবার কথা শুনে আমি ভীষণভাবে উৎসাহী হয়েছি। চট্টগ্রাম স্টক এক্সচেঞ্জ দেশে কমোডিটি এক্সচেঞ্জ প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে যে চুক্তিটি করেছে তা একই মাইলফলক। এতে নতুন দিগন্ত সৃষ্টি হতে যাচ্ছে। আমরা দেশের ব্যবসা-বাণিজ্যকে আরও এগিয়ে নিতে চাই, আরও উন্নত করতে চাই। আমরা সবার সঙ্গে কমপিটিশনে টিকে থাকতে চাই।

এমসিএক্সের সঙ্গে সিএসইর চুক্তি স্বাক্ষর অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ সিকিউরিটিজ অ্যান্ড এক্সচেঞ্জ কমিশনের (বিএসইসি) চেয়ারম্যান অধ্যাপক শিবলী রুবাইয়াত-উল-ইসলাম ও বাংলাদেশে নিযুক্ত ভারতীয় হাইকমিশনার বিক্রমকে দোরাইস্বামী।

এছাড়া অনুষ্ঠানে বিএসইসির কমিশনার অধ্যাপক ড. শেখ শামসুদ্দিন আহমেদ, সিএসইর চেয়ারম্যান আসিফ ইব্রাহীমসহ পরিচালনা পর্ষদ এবং পুঁজিবাজার সংশ্লিষ্ট স্টেকহোল্ডারা অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

এদিকে অনুষ্ঠানে মাল্টি কমোডিটি এক্সচেঞ্জের পক্ষে সিকিউরিটিজ এক্সচেঞ্জ বোর্ড অব ইন্ডিয়ার (এসইবিআই) প্রতিনিধিরা উপস্থিত ছিলেন।