Amar Praner Bangladesh

কুষ্টিয়ায় ইউপি চেয়ারম্যান স্কুলের তথ্যাদি দেখতে চাওয়ায় পুলিশে খবর!

 

 

হাসনাত রাব্বু, কুষ্টিয়া জেলা প্রতিনিধি :

কুষ্টিয়ার খোকসায় গোপগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান আমলাবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির তথ্যাদি বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদের নিকট চাইলে তথ্য না দিয়ে পুলিশে খবর দেয়ার অভিযোগ উঠেছে। সোমবার দুপুরে বিদ্যালয়ের অফিস কক্ষে এই ঘটনা ঘটে।

গোপগ্রাম ইউপি চেয়ারম্যান মোতালেব হোসেন জানান, ২০২১ সালের নভেম্বর মাসে সম্পূর্ণ অনিয়ম তান্ত্রিকভাবে আমলাবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি গঠন করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদ। তিনি অভিযোগ করে বলেন প্রধান শিক্ষকের বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ের উন্নয়নের জন্য বিভিন্ন প্রকল্পের টাকা আত্মসাৎ, সুদে কারবার সহ বিভিন্ন অভিযোগ রয়েছে। নানা অনিয়ম ও দূর্নীতির কারনে বিদ্যালয়ে পর্যাপ্ত ক্লাসরুম না থাকায় অনেক সময় শিক্ষার্থীদের ক্লাস করতে হয় খোলা মাঠে। বিভিন্ন অনিয়মের কথা শোনার পর সোমবার তিনি বিদ্যালয়ে এসে প্রধান শিক্ষকের নিকট ম্যানেজিং কমিটির সকল কাগজপত্র দেখতে চাইলে প্রধান শিক্ষকে তাকে বসিয়ে রেখে হাওয়া হয়ে যান। তিনি অফিস কক্ষে বসে থাকা অবস্থায় একঘন্টা পর খোকসা থানা পুলিশ এসে তাকে জানান লোকজন নিয়ে এসে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের উপর হামলা করেছেন তিনি। এমন অভিযোগ করে মোবাইল ফোন করেছেন প্রধান শিক্ষক। মোতালেব হোসেন অভিযোগ করে বলেন তিনি তথ্য চেয়েছেন প্রধান শিক্ষক না দিয়ে সরাসরি বলে দিতো। কিন্তু তার বিরুদ্ধে মিথ্যা অভিযোগ এনে তাকে হেয় প্রতিপন্ন করার বিচার দাবী করেন তিনি সংশ্লিষ্ট দপ্তরের কাছে।

এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের বর্তমান ম্যানেজিং কমিটির শি. প্রধান আলী আলম মোল্লা ও সংরক্ষিত শি. প্রধান মোছা. সেলিনা খাতুন ম্যানেজিং কমিটি গঠনের বিষয়ে জানান, তারা শুধু মনোনয়ন পত্র তুলেছিলেন ও জমা দিয়েছিলেন। ম্যানেজিং কমিটির কোন নির্বাচন সে সময় হয়নি। প্রধান শিক্ষকের উপর ইউপি চেয়ারম্যানের চড়াও হওয়ার বিষয়ে তারা সহ বিদ্যালয়ের অন্যান্য শিক্ষকরা জানান, চেয়ারম্যান এসে প্রধান শিক্ষকের কাছে কাগজপত্র চাইলে তিনি তাকে বসিয়ে রেখে বাইরে চলে যান এবং কিছুক্ষন পর পুলিশ ও সাংবাদিকরা আসেন।

বিষয়টি জানতে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুস সামাদকে মোবাইলে কল দিলে তিনি জানান, তিনি একটি অনুষ্ঠান বাড়িতে রয়েছেন কথা বলতে পারবেননা বলে ফোন কেটে দেন। পরবর্তীতে একাধিকবার ফোন দিলেও তিনি রিসিভ করেননি।

এ বিষয়ে খোকসা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) সৈয়দ আশিকুর রহমান জানান, আমলাবাড়ি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষকের উপর ইউপি চেয়ারম্যান চড়াও হবার সংবাদ পেয়ে সেখানে পুলিশ পাঠানো হয়। পরবর্তীতে ইউপি চেয়ারম্যানকে বলা হয়েছে কোন তথ্য বা প্রয়োজনীয় কাগজ নিতে হলে সঠিক পদ্ধতি অবলম্বন করতে।