Amar Praner Bangladesh

কলারোয়ার কওমী মহিলা মাদরাসায় খাদ্যে বিষক্রিয়ায় ১৮ শিশু শিক্ষার্থী অসুস্থ্য

 

 

আবু বকর, সাতক্ষীরা প্রতিনিধিঃ

 

সাতক্ষীরার কলারোয়া পৌর সদরের কলাগাছি মোড়স্থ মাদরাসাতুল বানতে আস সালাফিয়্যাহ কওমী মহিলা মাদরাসায় খাদ্যে ফুড পয়জেনিং হয়ে ১৮ শিশু শিক্ষার্থী অসুস্থ্য হয়ে পড়েছে। তাদেরকে বুধবার (৭সেপ্টেম্বর) সকাল ১১টার দিকে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। তাদের সবারই পেটে ব্যাথা ও পাতলা পায়খানা ও বমি হচ্ছিল বলে জানা গেছে।

মাদ্রাসা কর্তৃপক্ষের দাবী বৃষ্টির পানি দিয়ে ভাত ও তরকারী রান্না করার পর রাতে ওই খাবার খেয়ে তারা ঘুমিয়ে পড়ে। এরপর গভীর রাতে তাদের প্রথমে ২/১ জন ও পরে বুধবার দুপুর সকাল থেকে মোট ১৮ জনের বমি, পেট ব্যাথা ও পাতলা পায়খানা শুরু হয়।

প্রথমে তারা প্রাথমিক চিকিৎসা দেওয়ার পরও যখন অবস্থার উন্নতি হয়নি তখন তারা বাধ্য হয়ে কলারোয়া উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করেন। মাদরাসার প্রিন্সিপাল মাওলানা অহিদুজ্জামান জানান, মাদরাসার বাবুর্চি বৃষ্টির পানি দিয়ে রাতে ভাত ও তরকারী রান্না করেন। ওই খাবার খাওয়ার পর শিক্ষার্থীদের বমি, পেট ব্যাথা ও পাতলা পায়খানা হয়।

তিনি আরো জানান, বৃষ্টির পানি যেখান থেকে সংগ্রহ করা হয়েছে সেখান থেকে ওই পানিতে বিষক্রিয়ায় এ ঘটনাটি ঘটতে পারে বলে তিনি দাবী করেন। এদিকে অসুস্থ্য মাদরাসা শিক্ষার্থী-লিজা (১২), সফিয়া (৯), মহিয়া (১১), সারা (৯), সাদিয়া (১০), তাসমিম হুমাইয়া (৮), সাফিয়া (১০), রুনা (১০), তাসনিন (১২), সুরাইয়া (১১), করিমন নাহার (১০), সামিরা (১৩), তাবাসছুম (১৪), তাসমিম তামান্না (১২), মোহনা (১১), রুপিয়া (৯), সাইমা (১২) ও মোহনা (১২) জানায়, যে রঙিন কাপড় দিয়ে ওই বৃষ্টির পানি ছাকুনি দেয়া হয়েছে তার রঙ খাবারে গিয়ে তাদের এ অবস্থার সৃষ্টি হয়েছে।

কলারোয়া হাপতালের স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ মাহবুবর রহমান সেন্টু জানান, বমি, পেট ব্যাথা ও পাতলা পায়খানা নিয়ে মাদরাসার ১৮জন শিক্ষার্থী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি হয়েছে। তিনি জানান, ফুড পয়জেনিং এর কারনে এ ঘটনাটি ঘটেছে বলে প্রাথমিক ভাবে জানা গেছে। তাদের শারিরীক অবস্থা বর্তমানে ভালো রয়েছে। এখন পর্যবেক্ষণে রয়েছে হাসপাতালের ডাক্তাররা সর্বক্ষনিক ভাবে তাদের খোজ খবর ও চিকিৎসা দিচ্ছেন।